জেএমআই'র মাস্ক কেলেঙ্কারির তথ্য সরিয়ে নিতে বিটিআরসিকে নির্দেশ

ফাইল ছবি

জেএমআই'র মাস্ক কেলেঙ্কারির তথ্য সরিয়ে নিতে বিটিআরসিকে নির্দেশ

অনলাইন ডেস্ক

দেশে চিকিৎসা সরঞ্জাম উৎপাদন খাতের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান জেএমআই গ্রুপের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরণের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে থাকা কেএন৯৫ কিংবা এন৯৫ মাস্ক তৈরিতে দুর্নীতি সংক্রান্ত সকল তথ্য আদালতের আদেশ প্রাপ্তির তিনদিনের মধ্যে সরিয়ে দিতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) নির্দেশনা দিয়েছেন উচ্চ আদালত।  

আজ মঙ্গলবার  (২৮ মার্চ ২৮) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ নির্দেশনা দেন। গত ১৩ মার্চ এ সংক্রান্ত নির্দেশনা চেয়ে রিট করেন জেএমআই গ্রুপের আইনজীবী ড. মো. শাহজাহান।

করোনার সময়ে ২০২০ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর কেএন৯৫ মাস্ক সরবরাহে কেলেঙ্কারির অভিযোগে জেএমআই গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং জেএমআই হসপিটাল রিক্যুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেডের চেয়ারম্যান মো. আবদুর রাজ্জাকসহ মোট সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

এ মামলার দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০২২ সালের ২৬ ডিসেম্বর জেএমআই গ্রুপ এবং মো. আবদুর রাজ্জাককে নির্দোষ উল্লেখ করে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে দুদক। এর পরিপ্রেক্ষিতে শুনানি শেষে গত ২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান, মো. আবদুর রাজ্জাককে অব্যাহতি প্রদান করে মামলাটি নিষ্পত্তি করেন।

জেএমআই গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুর রাজ্জাক বলেন, ‘মামলার পরবর্তীতে দুদক দেখেছেন যে, আমাদের কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। এখন তারা খুশি হয়ে এই মামলা থেকে আমাদের অব্যহতি দিয়েছেন।

কোর্টও সেটাকে মেনে নিয়েছেন। এখন জেএমআই গ্রুপ কমপ্লিটলি দায় থেকে মুক্ত হয়েছি। ’

জেএমআই গ্রুপের আইনজীবি ড. মো. শাহজাহান বলেন, ‘এই গ্রুপের কোন অন্যায় ছিল না বা কোন অপরাধও ছিল না। সেই সময় কিছু মানুষ ভুল বুঝে বা অতি উৎসাহী হয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় নানা বাজে তথ্য প্রচার করেছে। ’

 

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়