নক আউট লড়াই : অতিরিক্ত সময়ে গড়ালো স্পেন-মরক্কো
নক আউট লড়াই : অতিরিক্ত সময়ে গড়ালো স্পেন-মরক্কো

সংগৃহীত ছবি

নক আউট লড়াই : অতিরিক্ত সময়ে গড়ালো স্পেন-মরক্কো

অনলাইন ডেস্ক

কাতার বিশ্বকাপে আবারোও আরেকটি উত্তেজনাকর ম্যাচ উপহার দিল স্পেন-মরক্কো। ক্রোয়েশিয়া-জাপান ম্যাচের পর এবারের বিশ্বকাপে ২য় ম্যাচ গড়ালো অতিরিক্ত সময়ে। প্রথমার্ধের গোলশূন্য অবস্থার পর দ্বিতীয়ার্ধেও গোল দিতে ব্যর্থ হয় দুই দল। স্পেনের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেললেও গোলটাই কেবল পায়নি আফ্রিকান সিংহ মরক্কো।

নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলায় দুদলই লড়েছে সমান সমান। শক্তির বিচারে চেয়ে ঢের এগিয়ে থাকা স্পেন বল দখলে এগিয়ে ছিল। তবে তাদের বড়সড় কোনো সুযোগ তৈরি করতে দেয়নি মরক্কো। শুধু এখানেই শেষ নয়, বল দখলে পিছিয়ে থাকলেও আক্রমণটা বেশি করেছে মরক্কোই।

কিন্তু বেশকিছু আক্রমণে প্রতিপক্ষের রক্ষণে ভীতি ছড়িয়েও পুরো ম্যাচে গোলের দেখা পায়নি আফ্রিকান দলটি।

দোহার এডুকেশন সিটি স্টেডিয়ামে শেষ ষোলর লড়াইয়ে মঙ্গলবার স্পেনের মুখোমুখি হয়েছে মরক্কো। আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে  নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ হয় গোলশূণ্য অবস্থায়। শেষ পর্যন্ত কোন গোল না হলে গোলশূন্য থেকেই অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় স্পেন ও মরক্কো।   অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে যদি জয়ী নির্ধারণ করা না যায় তাহলে ম্যাচ গড়াবে টাইব্রেকারে।  

এদিন খেলার শুরু থেকেই ছোট ছোট পাসে বিল্ড আপ ফুটবল খেলতে থাকে স্পেন। বল নিজেদের দখলে রেখে আক্রমণে ওঠার চেষ্টা করে তারা। অন্যদিকে কাউন্টার অ্যাটাক নির্ভর ফুটবল খেলতে থাকে মরক্কো। ম্যাচের ৭ মিনিটে ডান দিক থেকে আক্রমণে যায় মরক্কো। তবে তা আটকে দেন সার্জিও বুস্কেটস। এরপর ম্যাচের ৯ মিনিটে আক্রমণে ওঠে স্পেন। তবে তা আটকে যায় মরক্কো রক্ষণে।  

ম্যাচের ১০ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে ফ্রি কিক পায় মরক্কো। সেখান থেকে আশরাফ হাকিমির নেওয়া শট অল্পের জন্য চলে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে। ম্যাচের ১৫ মিনিটে ডান দিক থেকে ক্রস বাড়ান নওসাইর মাজরাউই। তবে তা নিজের গ্লাভসে নেন স্পেনের গোলরক্ষক উনাই সিমন। ম্যাচের ২০ মিনিটে বাম দিক থেকে ক্রস বাড়ান আশরাফ হাকিমি। তবে তা ক্লিয়ার করে দেন আয়মেরিক ল্যাপোর্টে।

ম্যাচের ২৬ মিনিটে সহজ সুযোগ পায় স্পেন। জর্ডি আলবার পাস থেকে বল পান মার্কো অ্যাসেনসিও। সেখান থেকে শট করে বল জড়ান সাইড নেটে। ফলে গোল পাওয়া হয় না স্পেনের। ম্যাচের ৩৩ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থাকে জোড়ালো শট করেন নওসাইর মাজরাউই। তবে তা অসাধরণ সেভে দলকে রক্ষা করেন উনাই সিমন।  

এরপর স্পেন বেশ কিছু অ্যাটাক করলেও তা থেকে সুবিধা করতে পারেনি তারা। ম্যাচের ৪১ মিনিটে ফ্রি কিক পায় মরক্কো। তবে সেখান থেকে সুবিধা করতে না পারলেও সেখান থেকে সাজানো আক্রমণ করে মরক্কো। বাম দিক থেকে বাড়ানো বলে হেড করেন নায়েফ আগুয়ের্ড। তবে তা চলে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে। এরপর আবারও সুযোগ তৈরী করেও ব্যর্থ হয় মরক্কো।

ম্যাচের ৪৫ মিনিটে কর্নার পায় স্পেন। তবে সেখান থেকে কাজে লাগাতে পারেনি স্পেন। এরপর বিরতি থেকে ফিরেই আক্রমনে যায় স্পেন। ম্যাচের ৪৭ মিনিটে ডান দিক থেকে ফ্রি কিক পায় স্পেন। ম্যাচের ৫৩ মিনিটে বাম দিক থেকে আক্রমণে ওঠে স্পেন। সেখানে গাভিকে ফাউল করলে ফ্রি কিক পায় স্পেন। সেখান থেকে শট করেন দানি ওলমো। তবে তা রুখে দেন মরক্কোর গোলরক্ষক ইয়াসিন বাউনু।  

এরপর আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে খেলতে থাকে দু'দল। ম্যাচের ৬১ মিনিটে ফ্রি কিক পায় স্পেন। সেখান থেকে বিপদ মুক্ত করেন ইয়াসিন বাউনু। ম্যাচের ৬৮ মিনিটে কর্নার পায় স্পেন।  তবে তা কাজে লাগাতে পারেনি তারা। এরপর বল নিজেদের দখলে রেখে আক্রমণে ওঠার চেষ্টা করে স্পেন।  

ম্যাচের ৭৯ মিনিটে সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি স্পেন। এরপর ম্যাচের ৮০ মিনিটে কর্নার পায় স্পেন। তবে সেখান থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয় তারা। ম্যাচের ৮৫ মিনিটে ডান দিক থেকে ক্রস বাড়ান আশরাফ হাকিমি। তবে তা থেকে গোল করতে ব্যর্থ হয় মরক্কো।  ম্যাচের ৮৮ মিনিটে সুযোগ আসে স্পেনের সামনে। তবে নিকো উইলিয়ামসের নেওয়া শট আটকে দেন সোফিয়ান আমরাবাত। খেলার অতিরিক্ত সময়ের ৯৫ মিনিটের মাথায় দুর্দান্ত আক্রমণে গেলেও গোল করতে পারেনি স্পেন। খেলার দ্বিতীয়ার্ধে দুদল বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করলেও গোলের দেখা পায়নি কোনও দলই। শেষ পর্যন্ত গোল না হলে গোলশূন্য থেকেই খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।
news24bd.tv/আলী