মিয়ানমারে জান্তা বাহিনীর ৭৩ সদস্য নিহত
মিয়ানমারে জান্তা বাহিনীর ৭৩ সদস্য নিহত

সংগৃহীত ছবি

মিয়ানমারে জান্তা বাহিনীর ৭৩ সদস্য নিহত

অনলাইন ডেস্ক

মিয়ানমারের জান্তা বাহিনীর ৭৩ সদস্যকে হত্যা করেছে দেশটির বিদ্রোহী গোষ্ঠী পিপলস ডিফেন্স ফোর্স গ্রুপ (পিডিএফ) এবং ইথনিক আর্মড অরগানাইজেশন (ইএও)।

পিডিএফ এবং ইএওর বরাতে সোমবার (৫ ডিসেম্বর) দেশটির সংবাদমাধ্যম দ্য ইরাবতি জানায়, গত তিন দিন ধরে মিয়ানমারের বিভিন্ন অঞ্চলে হামলা চালিয়ে জান্তা বাহিনীর ৭৩ সদস্যকে হত্যা করে বিদ্রোহী গোষ্ঠীরা। তবে সেনা সদস্যের হতাহতের সংখ্যা স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারেনি সংবাদমাধ্যমটি।

 ইরাবতি জানায়, শনিবার কায়াহ রাজ্যের দোমোসো এলাকায় কারেন বিদ্রোহী গোষ্ঠীর সঙ্গে সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জান্তা সেনা নিহত হন।

চারজনকে বন্দি করা হয়েছে। কারেন বিদ্রোহী গোষ্ঠীরা জানিয়েছে সংঘর্ষের সময় প্রচুর অস্ত্র, গুলিসহ সামরিক সরঞ্জাম রেখে পালিয়ে যায় সেনারা। ফেলে যাওয়া সামরিক সরঞ্জামের পুরোটাই জব্দ করেছে কারেন বিদ্রোহী গোষ্ঠী।  
 
রোববার ম্যাগওয়ে অঞ্চলের ইয়েসাগিও শহরে পিডিএফের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩০ জান্তা সেনা নিহত হয়েছে।
এ ছাড়া বেশ কয়েকজন সেনা সদস্য আহত হয়েছে। এ সময় দুজন পিডএফ সদস্যও গুরুতর আহত হয়েছে। পিডিএফ গ্রুপ জানিয়েছে, ইয়েসাগিওতে শহরের থানা দখল করতে যাওয়ার সময় জান্তা সেনা সদস্যের সঙ্গে তাদের এ সংঘর্ষ হয়।
 
এ ছাড়া মিয়ানমারের মান্দালে, সাগাইং, বাগো, ইয়াঙ্গুন এবং তানিনথারি অঞ্চলে বিদ্রোহী গোষ্ঠীর সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন জান্তা সেনা সদস্য নিহত হয়েছে।
 
২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে মিয়ানমারে অং সান সু চির নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। এর বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হলে সহিংস দমন নীতি গ্রহণ করে জান্তা সরকার। এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন কয়েক হাজারের বেশি বিক্ষোভকারী। এই সহিংসতার জেরে কয়েকটি সশস্ত্র গোষ্ঠী সম্মিলিত হয়ে গঠন করে পিপলস ডিফেন্স ফোর্সেস (পিডিএফ)। এরপর থেকেই জান্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছে তারা।
news24bd.tv/আলী