দিনাজপুরে ধুমধামে বট-পাকুড় গাছের বিয়ে

দিনাজপুরে ধুমধামে বট-পাকুড় গাছের বিয়ে

দিনাজপুর প্রতিনিধি

ঢাকঢোল আর সানাইয়ের সুর, পাশাপাশি নাচগান ও উৎসবের কোন কমতি নেই এই বিয়েতে। শুধু তাই নয় প্রায় পাঁচশ পরিবারের দুই হাজারের বেশি মানুষের উপস্থিতিতে এ যেন জমকালো আয়োজন। তবে বিয়ে হচ্ছে বট-পাকুড় গাছের।

দিনাজপুর বিরল উপজেলার মঙ্গলপুর রুদ্রপুর গ্রামে আয়োজন করা হয় এই বট-পাকুড়ের বিয়ের।

বহু বছর ধরে এই জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে হিন্দু সম্প্রদায়ের এমন অনুষ্ঠান হয়ে আসছে। বট-পাকুড়ের অভিভাবকরা সনাতন ধর্মের সকল রীতি রেওয়াজ মেনেই দিচ্ছেন বিয়ে।

কয়েক গ্রামের পাঁচশতাধিক পরিবারের আগমনে বাদ্য-বাজনা, নাচ-গান, খাওয়া-দাওয়া ও উৎসব-আনন্দের মধ্য দিয়ে হয় বিয়ে। হিন্দু ধর্মের বিয়ের সব আনুষ্ঠানিকতাই ছিলো এখানে।

ছিল বট ও পাকুড়ের অভিভাবকও। পূর্বকাল থেকেই এই জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে মহাধুমধামে এমন বিয়ের আয়োজন হয়ে থাকে। হিন্দুশাস্ত্র অনুযায়ী বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করেন একজন পুরোহিত।

সোমবার দিনব্যাপী আয়োজন করা হয় এই বিয়ে অনুষ্ঠানের। সনাতন ধর্মপ্রাণ মানুষের মনোবাসনা পূরণে এই বিয়ে দিয়ে থাকেন। অনেকেই আবার দেখতে আসছেন এই বিয়ে। নতুন প্রজন্ম বট-পাকুড়ের বিয়ে দেখেও বেশ আনন্দ পাচ্ছে।

আয়োজকরা বলছেন এই গ্রামে বট-পাকুড়ের বিয়ে অনেকদিন পর অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিয়ে অনুষ্ঠানে বর-কনের অভিভাবক হয়ে বেশ খুশি তারা।

পুরোহিত রামকৃষ্ণ চক্রবর্তী বলেন, বট ও পাকুড় বৃক্ষ হিন্দুশাস্ত্রে দেবতা বৃক্ষ। এই বৃক্ষের বিয়ে দিলে মনোবাসনা পূর্ণ হওয়ার পাশাপাশি সব দুঃখ কষ্ট দুর হয়ে যায়।

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়