এবার রাশিয়ার অভ্যন্তরে সামরিক ঘাঁটিতে ইউক্রেনের হামলা
এবার রাশিয়ার অভ্যন্তরে সামরিক ঘাঁটিতে ইউক্রেনের হামলা

সংগৃহীত ছবি

এবার রাশিয়ার অভ্যন্তরে সামরিক ঘাঁটিতে ইউক্রেনের হামলা

ড্রোন ব্যবহার করে সীমান্ত থেকে শত শত মাইল দূরে রাশিয়ার ভূখণ্ডের ভেতরে দু’টি সামরিক ঘাঁটিতে ইউক্রেন হামলা চালিয়েছে। ইউক্রেনের জ্যেষ্ঠ একজন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে সোমবার মার্কিন প্রভাবশালী দৈনিক দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

নিউইয়র্ক টাইমস বলেছে, ড্রোনগুলো ইউক্রেনের ভূখণ্ড থেকে ছোড়া হয়েছিল। এই ড্রোনের হামলায় রাশিয়ার একটি বিমানঘাঁটিতে কমপক্ষে দুটি বিমান ধ্বংস এবং আরও কয়েকটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

গত ৯ মাসের যুদ্ধে ইউক্রেন এবারই প্রথম রুশ ভূখণ্ডের ভেতরে সাহসী হামলা চালিয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ইউক্রেনের ওই কর্মকর্তা বলেছেন, ইউক্রেনের ভূখণ্ড থেকে একাধিক ড্রোন ছোড়া হয়েছিল এবং ইউক্রেনীয় বিশেষ বাহিনী অন্তত একটি হামলায় ঘাঁটির লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সহায়তা করেছে।

নিউইয়র্ক টাইমস বলছে, ইউক্রেনের এই হামলা যুদ্ধকে রাশিয়ার কেন্দ্রস্থলের ঘাঁটিতে নিয়ে যাওয়ার জন্য কিয়েভের নতুন ইচ্ছার ইঙ্গিত দেয়। দেশটি গত কয়েক মাসের যুদ্ধে বাজি ধরে লড়াই করছে এবং প্রথমবারের মতো ইউক্রেন থেকে এত দূরত্বে আক্রমণ করার ক্ষমতা প্রদর্শন করেছে।

ঘাঁটিতে হামলার পরপরই সোমবার ইউক্রেনজুড়ে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে রাশিয়া।

ক্রেমলিন বলেছে, ইউক্রেন যেসব অস্ত্র ব্যবহার করেছে, সেগুলো সোভিয়েত আমলের বিমান-ড্রোন এবং ইউক্রেনের সীমান্ত থেকে প্রায় ৩০০ মাইল দূরের রিয়াজান এবং এঙ্গেলসের ঘাঁটি ছিল সেসবের লক্ষ্য।

তবে রুশ সৈন্যরা সোমবার ইউক্রেনের ছোড়া ড্রোন প্রতিহত করেছে। ড্রোনের ধ্বংসাবশেষের আঘাত এবং বিস্ফোরণে দুটি বিমান সামান্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে তিন সৈন্য নিহত এবং আরও চারজন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে ক্রেমলিন।

রাশিয়ার দক্ষিণাঞ্চলের ভলগা নদীর তীরে অবস্থিত এঙ্গেলস বিমানঘাঁটিতে মস্কোর কিছু দূর-পাল্লার পারমাণবিক বোমারু বিমান নোঙ্গর করা আছে। এই ঘাঁটিতে পারমাণবিক বোমাবাহী তুপোলেপ-১৬০ ও তুপোলেভ-৯৫ বিমানও রাখা আছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, মস্কো থেকে মাত্র ১০০ মাইল দূরের রিয়াজানের কেন্দ্রীয় শহর দিয়াগিলেভো সামরিক ঘাঁটিতে অন্য বিস্ফোরণটি ঘটেছে। রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা আরআইএ নভোস্তি বলেছে, এই বিমানঘাঁটিতে ড্রোন হামলায় সৈন্যদের প্রাণহানি ও আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

news24bd.tv/আলী