ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে প্রকৌশলীকে তুলে নিয়ে মারধরের অভিযোগ

ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে প্রকৌশলীকে তুলে নিয়ে মারধরের অভিযোগ

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাট শহরের মদনের মাঠে এলাকার পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবু হানিফকে (৪২) তার কার্যালয় থেকে তুলে নিয়ে মারপিট করার অভিযোগ উঠেছে।

কার্যালয় থেকে এই প্রকৌশলীকে তুলে নিয়ে যাওয়ার সময় বাঁধা দিতে গিয়ে আহত হয়েছেন নিত্যনন্দ মণ্ডল (৩৬) নামে দায়িত্বরত এক আনসার সদস্য। আহত আনসার সদস্য নিত্যনন্দকে বাগেরহাট জেলা ২৫০ বেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার নাক-মুখ ফেটে গেছে।

‘ছাত্রলীগ নামধারী কতিপয় দুষ্কৃতকারী’ এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে জেলা পুলিশের মিডিয়া সেল। এ বিষয়ে রাতেই মারধরের শিকার উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবু হানিফ বাগেরহাট মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানায়, বুধবার রাতে শহরের মদনের মাঠ এলাকার অফিসে কাজ করছিলেন উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবু হানিফ। এসময় ৪টি মোটরসাইকেলে দশজন লোক আসে।

বকেয়া বিল না দেওয়ার অভিযোগে তুলে তারা প্রকৌশলী আবু হানিফকে হুমকি ও গালাগালি দিতে থাকে।

এসময় ওই প্রকৌশলীকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. মনির হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক সরদার নাহিয়ান আল সুলতান ওশান ডেকেছে বলে হামলাকারীরা তাদের সাথে যেতে বলে।

প্রকৌশলী আবু হানিফ যেতে রাজি না হলে তাকে জোর করে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এসময় অফিসের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আনসার সদস্য নিত্যনন্দ ঠেকাতে গেলে তাকে মেরে নাক-মুখ ফাটিয়ে দেয় তারা। পরে আবু হানিফকে উঠিয়ে নিয়ে শহর রক্ষাবাধ সংলগ্ন বটতলায় নিয়ে যায়।

এখানে ছাত্রলীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন বলে জানা যায়। তারা একটি কাজের বিল না দেওয়ার অভিযোগে প্রকৌশলী আবু হানিফকে মারধর করে বলে অভিযোগ উঠেছে। পরে খবর পেয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতাদের জানালে ঘণ্টাখানেক পরে প্রকৌশলীকে ছেড়ে দেয়।

এদিকে বাগেরহাটের পানি উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, রাত ৯টার কিছু পরে পর্যায়ক্রমে ৪টি মোটরসাইকেলে দশজন পাউবো অফিসের সামনে মোটরসাইকেল থেকে নামে। এসময় তারা ভিতরে প্রবেশ করে প্রকৌশলী আবু হানিফকে খুঁজতে থাকে। খুঁজে না পেয়ে উপস্থিত অন্যদের গালাগালি ও হুমকি দিয়ে স্থান ত্যাগ করে।

সিসি ফুটেজে চিহ্নিতদের বিভিন্ন সময় ছাত্রলীগের কার্যক্রমে অংশ নিতে দেখা গেছে।

বাগেরহাট পাউবো’র উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবু হানিফ বলেন, কাজের চাপ থাকায় অফিসে বসে কাজ করছিলাম। এসময় কয়েকজন ছেলে এসে আমাকে তাদের সাথে যেতে বলে। রাজি না হলে মারধর করে জোর করে নিয়ে যায়। ঠেকাতে গেলে অফিসের আনসার নিত্যনন্দকেও মারধর করে। আমাকে নিয়ে শহর রক্ষা বাধের বটতলায় ঘন্টাখানেক আটকে রেখে লাঞ্ছিত করার পাশাপাশি গায়েও হাত তোলে। তাদের ঠিকাদারি কাজের বিল আটকে রেখেছি কেন তা জানতে চায়। কিন্তু কোন কাজ বা কিসের বিল এইটা আমি সঠিক জানি না।

বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মাসুম বিল্লাহ বলেন, রাত ৯টার দিকে ছাত্রলীগ নামধারী ৮ থেকে ১০ জন মোটরসাইকেল নিয়ে ঢুকে আমার অফিসের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবু হানিফকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মনির ও সাধারণ সম্পাদক ওশানের কথা বলে হামলাকারীরা ধরে নিয়ে যায়। এসময় এক আনসার সদস্য নিত্যনন্দ মণ্ডলকে মারধর করে নাক ভেঙে দেয়। সে বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। পরে খবর পেয়ে প্রশাসন ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যানসহ রাজনৈতিক নেতাদের জানালে ঘণ্টাখানেক পরে প্রকৌশলীকে ছেড়ে দেয়।

সিসি টিভি ফুটেজে দোষীদের সহজেই চিহ্নিত করা যাবে দাবি করে নির্বাহী প্রকৌশলী আরও বলেন, তাদের ঠিকাদারি কাজের বিল নাকি বাকি রয়েছে। কিন্তু উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবু হানিফ তো বিল দেওয়ার ক্ষমতা রাখে না। তারা আমার কাছে আসতে পারতো, অভিযোগ থাকলে বলতে পারতো, কিন্তু তা না করে সরাসরি অফিসে এসে এভাবে হামলা করবে, এটি মেনে নেওয়া যায় না।

রাতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবু হানিফ বাগেরহাট মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এ বিষয়ে বাগেরহাট জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার নাহিয়ান আল সুলতান ওশান বলেন, যে প্রকৌশলী অভিযোগ দিয়েছেন তার সাথে আমাদের কিছু লেনদেন ছিল। কয়েকদিন আগে তিনি আমাদের কাছে একটা বড় অংকের টাকা ঘুষ দাবি করে। আমরা ঘুষ দিতে রাজি না হওয়ায়, তিনি আমাদের বিলটি আটকে দেয়। তাদেরকে যদি কোন ঠিকাদার ঘুষ না দেয়, তাহলে তারা ঠিকাদারের বিল আটকে দেয়। এর সাথে নির্বাহী প্রকৌশলীও জড়িত। গতকাল তাকে ডেকে শুধু কথা বলা হয়েছে। তাকে কোন মারধর করা হয়নি। জোর করে আনা হয়নি, জোর করে আনলে তিনি তো ৯৯৯ বা পুলিশের সহযোগিতা নিতে পারতেন বলে দাবি করেন এই ছাত্রলীগ নেতা।

বাগেরহাট জেলা পুলিশের মিডিয়া সেলের সমন্বয়কারী পুলিশ পরিদর্শক বাবুল আক্তার জানান, প্রকৌশলীকে মারধর করার ঘটনায় ছাত্রলীগ নামধারী কতিপয় দুষ্কৃতকারীদের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এসংক্রান্ত পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

news24bd.tv/FA

এই রকম আরও টপিক