ইন্দোনেশিয়ায় পুলিশ স্টেশনে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ২
ইন্দোনেশিয়ায় পুলিশ স্টেশনে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ২

সংগৃহীত ছবি

ইন্দোনেশিয়ায় পুলিশ স্টেশনে বোমা বিস্ফোরণ, নিহত ২

অনলাইন ডেস্ক

ইন্দোনেশিয়ার জাভার বান্দুং শহরের একটি পুলিশ স্টেশনে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে এক পুলিশ সদস্যসহ অন্তত দুজন নিহত ও ৮ জন আহত হয়েছেন। খবর রয়টার্সের।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষের ধারণা, বিবাহ বহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধে আইন নিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে এক জঙ্গি বুধবার ‘আত্মঘাতী’ বোমা হামলাটি করেছে।

দেশটির পুলিশ বাহিনীর প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা আহমেদ রামাদান বলেছেন, ‘এই বিস্ফোরণে সন্দেহভাজন হামলাকারী ও একজন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। ঘটনাটি তদন্ত করার জন্য কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের (বিএনপিটি) সঙ্গে কাজ করছে কর্তৃপক্ষ। ’

বিএনপিটির মুখপাত্র ইবনু সুহেন্দ্র স্থানীয় এক সম্প্রচার মাধ্যমকে বলেন, ‘বোমা বিস্ফোরণের সঙ্গে জামাহ আনশারুত দৌলাহ (জেএডি) গ্রুপ জড়িত থাকতে পারে। এর আগেও জেএডি একই রকম হামলা করেছিল।

তারা জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের কার্যকলাপে অনুপ্রাণিত হয়ে এমনটি করতে পারে। ’ 

পশ্চিম জাভা পুলিশের প্রধান সুনানতান বলেন, ‘পুলিশ স্টেশনের বাইরে একটি নীল রঙয়ের মোটরসাইকেল পাওয়া গেছে। বোমা বিস্ফোরণের জন্য এটি ব্যবহার করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ওই মোটরসাইকেলে একটি চিরকুট পাওয়া গেছে, যেখানে মঙ্গলবারের পাস হওয়া আইনের বিরোধিতা করা হচ্ছে এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্মূলের কথা বলা হয়েছে। ’

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সদ্য পাস হওয়া আইনটির বিরোধিতা করছেন কিছু ধর্মীয় জঙ্গিগোষ্ঠী। তারাই এমনটা করতে পারে।

সুনানতান বলেন, ‘হামলাকারী ঘটনাস্থলে দুটি বোম এনেছিল। তবে এর মধ্যে একটিই বিস্ফোরিত হয়েছে। ’

বুধবার ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া ফুটেজে পুলিশ স্টেশনের ক্ষয়ক্ষতির চিত্র দেখা গেছে। এ ছাড়া মাটিতে পড়ে থাকা ভবনের কিছু ধ্বংসাবশেষ এবং ঘটনাস্থল থেকে ধোঁয়া উঠতে দেখা গেছে। বাসিন্দারা স্থানীয় গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, তারা একটি বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন।

সবশেষ কয়েক বছর ধরেই বিশ্বের বৃহৎ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটিতে হামলা চালিয়ে আসছে জঙ্গিরা। তাদের প্রধান লক্ষ্যবস্তু হচ্ছে চার্চ, পুলিশ স্টেশন ও বিদেশি পর্যটকদের আনাগোনা থাকে এমন স্থানগুলো।

news24bd.tv/মামুন