২০২২ সালে ৫০০-এর বেশি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে ইরান
২০২২ সালে ৫০০-এর বেশি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে ইরান

সংগৃহীত ছবি

২০২২ সালে ৫০০-এর বেশি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে ইরান

অনলাইন ডেস্ক

চলতি বছরের এ পর্যন্ত ৫০০ এর বেশি মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে ইরান; যা গত বছরের থেকে অনেক বেশি। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) এক প্রতিবেদনে নরওয়ে ভিত্তিক গ্রুপ ইরান হিউম্যান রাইটস (আইএইচআর) এ তথ্য জানিয়েছে। খবর এএফপির।

আইএইচআর বলছে, এই বছর ইরানে অন্তত ৫০৪ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে।

এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে ও তারা বিষয়টি নিয়ে কাজ করছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মৃত্যুদণ্ডের এই পরিসংখ্যানটি উদ্বেগ বাড়িয়েছে। একই সঙ্গে  বিরোধীদের ইস্যুতে সরকার মৃত্যুদণ্ড ব্যাপক আকারে ব্যবহার করছে বলে ধারণা পাওয়া যায়। কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুকে ঘিরে গত সেপ্টেম্বর থেকে ইরানে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে।

ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে কাজ করার অভিযোগে রোববার চারজনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। পরিসংখ্যানে এই চারজনকেও অন্তর্ভুক্ত করেছে আইএইচআর। অসলোভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠনটি বলছে, তেহরানের বাইরে কারাজ শহরের রাজাই শাহর কারাগারে ওই চারজনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। গ্রেপ্তারের সাত মাসের মাথায় তাদের এই সাজা দেওয়া হলো।

আইএইচআরের পরিচালক মাহমুদ আমিরি-মগাদ্দাম এক বিবৃতিতে বলেন, ‘এই ব্যক্তিদের বন্ধ দরজার আড়ালে বিচার করা হয়েছে। এখানে যথাযথ প্রক্রিয়া বা সুষ্ঠু বিচার হয়নি। তাদের এই সাজার আইনি বৈধতার অভাব ছিল। ’

‘সমাজের মাঝে ভীতির সঞ্চার ও ইসলামী প্রজাতন্ত্রের গোয়েন্দা ব্যর্থতা থেকে জনসাধারণের মনোযোগ সরিয়ে নিতে এসব মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে’, যোগ করেন তিনি।  

প্রতিবেদনে মানবাধিকার সংগঠনটি জানায়, গত শনিবার দাসগ্রেড জেলে এক নারীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। শ্বশুরকে হত্যার দায়ে তাকে এই সাজা দেওয়া হয়। ইরানে নারীদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আইএইচআর।

ইরানে গত পাঁচ বছরের মধ্যে এটি সর্বোচ্চ বলে জানিয়েছে আইএইচআর। তাদের তথ্য মতে, ২০২১ সালে ৩৩৩ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়। এর আগের বছর অর্থাৎ ২০২০ সালে এই সংখ্যা ছিল ২৬৭-তে।

মানবাধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক বেসরকারি সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল তথ্য মতে, গত বছর অর্থাৎ ২০২১ সালে ইরানে ৩১৪ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়, যা ছিল দেশটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ। ওই সময় সংস্থাটি বলেছিল, অন্যসব দেশের তথ্য না থাকায় মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের দিকে থেকে ইরানই সর্বোচ্চ। তবে চীনে প্রতি বছর হাজার খানেক আসামির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।  

প্রতিবেদনে আইএইচআর জানায়, বিক্ষোভের জন্য ইতোমধ্যে ছয় জনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। আসামিদের আইনজীবীদের কোনো সুযোগ না দিয়েই এই বিচার হয়েছে। এ ছাড়া তিন নাবালকসহ ২৬ জনের মৃত্যুদণ্ডের রায় হয়েছে, তাদের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে যে কোনো সময় রায় কার্যকর হতে পারে।

news24bd.tv/মামুন

এই রকম আরও টপিক