এসি কেনার আগে যে বিষয়গুলো জানা জরুরি
এসি কেনার আগে যে বিষয়গুলো জানা জরুরি

এসি কেনার আগে যে বিষয়গুলো জানা জরুরি

অনলাইন ডেস্ক

সম্পূর্ণ ঘর ঠাণ্ডা করতে এসির (Air conditioner) বিকল্প নেই।  চলমান তাপদাহ বা প্রচণ্ড গরমের সময় এসির চাহিদা বেশ বেড়ে গেছে। অনেকেই এখন এসি কেনার জন্য ছুটছেন, খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। অনেকে নতুন এসি কিনতে না পেরে স্বল্প দামে পুরাতন এসি কেনার কথাও ভাবছেন।

তবে সবাই যে বিষয়টি নিয়ে দ্বিধায় পড়েন তা হলো, আসলে কি ধরণের এসি কিনবেন? কোন ব্র্যান্ডের এসি ভালো? ইনভার্টার না নন ইনভার্টার এসি? কত টনের এসি? কত স্টার (star) থাকা ভালো? উইন্ডো এসি না স্প্লিট এসি-ইত্যাদি ইত্যাদি নানা প্রশ্নে।  

আপনি যদি এই প্রশ্নগুলোর সঠিক উত্তর না জানেন, তাহলে বিক্রেতা নিজের লাভের হিসেবে এসি বিক্রি করবে। ফলে ভবিষ্যতে সমস্যা হতে পারে।  যেমন, অধিক কারেন্টের বিল আসা বা ঘর ভালো করে ঠাণ্ডা না হওয়া ইত্যাদি সমস্যা।

তাই চলুন, একটি সেরা ও ভালো এসি কেনার আগে জেনে নিই-কোন কোন বিষয়গুলো জেনে রাখাটা জরুরি।

কোন ব্র্যান্ডের এসি ভালো?
মনে রাখবেন, ব্র্যান্ডের এসিগুলো অধিক বিজ্ঞাপন দিয়ে মার্কেটিং করছে, ফলে সেগুলোর দাম এমনিতেই বেশি হবে। তবে যে কোম্পানির এসি কিনবেন, সেই কোম্পানির সার্ভিস সেন্টার আপনার শহরে আছে কি-না সেটা ভালো করে জানবেন। কেননা সেই কোম্পানির সার্ভিস সেন্টার না থাকলে ভবিষ্যতে এসি নষ্ট হলে ভোগান্তিতে পড়তে হতে পারে। এছাড়া কোম্পানির পণ্যের গ্যারান্টি, ওয়ারেন্টি, আফটার সার্ভিসের বিষয়গুলোও দেখতে হবে।

ধরণ
সাধারণত উইন্ডো এসি ও স্প্লিট এসি-এই দুই ধরণের এসি হয়ে থাকে। স্প্লিট এসির দাম উইন্ডো এসির তুলনায় অল্প বেশি।

উইন্ডো এসি : উইন্ডো এসি হলো সেই এসি যা জানালার (window) মধ্যে লাগানোর জন্য তৈরি করা হয়েছে। ঘরে জানালা থাকলে এই ধরণের এসি লাগাতে পারবেন। তবে এসি চালানোর সময় জানালা বন্ধ করতে হবে। এগুলো স্প্লিটের তুলনায় অল্প সস্তা থাকে এবং এগুলোর দামও কম। এসব এসির evaporator coil রুমের ভেতরে থাকবে যা রুমটিকে ঠান্ডা করে রাখবে। আবার এসির পেছনের ভাগটিতে থাকা (যে অংশ রুমের বাইরে থাকবে) condenser coil রুমের ভেতরের গরম হাওয়া বাইরে পাঠানোর কাজ করে।

স্প্লিট এসি : স্প্লিট এসিকে split unit air conditioner-ও বলা হয়। এই ধরণের এসি ঘরে লাগানোর জন্য রুমে বা ঘরে জানালা থাকাটা জরুরি নয়।  কেননা, এই এসিগুলো ঘরের যেকোনো জায়গায় নিজের সুবিধেমতো লাগাতে পারবেন। স্প্লিট এসির দাম কিছুটা বেশি।  স্প্লিট এসিতে Water বা air-cooled condensing unit আলাদা থাকে। বাজেট ভালো থাকলে স্প্লিট এসি কিনতে পারেন।  এগুলোর ফিচারও বেশি। তবে রুম ঠান্ডা করার ক্ষমতা দুটোর প্রায় একই। মনে রাখতে হবে, যত বেশি টনের এসি লাগাবেন, তত বেশি ঠান্ডা করার ক্ষমতা থাকবে সেই এসির।

ইনভার্টার এসি কি?
ইনভার্টার এসিগুলো বিদ্যুত বিল কমায়। এসব এসিতে compressor motor এর স্পিড নিয়ন্ত্রণের জন্য একটি আলাদা ইনভার্টার থাকে। সাধারণত নন ইনভার্টারগুলোর ক্ষেত্রে যখন রুম ঠান্ডা হয় তখন এর compressor motor নিজে নিজে বন্ধ হয় এবং রুমের তাপমান (temparature) যখন আবার বেড়ে যায়, তখন মোটরটি পুনরায় স্টার্ট হয়ে রুমকে ঠান্ডা করে। এভাবে মোটরটিকে বারবার স্টার্ট এবং অফ করার প্রক্রিয়ার ফলে প্রচুর বিদ্যুতের প্রয়োজন হয়, ফলে বিলও বেশি হয়।

ইনভার্টার এসির ক্ষেত্রে যখন রুম ঠান্ডা হয়ে যাবে তখন compressor motor একেবারে বন্ধ হবে না। এর বিপরীতে মোটরটি ধীরে ধীরে চলতে থাকবে এবং রুমের ঠান্ডা ভাবটা তাপমাত্রা হিসেবে নিয়ন্ত্রণ করতে থাকবে। ফলে রুমের ঠান্ডা ভাব কম বেশি হওয়ার ঝামেলা থাকছে এবং সব সময় একই পরিমাণের ঠান্ডা ভাব মিলবে।

তাছাড়া, যেহেতু compressor motor বার বার বন্ধ বা চালু করা হচ্ছে না, তাই ইনভার্টারের ক্ষেত্রে বিদ্যুত বিল কম আসার সম্ভাবনা থাকে। তাই পরামর্শ, কেউ যদি এসি কেনার কথা ভাবেন তাহলে ইনভার্টার এসিই কিনুন।

কত টনের এসি কিনবেন?
মনে রাখবেন, যত বেশি টনের (ton) এসি হবে সেটি ততটাই বেশি বড় আকারের রুম বা ঘরকে ঠান্ডা করতে পারবে। বাজারে, 0.5 ton এর এসিও মিলতে পারে। তবে এই এসিগুলো অনেক ছোট আকারের রুম ঠান্ডা করে।  আবার যদি একটি ১২ ফুট বাই ১২ ফুট রুম ঠান্ডা করার জন্য এসির দরকার হয়, তাহলে কমপক্ষে ১ টনের এসি কিনতে হবে। এভাবেই ছোট রুম বা ঘরের জন্য কম টনের এসি এবং অধিক বড় আকারের রুমের জন্য অধিক টন থাকা এসি কিনতে হবে।

কিছু উদাহরণ দিলে বোঝা যাবে
যদি রুমটি 100 sq ft এর হয় তাহলে 0.75/0.8 বা 1 Ton AC কিনলেই হবে। 100-200 sq ft এর ভেতর হলেও এক টনেই চলবে। তবে রুমটি যদি 201-300 sq ft এর ভেতর হয় তাহলে 1.25 বা 1.5 Ton AC লাগবে। রুমটি 301-500 sq ft এর ভেতরে হলে দেড় টনের এসি লাগবে।  

তবে প্রয়োজনের থেকে অধিক টনের এসি কিনলে রুম ঠান্ডা হবে দ্রুত, তবে বিদ্যুত বিল কিছু বেশি আসবে। প্রয়োজনের থেকে কম টনের এসি কিনলে এসিটি রুম ঠান্ডা করতে অনেক বেশি সময় নিতে পারে। তাছাড়া বেশি বড় রুমে কম টনের এসি ব্যবহার করলে রুম একেবারেই ঠান্ডা না হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই কত টনের এসি কিনবেন ভালো করে বুঝে এসি কিনতে যাবেন।

কত স্টার (STAR) থাকা ভালো?
যখন প্রশ্ন আসছে, কত স্টার থাকা এসি কিনবো? তখন এর উত্তর অনেক সোজা। আপনি কমেও ৩ স্টার (3 star ac) থাকা এসি কিনুন। কারণ, বলা হয় যে- যত বেশি স্টার থাকা এসি কিনবেন, ততটাই কম বিল আসবে। তবে এখানেও একটি সমস্যা রয়েছে। অধিক বেশি স্টার থাকা এসিগুলোর দামও বেশি।

তাই যদি বাজেট বেশি থাকে তাহলে ৪ স্টার বা ৫ স্টার থাকা এসি কেনা ভালো। এমনিতে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে 3 STAR AC গুলো অধিক পরিমানে কেনা হয়। কারণ ৩ স্টার থাকা এসিগুলো ৫ স্টার এসির তুলনায় অনেক কম দামেই পাওয়া যায় এবং ১ বা ২ স্টার এসির তুলনায় কম বিদ্যুৎ ব্যবহার করে।

এসিতে COPPER WIRE থাকা ভালো, না ALUMINIUM WIRE?
Aluminium এসিগুলোর তুলনায় copper এসিগুলোর দাম কিছু বেশি। বলা হয় যে, কপার তাড়াতাড়ি হিট তৈরি করতে পারে এবং সেটার আদান প্রদান ও তাড়াতাড়ি করে ফেলে। তাই অ্যালুমিনিয়ামের তুলনায় প্রচুর কপার কয়েল থাকা এসিগুলো প্রচুর energy efficient এবং কার্যক্ষমতা বেশ ভালো। তাছাড়া কপার কয়েলের এসি ব্যবহার করলে অ্যালুমিনিয়ামের কয়েলের এসির তুলনায় কম বিদ্যুত বিল আসে।  তাই পরামর্শ হলো, কপার কয়েল থাকা এসিগুলোই কিনুন।

এই রকম আরও টপিক