ভারতে ট্রেন দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বাংলাদেশি যা জানালেন

ভারতে ট্রেন দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বাংলাদেশি যা জানালেন

অনলাইন ডেস্ক

ভারতের ওডিশায় ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বাংলাদেশি এক দম্পতি শেয়ার করলেন ভয়াবহ সেই চিত্রের কথা। ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার সামন্তা এলাকার মো. আক্তারুজ্জামান ও তাঁর স্ত্রী দুর্ঘটনাকবলিত করমন্ডল এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রী ছিলেন। মো. আক্তারুজ্জামান জানালেন, ‘শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বিকট শব্দ পেয়ে বুঝলাম সামনে কিছু একটা ঘটেছে। চেয়ে দেখার চেষ্টা করলাম, কিন্তু হলো না।

শুধু কানে ভেসে এল চিৎকার-চেঁচামেচি। পেছনের কামরা থেকে নেমে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলাম। সেটাও সম্ভব হলো না। আমাদের সরিয়ে নেওয়া হলো, ঘটনাস্থলে যেতে দেওয়া হলো না।
সরানোর সময় চোখে পড়ল নিহত-আহত ব্যক্তিদের নিয়ে ছোটাছুটি। বুঝলাম ট্রেনটি দুর্ঘটনায় পড়েছে। হতাহত ব্যক্তিদের দেখে প্রচণ্ড ভয় পেলাম, বুঝে নিলাম বড় দুর্ঘটনা থেকে আমরা রক্ষা পেয়েছি। ’

পেশায় কলেজ শিক্ষক আক্তারুজ্জামান আরও জানান, চিকিৎসার জন্য তাঁরা করমন্ডল এক্সপ্রেস ট্রেনে চেপে তামিলনাড়ু রাজ্যের ভেলরে যাচ্ছিলেন। দুর্ঘটনার পর আজ শনিবার সকাল ৭টায় তাঁদের অপর একটি ট্রেনে তুলে দেওয়া হয়েছে। তাঁরা ভেলরের পথে রয়েছেন। এই ট্রেনে আরও অনেক বাংলাদেশি যাত্রী ছিলেন বলে জানিয়েছেন আক্তারুজ্জামান দম্পতি।

আক্তারুজ্জামান জানান, স্ত্রী নুরজাহানের চোখের সমস্যা। বেশ কয়েক দফা ভারতে চিকিৎসা করিয়েছেন। এবার সিদ্ধান্ত নেন ভেলর গিয়ে চিকিৎসা করাবেন। সে জন্য ১ জুন ভারত যান। এরপর ট্রেনের টিকিট নিয়ে গতকাল শুক্রবার দুপুরে হাওড়ার শালিমার স্টেশনে হাজির হন। বেলা ৩টা ২০ মিনিটে তাদের নির্ধারিত করমন্ডল ট্রেনটি স্টেশন থেকে ছেড়ে যায়। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তারা যখন ওডিশার বালাসোর জেলার বাহাঙ্গাবাজার এলাকায় পৌঁছান তখন ট্রেনটি দুর্ঘটনায় পড়ে। তারা বিকট শব্দ ও ঝাঁকুনি অনুভব করেন। ট্রেনের মধ্যে থাকা হাজার হাজার মানুষ কান্নাকাটি শুরু করেন। তারাঁও বুঝে নেন ট্রেনটি দুর্ঘটনায় পড়েছে।

আক্তারুজ্জামান জানান, তাঁরা ছিলেন ২-এ এসি বগিতে। তাঁদের সামনে ছিল আরও কয়েকটি বগি। তাঁরা দ্রুত ট্রেন থেকে নেমে সামনে কী ঘটেছে, দেখার চেষ্টা করেন। কিন্তু মুহূর্তের মধ্যে সেখানে উপস্থিত স্থানীয় মানুষগুলো তাঁদের যেতে দিল না। তাঁরা উদ্ধারকাজ শুরু করে দিলেন। আর যাঁরা ভালো আছেন, তাঁদের সরিয়ে দেওয়া হলো। এরপর বাসযোগে কিছুটা দূরে এক এলাকায় গিয়ে অবস্থান নেন। সেখান থেকে আজ সকালে ভুবনেশ্বর স্টেশন থেকে আরেকটি ট্রেনে তুলে দেওয়া হয়েছে।

news24bd.tvতৌহিদ

পাঠকপ্রিয়