নিউজিল্যান্ডের এমন শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় কয়েক প্রজন্ম দেখেনি

সংগৃহীত ছবি

নিউজিল্যান্ডের এমন শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় কয়েক প্রজন্ম দেখেনি

অনলাইন ডেস্ক

নিউজিল্যান্ডে আঘাত হানা এমন শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় দেশটির কয়েক প্রজন্ম দেখেনি বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ক্রিস হিপকিন্স এ ঘূর্ণিঝড়ে অন্তত তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া এর আঘাতে দেশের ৫০ লাখ জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।  খবর- বিবিসির।  

বুধবার ঘূর্ণিঝড়টি দুর্বল হয়ে উত্তর দ্বীপ থেকে দূরে সরে গেছে।

কিন্তু বহু মানুষ এখনও তাদের ঘরবাড়িতে ফিরতে পারেনি।  বহু মানুষকে সাঁতরে নিরাপদ স্থানে যেতে বাধ্য হতে হয়েছে। আরো বেশকিছু মানুষকে বাড়ির ছাদ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।  

দেশটির প্রায় আড়াই লাখ মানুষ বিদ্যুৎহীন।

অনেক ঘরবাড়ির ওপর গাছ ভেঙে পড়ে রয়েছে। ভূমিধসে বিলীন হয়েছে বহু দালান, বন্ধ রয়েছে রাস্তাঘাটও।  

উপকূলীয় এলাকায় ক্ষয়ক্ষতি সবচেয়ে বেশি হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের পর বন্যার পানিতে একটি এলাকা সম্পূর্ণ ডুবে গেছে, ঐ এলাকা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।  

এ অঞ্চলের বেসামরিক প্রতিরক্ষা কর্তৃপক্ষ বলছে যে, তারা ক্ষয়ক্ষতির মাত্রার সাথে পেরে উঠছে না। অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাজ্য সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।  

এদিকে ডেইল মেইল এক প্রতিবেদনে জানায়, বুধবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ৩৮ মিনিটে ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ছিল রাজধানী ওয়েলিংটনের ৫৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত পারাপারুমুরতে। এটি মাটির প্রায় ৭৬ কিলোমিটার গভীরে উৎপত্তি হয়।

news24bd.tv/আলী   

পাঠকপ্রিয়