আজ থেকে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে চলবে পর্যটকবাহী জাহাজ
আজ থেকে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে চলবে পর্যটকবাহী জাহাজ

সংগৃহীত ছবি

আজ থেকে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে চলবে পর্যটকবাহী জাহাজ

অনলাইন ডেস্ক

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচলের অনুমতি দিয়েছে প্রশাসন। এর ফলে আজ শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) থেকে টেকনাফের দমদমিয়া জাহাজ ঘাট থেকে পর্যটকবাহী জাহাজ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসনের এক বৈঠকের পর চূড়ান্তভাবে জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেন জেলা প্রশাসক মো. শাহীন ইমরান।  

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবু সুফিয়ান জানান, বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শুক্রবার প্রথম দিন দুটি জাহাজ চলাচল শুরু করবে।

এই দুই জাহাজের চলাচলে পরিস্থিতি ইতিবাচক পেলে পরদিন থেকে চলাচলের জন্য অন্যান্য জাহাজগুলোকে অনমুতি দেওয়া হবে। বৈঠকে জাহাজ মালিক, টুয়াক নেতারাসহ পর্যটন সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।  

বৈঠক শেষে সেন্টমার্টিনগামী জাহাজ মালিক সমিতি স্কোয়াবের সভাপতি তোফায়েল আহমদ জানিয়েছেন, মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী টেকনাফ থেকে সেন্টমার্টিনগামী জাহাজ চলাচল সংক্রান্ত বৈঠক আহ্বান করে জেলা প্রশাসন। সন্ধ্যায় বৈঠকে প্রশাসন ও জাহাজ মালিকের এ সংক্রান্ত আলোচনা হয়।

আলোচনার পর জাহাজ চলাচলে আনুষ্ঠানিক অনুমতি দেওয়া হয়।  

তোফায়েল আহমেদ জানান, শুক্রবার প্রথম দিন এমবি পারিজাত ও রাজহংস নামের দুটি জাহাজ টেকনাফের দমদমিয়া ঘাট থেকে পর্যটক পরিবহন করে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে যাত্রা করবে। শনিবার থেকে কেয়ারি সিন্দাবাদসহ অনুমতি পাওয়া অন্যান্য জাহাজগুলো চলাচল করবে।

নাব্যতা সংকটের কথা বলে পর্যটন মৌসুমের শুরুতে গত অক্টোবরে টেকনাফের দমদমিয়া ঘাট থেকে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেয়নি প্রশাসন। কিন্তু কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম থেকে কর্ণফুলী এক্সপ্রেস, বে ওয়ান ও বার আউলিয়া নামের তিনটি জাহাজ চলাচল করে। এই তিন জাহাজে পর্যটক হয়রানির অভিযোগ করা হয়। এও অভিযোগ উঠে, এই তিন জাহাজের সংশ্লিষ্টরা ষড়যন্ত্র করে নাব্যতা সংকটের অজুহাত তুলে টেকনাফ থেকে জাহাজ চলাচল করতে দেয়নি।

news24bd.tv/ইস্রাফিল