বাংলাদেশে বিনিয়োগের পরিবেশ আরও সহজ চায় যুক্তরাষ্ট্র 
বাংলাদেশে বিনিয়োগের পরিবেশ আরও সহজ চায় যুক্তরাষ্ট্র 

সংগৃহীত ছবি

বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র ষষ্ঠ টিকফা বৈঠক

বাংলাদেশে বিনিয়োগের পরিবেশ আরও সহজ চায় যুক্তরাষ্ট্র 

শাহনাজ ইয়াসমিন, ওয়াশিংটন ডিসি থেকে

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার পাওয়ার অগ্রাধিকারসহ মোট ছয়টি এজেন্ডার আলোচনা দিয়ে শেষ হয়েছে বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র ষষ্ঠ টিকফা বৈঠক। বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রকে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ। প্রয়োজনে তাদের জন্য বিনিয়োগের আলাদা জোন করে দেওয়ার কথা জানানো হয়েছে। বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ এ কথা জানান।

তিনি জানান, বাংলাদেশের শিল্প কারখানার কর্মপরিবেশ নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বিনিয়োগের পরিবেশ আরও সহজ করার আহ্বান জানিয়েছে তারা।

বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে ব্যবসা ও বিনিয়োগ সহযোগিতা ফোরাম- টিকফা চুক্তি হয়েছে ২০১৩ সালে। চুক্তি অনুযায়ী বছরে একবার করে দুই দেশেই এই বৈঠক হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু ২০১৮ সালের পর আর টিকফা বৈঠক হয়নি। তিন বছর পর এবার ওয়াশিংটন ডিসিতে অনুষ্ঠিত হলো ষষ্ঠ টিকফা বৈঠক।

স্থানীয় সময় রোববার সকাল ১০টায় বৈঠক শুরু হয় ওয়াশিংটন ডিসির বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ভবনে। একটানা তিন ঘণ্টার বৈঠক শেষে বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ জানান, দীর্ঘদিন পরে হলেও এবারের বৈঠকটি বাংলাদেশের জন্য ফলপ্রসূ হয়েছে। বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক শিল্পসহ পণ্যের যে শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার চেয়েছে, তা নিয়ে আশাবাদী বক্তব্য পাওয়া গেছে দেশটির কাছ থেকে।

যুক্তরাষ্ট্রকে বাংলাদেশের ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানানো হয়েছে উল্লেখ করে বাণিজ্য সচিব বলেন, তবে বাংলাদেশের শিল্প কারখানার কর্ম পরিবেশ নিয়ে এখনও উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্র। বিনিয়োগ বাড়াতে হলে এটা সন্তোষজনক হওয়ার আহ্বান জানায় তারা।

বৈঠকে উপস্থিত কৃষি সচিব সায়েদুল ইসলাম জানান, এখন বাংলাদেশে অল্প পরিমাণ তুলা যায় যুক্তরাষ্ট্র থেকে। এর পরিমাণ আরও বাড়াতে চায় তারা। এছাড়া, বাংলাদেশ থেকে নানা ধরনের কৃষি পণ্য আমদানির আহ্বান জানানো হয়েছে।

তিনি বলেন, কৃষি খাতকে আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর করতে হলে আধুনিক বীজেরও প্রয়োজন। যুক্তরাষ্ট্র যাতে বাংলাদেশে তাদের নতুন নতুন প্রযুক্তির বীজ রপ্তানি করে সে ব্যাপারে বৈঠকে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে।

news24bd.tv/ইস্রাফিল