স্পেনকে রুখে দিতে প্রস্তুত মরক্কো
স্পেনকে রুখে দিতে প্রস্তুত মরক্কো

সংগৃহীত ছবি

স্পেনকে রুখে দিতে প্রস্তুত মরক্কো

ফিফা বিশ্বকাপে এবারের আসরে চমক দেখানো আফ্রিকান দল মরক্কোর সামনে এবার সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন স্পেনের বাঁধা। মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) শেষ ষোলর ম্যাচে এডুকেশন সিটি স্টেডিয়ামে স্প্যানিশদের মুখোমুখি হবে মরক্কো। ক্রোয়েশিয়া ও বেলজিয়ামকে পিছনে ফেলে এফ-গ্রুপের শীর্ষ দল হিসেবে নক আউট পর্বে খেলতে এসেছে মরক্কো। অন্যদিকে ই-গ্রুপে জাপানের পর দ্বিতীয় স্থান নিশ্চিত করে শেষ ষোলতে উঠেছে স্পেন।

 

স্বর্ণালী প্রজন্মের বেলজিয়ামের ব্যর্থতা ও ২০১৮ সালের রানার্স-আপ ক্রোয়েশিয়া আক্রমনাত্মক ফুটবল খেলতে ব্যর্থ হওয়ার সুযোগ পুরোপুরি কাজে লাগিয়ে সম্ভাব্য ৯ পয়েন্টের মধ্যে ৭ পয়েন্ট আদায় করে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নিজেদের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েছে স্পেন। এমনকি ক্রোয়েশিয়ার সঙ্গে গোলশুন্য ড্রয়ের ম্যাচটিতেও বিশেষজ্ঞরা কোচ ওয়ালিদ রেগ্রাগুইয়ের দলটিকেই এগিয়ে রেখেছিল।  

সেনেগালের পর দ্বিতীয় আফ্রিকান দল এবারের আসরে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছে মরক্কো। ক্রোয়েটদের বিরুদ্ধে গোলশুন্য ড্র দিয়ে আসর শুরু করার পর বেলজিয়ামকে ২-০ ও কানাডাকে ২-১ গোলে হারিয়ে তারা শীর্ষস্থান দখল করে।

এনিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের নক আউট পর্বে উঠেছে মরক্কো। এর আগে ১৯৮৬ আসরে  শেষ ষোল থেকে তাদের বিদায় নিতে হয়েছিল। এনিয়ে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় টানা আট ম্যাচে অপরাজিত রয়েছে এ্যাটলাস লায়ন্সরা। এই ম্যাচগুলোতে তারা মাত্র দুই গোল হজম করেছে।  

লুইস এনরিকের স্পেন অবশ্য এদিক থেকে কিছুটা হলেও পিছিয়ে রয়েছে। গ্রুপের শেষ ম্যাচে জাপানের কাউন্টার এ্যাটাকের সামনে দাঁড়াতে পারেনি স্প্যানিশ রক্ষনভাগ। যার পরিণতি ২-১ গোলে হার। আলভারো মোরাতার ১১ মিনিটের গোলে লিড নিয়েছিল স্পেন। কিন্তু জাপানিজ কোচ হাজিমে মোরিইয়াসুর খেলোয়াড় বদলীর কৌশলে কাছে হার মানতে বাধ্য হয় স্পেন।  

বিরতির পর বদলী খেলোয়াড় রিটসু ডোয়ান জাপানের ভাগ্য গড়ে দেয়। তিন মিনিটের মধ্যে আয়ো টানাকার গোলে জাপানের ঐতিহাসিক জয়ের পাশাপাশি গ্রুপের শীর্ষস্থান নিশ্চিত হয়। দ্বিতীয় গোলটি নিয়ে অবশ্য বিতর্ক এখনো চলছে। অনেকেরই মত মিটোমা বলটি পাস দেবার আগে সাইড লাইন অতিক্রম করেছিল। কিন্তু ভিএআর চুলচেরা বিচার করে জাপানকে গোলটি উপহার দেয়। জাপানের এই জয়ে জার্মানীকে গোল ব্যবধানে পিছনে ফেলে স্পেন গ্রুপ-ই’র দ্বিতীয় স্থান লাভ করে।

স্পেন যদি গ্রুপের শীর্ষস্থান লাভ করতো তবে শেষ ষোলতে তাদের প্রতিপক্ষ হতো ক্রোয়েশিয়া। যে কারণে দ্বিতীয় স্থান পাওয়া অনেকটা সৌভাগ্য বয়ে এনেছে বলে অনেকেই মত দিয়েছে। কিন্তু এনরিকে জানেন এই ম্যাচটি তার দলের জন্য কতটা কঠিন।

২০১৮ সালে স্পেন শেষ ১৬ থেকে বিদায় নিয়েছিল। পরপর দুইবার একই স্থানে থেকে বিদায় নেবার কোন ইচ্ছাই স্প্যানিশদের নেই। গ্রুপ পর্বে ইংল্যান্ডের সমান  তারা সর্বোচ্চ ৯ গোল দিয়েছে। চার বছর আগে রাশিয়া বিশ্বকাপে গ্রুপে পর্বে মরক্কোর মুখোমুখি হয়েছিল স্পেন। ইয়াগো আসপাসের শেষ মুহূর্তের সমতায় ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত ২-২ গোলে ড্র হয়েছিল।  

বেলজিয়ামের বিরুদ্ধে খেলার ঠিক আগে মরক্কোর নাম্বার ওয়ান গোলরক্ষক কিছুটা অস্বত্বি বোধ করা শেষ মুহূর্তে দল থেকে বাদ পড়েছিলেন। তবে পরের ম্যাচেই কানাডার সাথে পুরো ৯০ মিনিট মাঠে ছিলেন। আচরাফ  হাকিমির ফিটনেস ফিরে পাওয়া নিয়েও আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়েছে। তিনি সামান্য গোঁড়ালির ইনজুরিতে ভুগছেন। কিন্তু পিএসজির এই রাইট-ব্যাক শনিবার দলের পুর্ণাঙ্গ অনুশীলনে ছিলেন না। জিয়েচের মত সোফিয়ান আমবারাত ও সোফিয়ানে বুফালকেও অনুশীলনে বিশ্রাম দেয়া হয়েছিল। কালকের ম্যাচের আগে এই তিনজনের ফিটনেস নিয়ে দুঃশ্চিন্তায় রয়েছে মরোক্কান শিবির।  

news24bd.tv/আলী