নটিংহ্যামকে উড়িয়ে দিয়েও খুশি নন টেন হ্যাগ
নটিংহ্যামকে উড়িয়ে দিয়েও খুশি নন টেন হ্যাগ

সংগৃহীত ছবি

নটিংহ্যামকে উড়িয়ে দিয়েও খুশি নন টেন হ্যাগ

অনলাইন ডেস্ক

ইংলিশ প্রমিয়ার লিগে নিজেদের ডেরা ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে নটিংহ্যামকে ফরেস্টকে পেয়ে বসেছিল এরিক টেন হ্যাগের শিষ্যরা। গোল উৎসবের সুযোগ তৈরি হয়েছিল ম্যাচের শুরু থেকেই। তবে বেশকিছু সহজ সুযোগ হাতছাড়া হওয়ায় ৩-০ গোলের জয় নিয়েই খুশি থাকতে হয়েছে রেড ডেভিলদের। তবে ফুটবলাররা খুশি হলেও খুশি নন টেন হ্যাগ।

ম্যাচ শেষে ফুটবলারদের আরো নির্মম হওয়ার পরামর্শ তার।

নিজেদের ডেরায় এদিন ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণে গিয়েছে ম্যানইউ। তবে প্রথম গোলের দেখা পেতে রেড ডেভিলদের সময় লেগেছে ১৯ মিনিট। ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনের বাড়ানো বলে বুলেট গতির দারুণ শটে সেটি জালে পাঠান র‌্যাশফোর্ড।

খানিক পরই ব্যবধান দ্বিগুণ করে নেন অ্যান্টনি মার্শাল। গোল করতে সহায়তা করেন র‌্যাশফোর্ড।

এরপর বিরতিতে যাওয়ার আগে এক গোল শোধ দিলেও শেষ পর্যন্ত ভিএআরের কারণে সেটি বাতিল হয়ে যায়। গোল বঞ্চিত থাকতে হয় নটিংহ্যামকে।

দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণে গিয়েও বেশকিছু সহজ সুযোগ হাতছাড়া করে ম্যানইউ। ফলে ব্যবধান বড় হচ্ছিল না। অবশেষ ম্যাচের ৮৭ মিনিটে ব্যবধান ৩-০ করেন ফ্রেড। ক্যাসিমিরোর বাড়ানো বল জালে পাঠাতে এবার আর কোনো ভুল করেনি টেন হ্যাগ শিষ্য। তবে ব্যবধান আরো না বাড়ায় ম্যাচ শেষে আক্ষেপ ঝরেছে তার কণ্ঠে।

তিনি বলেন, ‘ ড্রেসিংরুমে আমি বলেছিলাম, আমাদের আরও গোল করতে হবে। আমরা অনেক সুযোগ তৈরি করেছি এবং তৃতীয় গোলটি করতে আমাদের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত সময় লেগেছে। আমাদের এই খেলাটি আরো আগেই শেষ করতে হবে। হাফ টাইমের পর আমাদের খেলা শেষ করার দুটি ভাল সুযোগ ছিল। এসব গোল হলে জীবন আরও সহজ হবে। যদি আপনি তৃতীয় গোল পান তাহলে আপনি শক্তি সঞ্চয় করতে পারবেন এবং এটি সবার জন্য ভাল, তবে দলের অগ্রগতির জন্যও আমাদের আরও ক্লিনিকাল হতে হবে। ’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের অনেক খেলোয়াড় আছে যারা গোল করতে পারে। আপনি দেখতে পাচ্ছেন মার্শাল এবং র‌্যাশফোর্ড গোলস্কোরার; ব্রুনো ফার্নান্দেস গোল করেন। আমাদের অনেক খেলোয়াড় আছে যারা গোল করতে পারে, কিন্তু আমাদের আরো নির্মম হতে হবে। ’

উল্লেখ্য, এ জয়ে ১৫ ম্যাচে ২৯ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ৫ নম্বরে অবস্থান ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। অন্যদিকে ১৫ ম্যাচে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে অবস্থান আর্সেনালের।  

news24bd.tv/আমিরুল