২৭ জুন ,বৃহস্পতিবার, ২০১৯

শিরোনাম

> বাংলাদেশ

>> জাতীয়

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

৮ অক্টোবর ,সোমবার, ২০১৮ ২০:৫৭:১৩

ডিজিটাল নিরাপত্তা বিলে রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর


ডিজিটাল নিরাপত্তা বিলে রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর

ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল।


জাতীয় সংসদে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা বিলে স্বাক্ষর করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। সোমবার বহু আলোচিত ওই বিলে স্বাক্ষর করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন।

রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের পর কোনো বিল আইন হিসেবে গণ্য হয়। এখন এটি গেজেট আকারে প্রকাশ করবে সরকার।

এর আগে গত বুধবার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনসংক্রান্ত নথি বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির দপ্তরে পাঠানো হয়।

এর আগের দিন মঙ্গলবার এ বিলসংক্রান্ত নথিতে স্বাক্ষর করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

বিভিন্ন পক্ষের আপত্তি, উদ্বেগ ও মতামত উপেক্ষা করে গত ২৬ সেপ্টেম্বর সংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাস করা হয়।

আইনটি পাস হওয়ার প্রতিবাদে সম্পাদকেরা মানববন্ধন করার ঘোষণা দেন। এরপর তাঁদের সঙ্গে বৈঠকও করেন আইন, তথ্য এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী। সেখানে গণমাধ্যমের আপত্তিতে থাকা ধারাগুলো আলাপ–আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের আশ্বাস দেওয়া হয়।

৩ অক্টোবর গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, অপরাধী মন না হলে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে উদ্বেগের কারণ নেই।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বলা হয়েছে, আইনটি কার্যকর হলে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা বাতিল হবে। তবে এই আইনটিতেই বিতর্কিত ৫৭ ধারার বিষয়গুলো চারটি ধারায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া পুলিশকে পরোয়ানা ও কারও অনুমোদন ছাড়াই তল্লাশি ও গ্রেপ্তারের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। এই আইনে ঢোকানো হয়েছে ঔপনিবেশিক আমলের সমালোচিত আইন ‘অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট’। আইনের ১৪টি ধারার অপরাধ হবে অজামিনযোগ্য। বিশ্বের যেকোনো জায়গায় বসে বাংলাদেশের কোনো নাগরিক এই আইন লঙ্ঘন হয়, এমন অপরাধ করলে তাঁর বিরুদ্ধে এই আইনে বিচার করা যাবে।

এই আইনের অধীনে সংগঠিত অপরাধ বিচার হবে ট্রাইব্যুনালে। অভিযোগ গঠনের ১৮০ কার্যদিবসের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তি করতে হবে। এ সময়ে সম্ভব না হলে সর্বোচ্চ ৯০ কার্যদিবস সময় বাড়ানো যাবে।

আইনে বলা হয়েছে, তথ্য অধিকারসংক্রান্ত বিষয়ের ক্ষেত্রে তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯-এর বিধানাবলি কার্যকর থাকবে।

আইনে ডিজিটাল মাধ্যমে আক্রমণাত্মক, মিথ্যা বা ভীতি প্রদর্শক তথ্য-উপাত্ত প্রকাশ; মানহানিকর তথ্য প্রকাশ; ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত; আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানো, অনুমতি ছাড়া ব্যক্তি তথ্য সংগ্রহ ও ব্যবহার ইত্যাদি বিষয়ে অপরাধে জেল জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। বিরোধী দলের কয়েকজন সদস্যও আইনের বেশ কিছু ধারা নিয়ে আপত্তি তোলেন। তবে সেসব আপত্তি টেকেনি।

ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বিলটি পাসের জন্য সংসদে তোলেন। বিরোধী দল জাতীয় পার্টির ১১ জন ও স্বতন্ত্র একজন সাংসদ বিলটি নিয়ে জনমত যাচাই ও আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার প্রস্তাব দেন। তবে এর মধ্যে তিনজন সাংসদ উপস্থিত ছিলেন না। আর জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদ তাঁর প্রস্তাব প্রত্যাহার করে নেন।

বিতর্কিত ৫৭ ধারার বিষয়গুলো এ আইনেও চারটি ধারায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রাখা হয়েছে। আইনের ১৪টি ধারার অপরাধ হবে অজামিনযোগ্য। বিশ্বের যেকোনো জায়গা থেকে কোনো বাংলাদেশি এই আইন লঙ্ঘন করলে তাঁর বিচার করা যাবে।

গত ২৯ জানুয়ারি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের খসড়া অনুমোদন করেছিল মন্ত্রিসভা। তখন থেকে এই আইনের বেশ কয়েকটি ধারা নিয়ে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন পক্ষ আপত্তি জানিয়ে আসছে। সম্পাদক পরিষদ এই আইনের ৮টি (৮, ২১, ২৫, ২৮, ২৯, ৩১, ৩২ ও ৪৩) ধারা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে আপত্তি জানিয়েছিল। সম্পাদক পরিষদ মনে করে, এসব ধারা বাক্‌স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতার পথে বাধা হতে পারে। এ ছাড়া ১০টি পশ্চিমা দেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের কূটনীতিকেরা এই আইনের ৪টি ধারা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ৯টি ধারা পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছিল।

আপত্তির মুখে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, সংসদীয় কমিটির মাধ্যমে আইনে প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনা হবে। এই প্রেক্ষাপটে গত ৯ এপ্রিল বিলটি পরীক্ষার জন্য সংসদীয় কমিটিতে পাঠায় সংসদ। সাংবাদিকদের তিনটি সংগঠন সম্পাদক পরিষদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) এবং অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্সের প্রতিনিধিদের সঙ্গেও বিলটি নিয়ে দুই দফা বৈঠক করে সংসদীয় কমিটি। প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনার আশ্বাসও দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আইনে বড় কোনো পরিবর্তন আনা হয়নি। যে ধারাগুলো নিয়ে বিভিন্ন পক্ষের আপত্তি ছিল, তার কয়েকটিতে কিছু জায়গায় ব্যাখ্যা স্পষ্ট করা, সাজার মেয়াদ কমানো এবং শব্দ ও ভাষাগত কিছু সংশোধনী আনা হয়েছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)


পাঁচ দিনের সফরে চীন যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
পাকিস্তানের কাছে প্রথম হারের স্বাদ পেল নিউজিল্যান্ড
স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা!
ছুরিকাঘাতে ছাত্রলীগ নেতা নিহত
ইসরাইলের পরমাণু অস্ত্র নিয়ে কেন ভাবেন না, ট্রাম্পকে রুহানি
‘ড. কামাল অবিশ্বস্ত হলে নাসিম প্রথম শ্রেণির গাদ্দার’
নিউজিল্যান্ডের ২৩৭ রানের লক্ষে ব্যাট করছে পাকিস্তান
শিবগঞ্জে বজ্রপাতে কৃষক নিহত
খুলনায় ব্যাটারি চালিত রিক্সা আরো তিন মাস
'দেশের নিরাপত্তার জন্য হুমকি হতে পারে রোহিঙ্গারা'
আবাসিক হোটেলে দুই বস্তা কনডম!
সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে বাধা দেওয়ায় ছাত্রের রগ কর্তন
পুলিশ সদস্য নিয়োগে ঘুষ, প্রার্থী ও দালাল গ্রেপ্তার
নিখোঁজের পর খালে মিলল ছাত্রলীগ নেতার লাশ
চলেই গেলেন দগ্ধ কলেজছাত্রী ফুলন
সাকিব ভিনগ্রহের ক্রিকেটার: শোয়েব আখতার
নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক খাদে, নিহত ২
ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশার দুইজন নিহত
রূপগঞ্জে ইউপি সদস্য ও আ.লীগ নেত্রীকে কুপিয়ে হত্যা
যুক্তরাষ্ট্র-ইরান যুদ্ধ হয়তো লেগেই যাবে: রাশিয়া
পাঁচ দিনের সফরে চীন যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
পাকিস্তানের কাছে প্রথম হারের স্বাদ পেল নিউজিল্যান্ড
স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা!
ছুরিকাঘাতে ছাত্রলীগ নেতা নিহত
ইসরাইলের পরমাণু অস্ত্র নিয়ে কেন ভাবেন না, ট্রাম্পকে রুহানি
‘ড. কামাল অবিশ্বস্ত হলে নাসিম প্রথম শ্রেণির গাদ্দার’
নিউজিল্যান্ডের ২৩৭ রানের লক্ষে ব্যাট করছে পাকিস্তান
শিবগঞ্জে বজ্রপাতে কৃষক নিহত
খুলনায় ব্যাটারি চালিত রিক্সা আরো তিন মাস
অপহরণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
ছাত্রলীগ নেতা সোহেল হত্যার ২ আসামি রিমান্ডে
পুলিশে নিয়োগে ১১ লাখ টাকা লেনদেনের সময় আটক ২
'দেশের নিরাপত্তার জন্য হুমকি হতে পারে রোহিঙ্গারা'
সিএমএইচের ক্রিটিক্যাল ইউনিটে ভর্তি এরশাদ
পুলিশের নিয়োগ পরীক্ষার সময় ২ প্রতারক আটক
আবাসিক হোটেলে দুই বস্তা কনডম!
সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে বাধা দেওয়ায় ছাত্রের রগ কর্তন
পুলিশ সদস্য নিয়োগে ঘুষ, প্রার্থী ও দালাল গ্রেপ্তার
নিখোঁজের পর খালে মিলল ছাত্রলীগ নেতার লাশ
চলেই গেলেন দগ্ধ কলেজছাত্রী ফুলন
স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা!
চলেই গেলেন দগ্ধ কলেজছাত্রী ফুলন
আবাসিক হোটেলে দুই বস্তা কনডম!
বিএনপির কার্যালয়ের পাশে পাঁচটি ককটেল বিস্ফোরণ
রোগী দেখে ফেরার পথে লাশ হলেন চিকিৎসক
লিটনের আউট নিয়ে বিতর্কে ঝড়
মার্কিন গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করল ইরান
ঘুমন্ত ছোট ভাইকে হত্যা করল বড় ভাই
ফরিদপুরে এক বছর ধরে কাজের মেয়েকে ধর্ষণ
কাল ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে 
পরিবারকে সময় দিতে ছুটিতে সাকিব 
যুক্তরাষ্ট্র-ইরান যুদ্ধ হয়তো লেগেই যাবে: রাশিয়া
বাংলাদেশকে ৩৮২ রানের টার্গেট দিল অস্ট্রেলিয়া
শতরানের জুটি গড়ে ফিরলেন মাহমুদউল্লাহ
ইরানকে এস-৪০০ নিতে বলল রাশিয়া
'দেশের নিরাপত্তার জন্য হুমকি হতে পারে রোহিঙ্গারা'
ক্র্যাচে ভর দিয়ে হাঁটতে হচ্ছে মাহমুদুল্লাহকে
কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় ৪ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন
ভারতকে মাটিতে নামাল আফগানরা 
ডিআইজি মিজানের সম্পদ ক্রোক ও হিসাব জব্দ

সব খবর