রূপপুরের মালামাল নিয়ে মোংলায় রাশিয়ার জাহাজ

রূপপুরের মালামাল নিয়ে মোংলায় রাশিয়ার জাহাজ

শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য ৪৮২ দশমিক ৮৮২ মেট্রিক টন ওজনের বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রিক্যাল ও মেশিনারি পণ্য নিয়ে রাশিয়া থেকে সরাসরি বাগেরহাটের মোংলা বন্দরে এসে ভিড়েছে বিদেশি জাহাজ এমভি মার্গারেট।  

মঙ্গলবার (১১ জুলাই) বিকেলে রাশিয়ান পতাকাবাহী জাহাজটি মোংলা বন্দরের ৮ নম্বর জেটিতে নোঙ্গর করে। সন্ধ্যা থেকে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের এসব পণ্য খালাস কাজ শুরু হয়েছে।

বিদেশি জাহাজটির স্থানীয় শিপিং এজেন্ট কনভেয়ার শিপিং লাইন্সের ম্যানেজার (অপারেশন শিপিং) সাধন কুমার চক্রবর্তী জানান, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ৪৮২ দশমিক ৮৮২ মেট্রিক টন ওজনের বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রিক্যাল ও মেশিনানি পণ্য নিয়ে গত ৬ জুন মোংলা বন্দরের উদ্দেশে রাশিয়ার নভোরোসিয়েস্ক বন্দর ছেড়ে আসে জাহাজটি।

 

মঙ্গলবার বিকেলে রাশিয়ান পতাকাবাহী জাহাজটি মোংলা বন্দরের ৮ নম্বর জেটিতে নোঙ্গর করে। সন্ধ্যা থেকে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের এসব পণ্য খালাস কাজ শুরু হয়েছে। জাহাজটি থেকে ১৮৩ প্যাকেজের ইলেকট্রিক্যাল ও মেশিনানি পণ্য খালাসের কাজ শেষ করতে ৪৮ ঘণ্টা লাগবে। বৃহস্পতিবার মোংলা বন্দর ত্যাগ করবে জাহাজটি।

পণ্য খালাস করে এসব পণ্য নেওয়া হবে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে।

এর আগে, ২ জুলাই রাশিয়া থেকে সরাসরি এই বিদ্যুৎকেন্দ্রের মালামাল নিয়ে মোংলায় এসেছিল এমভি লিবার্টি হারভেস্ট। তারও আগে ২৯ মে এমভি আনকা স্কাই, ৬ মে এমভি আনকা সান ও ২৫ এপ্রিল এমভি ইয়ামাল অরলান সরাসরি রাশিয়া থেকে ওই বিদ্যুৎকেন্দ্রের মালামাল নিয়ে মোংলা বন্দরে আসে।

উল্লেখ্য, রাশিয়ার সাত কোম্পানির ৬৯টি জাহাজে নিষেধাজ্ঞা জারি করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকা জাহাজগুলো রাশিয়া থেকে রূপপুরের পণ্য নিয়ে সরাসরি মোংলা বন্দরে আসছে। আর নিষেধাজ্ঞার তালিকায় থাকা জাহাজগুলো রাশিয়া থেকে পণ্য নিয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হলদিয়া বন্দরে খালাস করে। এরপর ট্রানজিট পণ্য হিসেবে ভারত থেকে তা দেশে আনা হয়।

news24bd.tvতৌহিদ

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়