৩১ হাজার টন কয়লা নিয়ে মোংলায় বিদেশি জাহাজ

৩১ হাজার টন কয়লা নিয়ে মোংলায় বিদেশি জাহাজ

শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট

বাগেরহাটের রামপাল বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য আরও ৩১ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে মোংলা বন্দরে ভিড়েছে লাইব্রেরিয়ান পতাকাবাহী জাহাজ এমভি পানাগিয়া কানালা। ইন্দোনেশিয়া থেকে আসা কয়লাবাহী এই জাহাজটি বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বন্দরের পশুর চ্যানেলের হাড়বাড়ীয়ার ১১ নম্বর অ্যাংকোরেজে নোঙ্গর করে।

পর দুপুর থেকে লাইটার জাহাজে কয়লা খালাস ও পরিবহণের কাজ শুরু হয়েছে।

এর আগে ২৫ জুন ইন্দোনেশিয়া থেকে এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রর জন্য ৩২ হাজার ১২১ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে মোংলা বন্দরে আসে বাংলাদেশের পতাকাবাহী জাহাজ এমভি বসুন্ধরা ইমপ্রেস।

কয়লাবাহী জাহাজের শিপিং এজেন্ট দেশের শীর্ষ শিল্প পরিবার বসুন্ধরা গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান টগি শিপিং এন্ড লজিস্টিক লিমিটেডের সহকারী ব্যবস্থাপক খন্দকার রিয়াজুল হক জানান, রামপাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ৩১ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে গত ২৬ জুন ইন্দোনেশিয়া থেকে মোংলা বন্দরের উদ্দেশে আসে লাইব্রেরিয়ান পতাকাবাহী জাহাজ এমভি পানাগিয়া কানালা। জাহাজটি বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বন্দরের পশুর চ্যানেলের হাড়বাড়ীয়ার ১১ নম্বর অ্যাংকোরেজে নোঙ্গর করে। পরে দুপুর থেকে লাইটার জাহাজে কয়লা খালাস করে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জেটিতে পরিবহণের কাজ শুরু হয়েছে। জেটি থেকে এ কয়লা সংরক্ষণ করা হবে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির কোল সেডে।

এর আগে ২৫ জুন ইন্দোনেশিয়া থেকে এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রর জন্য ৩২ হাজার ১২১ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে মোংলা বন্দরে আসে বাংলাদেশের পাতাকাবাহী জাহাজ এমভি বসুন্ধরা ইমপ্রেস। গত ১০ জুন চীনের পতাকাবাহী এমভি জে হ্যায় জাহাজে করে ইন্দোনেশিয়া থেকে রামপাল মৈত্রী তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ২৬ হাজার ৬২০ মেট্রিক টন কয়লা, গত ১৬ মে বাংলাদেশি পতাকাবাহী এমভি বসুন্ধরা ইমপ্রেসে জাহাজে করে ৩০ হাজার মেট্রিক টন ও ২৯ মে এমভি বসুন্ধরা ম্যাজেস্টি জাহাজে করে ৩০ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন কয়লা মোংলা বন্দরের মাধ্যমে রামপাল মৈত্রী তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে আনা হয়।

রামপাল বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের উপমহাব্যবস্থাপক আনোয়ারুল আজিম জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় রামপাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য আরও ৩১ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে মোংলা বন্দরে ভিড়েছে লাইব্রেরিয়ান পতাকাবাহী জাহাজ এমভি পানাগিয়া কানালা। এখন এই কয়লা বসুন্ধরা গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান টগি শিপিং এন্ড লজিস্টিক লিমিটেডের মাধ্যমে খালাস ও পরিবহনের কাজ শুরু হয়েছে। বর্তমানে এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কোনো কয়লা সংকট নেই। এক মাসের পর্যাপ্ত কয়লা মজুদ রয়েছে।

আরও কয়লা আমদানি করা হচ্ছে বলেও জানান রামপাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের এই কর্মকর্তা।

news24bd.tv/তৌহিদ

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়