তালেবান হত্যার খবর নিয়ে মিডিয়াকে দুষলেন প্রিন্স হ্যারি

প্রিন্স হ্যারি (ছবি: সংগৃহীত)

তালেবান হত্যার খবর নিয়ে মিডিয়াকে দুষলেন প্রিন্স হ্যারি

অনলাইন ডেস্ক

‘স্পেয়ার’ নামক আত্মজীবনীতে একের পর এক বোমা ফাটিয়েছেন প্রিন্স হ্যারি। বইটিতে ২৫ তালেবানকে হত্যার কথা জানিয়েছেন দ্য ডিউক অফ সাসেক্স। এ নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোতে বিভিন্ন সংবাদ প্রচারিত হয়। আত্মজীবনীর বরাতে তারা জানায়, হ্যারি তালেবান হত্যা করে গর্বিত হয়েছেন।

সংবাদ মাধ্যমগুলোর দাবি, আত্মজীবনীতে তিনি লিখেছেন, তালেবানদের হত্যার সময় তার মনে হয়েছিল, তিনি দাবার বোর্ড থেকে ‘গুটি’ সরিয়ে নিচ্ছেন।

এরপরেই শুরু হয় সমালোচনার। মানুষকে দাবার গুটির সঙ্গে তুলনা করা ভুল ছিল বলে মন্তব্য করেন সামরিক ব্যক্তিত্বরা। প্রতিক্রিয়া আসে তালেবান থেকেও।

এবার তালেবান হত্যা নিয়ে মিডিয়া ‘ভুল’ খবর প্রচার করেছে বলে দাবি করছেন হ্যারি। তার দাবি, গণমাধ্যমগুলো বইয়ের লেখার সঙ্গে আরও চটকদার শব্দ ব্যবহার করেছে। আর এতে তার পরিবারের নিরাপত্তা বিপন্ন হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের একটি সম্প্রচার মাধ্যমকে এক সাক্ষাৎকারে এসব দাবি করেছেন হ্যারি। তিনি  বলেছেন, ‘মিডিয়া যেসব শব্দ ব্যবহার করেছে তা বইয়ের বাইরে থেকে নেওয়া। এর ফলে আমার পরিবার নিরাপত্তার ঝুঁকিতে রয়েছে। ’ সাক্ষাৎকারে প্রবীণ আত্মহত্যা কমানোর চেষ্টার কথা জানান দ্য ডিউক অফ সাসেক্স।

আরও পড়ুন: আত্মজীবনীতে যেসব চাঞ্চল্যকর বার্তা প্রিন্স হ্যারির
 
যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় মঙ্গলবার হ্যারির আত্মজীবনী স্পেয়ার প্রকাশিত পেয়েছে। ইতোমধ্যে বইটির ৪ লাখ কপি বিক্রি হয়ে গেছে। যুক্তরাজ্যে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে দ্রুত বিক্রি হওয়া নন-ফিকশন বইয়ে পরিণত হয়েছে স্পেয়ার। তবে প্রকাশের আগেই বইটির অনেক লেখা ফাঁস হয়ে গিয়েছিল।

স্পেয়ার মুক্তির শেষ সময়ে বইটির প্রচারণার জন্য বিখ্যাত সাংবাদিক স্টিফান কলবার্টের দ্য লেট শোতে যান হ্যারি। সেখানে তিনি বলেন, ‘সর্বশেষ কয়েকটা দিন আমার কাছে চ্যালেঞ্জিং ও কষ্টদায়ক ছিল। এর মূলে ছিল ফাঁস হওয়া তথ্য নিয়ে আমি কিছু বলতে পারছিলাম না। ’

‘সন্দেহাতীতভাবে, মিডিয়া আফগানিস্তানে তালেবান হত্যা নিয়ে সবচেয়ে বিপজ্জনক মিথ্যা বলেছে।  তারা বলছে, আমি হত্যা নিয়ে গর্ব করেছি। তবে এটি মিথ্যে। যদি আমি কাউকে এই ধরনের বিষয়ে গর্ব করতে শুনি, তাহলে আমার মেজাজ বিগড়াবে,’ যোগ করে ডিউক অব সাসেক্স।

হ্যারি বলেন, ‘বইটি এখন মুক্তি পেয়েছে। মানুষ এখন সত্যিটা জানতে ও বুঝতে পারবে। আমার শব্দ বিপজ্জনক নয়। তবে শব্দের রূপ পরিবর্তন করে প্রকাশ করা আমার পরিবারের জন্য বিপজ্জনক। এটি তারা (মিডিয়া) বেছে নিতে কার্পণ্য করেনি। ’

সূত্র: বিবিসি

news24bd.tv/মামুন

পাঠকপ্রিয়