হাসানের প্রথম, প্রথম পেসারদেরও
হাসানের প্রথম, প্রথম পেসারদেরও

সংগৃহীত ছবি

হাসানের প্রথম, প্রথম পেসারদেরও

অনলাইন ডেস্ক

অ্যালান ডোনাল্ড বোলিং কোচ হয়ে আসার পর থেকে বাংলাদেশের পেসাররা যেন নিজেদের আরও মেলে ধরতে শুরু করেছেন। এক সময় বোলিংয়ে বাংলাদেশের শক্তির মূল জায়গা ছিল স্পিন। গেল কয়েক বছরে সেই ব্যাটন গেছে পেসারদের হাতে। ডোনাল্ডের সময়ে সেই পেসাররা এখন আরও ক্ষুরধার।

পেস ইউনিট হিসেবে প্রতিপক্ষকে নিয়মিতই নাস্তানাবুদ করছেন তাসকিনরা।

তবে বাংলাদেশের পেসাররা আজ যে রেকর্ড গড়ল, সেটা ইতিহাসের পাতায় থেকে যাবে আজীবন।

সিলেটে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে বাংলাদেশের বিপক্ষে আয়ারল্যান্ড ২৮ ওভার ১ বলে গুটিয়ে গেছে মাত্র ১০১ রানেই। আইরিশদের সবকটি উইকেটই নিয়েছেন স্বাগতিক পেসাররা।

ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে এবারই প্রথম প্রতিপক্ষের এক ইনিংসের সবকটি উইকেটই গেলো পেসারদের পকেটে। এর মধ্যে হাসান মাহমুদ ৫, তাসকিন আহমেদ ৩ এবং এবাদত নেন ২ উইকেট।

বাংলাদেশের ওয়ানডে ইতিহাসে এর আগে এক ইনিংসে প্রতিপক্ষের সর্বোচ্চ ৮ উইকেট তুলে নেওয়ার কীর্তি ছিল পেসারদের। সেটা অবশ্য এক-দুইবার নয়। ১২বার পেসাররা দেখিয়েছেন এমন কীর্তি। তবে হাসান নিজের চতুর্থ উইকেট শিকার করে নতুন রেকর্ড গড়েন। এরপর আইরিশদের শেষ উইকেট তুলে নিয়ে ফাইফার পূরণ করেন তিনি।

পেসারদের নতুন রেকর্ডের দিনে, রেকর্ড গড়েছেন হাসান মাহমুদও। লিস্ট-এ ক্যারিয়ারের সেরা বোলিং আজ করেছেন তিনি। ঘরোয়া ক্রিকেটেও এর আগে কখনো ফাইফার নিতে পারেননি তিনি। আজ গ্রাহাম হিউমকে এলবিডব্লু করে সেই কীর্তি গড়লেন তিনি। ৮ ওভার ১ বলে ১ মেইডেন দিয়ে ৩২ রান খরচায় ৫ উইকেট শিকার করেন হাসান।

হাসানের প্রথম ফাইফারের দিন অন্যরকম এক অভিজ্ঞতা হয়েছে সাকিব আল হাসানেরও। যেটা আবার তার জন্য ‘প্রথম’। বাংলাদেশ প্রতিপক্ষের কমপক্ষে একটি উইকেট নিয়েছে কিন্তু দলে থেকেও সাকিব বোলিং করেননি, এমন ঘটনা ঘটলো এই প্রথম।

news24bd.tv/SHS