সুগন্ধা নদীতে জাহাজে বিস্ফোরণ: চার লাখ লিটার তেল খালাস

সুগন্ধা নদীতে জাহাজে বিস্ফোরণ: চার লাখ লিটার তেল খালাস

নিখোঁজ চারজনকে উদ্ধারে অভিযান শুরু

এস এম রেজাউল করিম, ঝালকাঠি

ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত তেলবাহী জাহাজ সাগর নন্দিনী ২ থেকে ১১ লাখ লিটার তেলের মধ্যে চার লাখ লিটার পেট্রোল ও  ডিজেল সরিয়ে ডিপোতে নেওয়া হয়েছে। আজ রোববার সকাল ১০টা থেকে নিখোঁজদের সন্ধানে উদ্ধার কাজ শুরু হয়েছে। উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস, কোস্টর্গাড ও বিআইডব্লিউটিএ এর উদ্ধার কর্মীরা।

এদিকে দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. রুহুল আমিনকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন।

ইতোমধ্যে তাঁরা কাজ শুরু করেছেন বলে জানিয়েছেন।

অন্যদিকে নিখোঁজদের স্বজনরা তাদের প্রিয়জনের খোঁজ পেতে সুগন্ধা নদীতে ট্রলার নিয়ে একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে খুঁজে বেড়াচ্ছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সাগর নন্দিনি-২ নামে জাহাজটি ঝালকাঠি শহরের সুগন্ধা নদীর তীরে তেলের ডিপোতে তেল খালাস করা জন্য ১১ লাখ লিটার পেট্রোল ও ডিজেল ভর্তি করে আসে।

জাহাজটি নোঙর করা অবস্থায় নদীর অপর প্রান্তে শনিবার দুপুর দুইটার দিকে হঠাৎ বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়ে আগুন ধরে যায়।

আগুনে দগ্ধ হয় জাহাজের শ্রমিক শাকিল (৩৫), ফরিদুল আলম (৫০), ইকবাল হোসেন (২৭) ও মাইনুল ইসলাম হৃদয় (২৯)। তাঁরা বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বাংলাদেশ কোস্টগাড অপারেশন অফিসার লে. মো. শাফায়েত বলেন, বিস্ফোরিত জাহাজের নিখোঁজদের সন্ধানে বরিশাল থেকে ঝালকাঠি পর্যন্ত বিস্তৃত এলাকায় উদ্ধার অভিযান চললেও এখনও পর্যন্ত কারও সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে কার্গোটিতে বহনকরা বিপুল পরিমাণ জ্বালানি রক্ষা করায় নদীর পানিসহ পরিবেশ বিপর্যয় রোধ করা সম্ভব হয়েছে।

news24bd.tvতৌহিদ

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়