ইতিহাস গড়ে উইম্বলডনের ফাইনালে অবাছাই ভন্দ্রুসোভা

সংগৃহীত ছবি

ইতিহাস গড়ে উইম্বলডনের ফাইনালে অবাছাই ভন্দ্রুসোভা

অনলাইন ডেস্ক

দুজনেই অবাছাই হিসেবে উঠেছিলেন উইম্বলডনের সেমিফাইনালে। মেয়েদের এককের শেষ চারের মুখোমুখি লড়াইয়ে এলিনা সভিতোলিনা ও মারকেতা ভন্দ্রুসোভার সামনে সুযোগ ছিল ৬০ বছরের মধ্যে ‘প্রথম’ অবাছাই খেলোয়াড় হিসেবে ফাইনালে ওঠার। সেই সুযোগটা কাজে লাগিয়ে ইতিহাস গড়েছেন চেক প্রজাতন্ত্রের ভন্দ্রুসোভা।

আজ বৃহস্পতিবার সভিতোলিনাকে ৬-৩, ৬-৩ গেমে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট কাটেন ভন্দ্রুসোভা।

সবশেষ অবাছাই হিসেবে উইম্বলডনের ফাইনালে উঠেছিলেন টেনিস কিংবদন্তি বিলি জিন কিং। ১৯৬৩ সালে ফাইনালে উঠেও অবশ্য ভেনাস রোজওয়াটার ডিশটা হাতে নিতে পারেননি যুক্তরাষ্ট্রের এ তারকা। আরেক কিংবদন্তি অস্ট্রেলিয়ার মার্গারেট কোর্টের কাছে হেরে গিয়েছিলেন তিনি। সে সময় অবশ্য মার্গারেট স্মিথ হিসেবেই পরিচিত ছিলেন কোর্ট।

প্রথম অবাছাই নারী খেলোয়াড় হিসেবে ৬০ বছর পর উইম্বলডনের ফাইনালে উঠলেও ভন্দ্রুসোভা এর আগেও খেলেছেন গ্র্যান্ড স্লামের ফাইনাল। চার বছর আগে ২০১৯ সালের ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালে খেলেছিলেন তিনি।  সেই ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার অ্যাশলি বার্টির কাছে হেরে গিয়েছিলেন ২০ বছর বয়সী এই চেক।

ভন্দ্রুসোভার কাছে হেরে সভিতোলিনার গল্পটা পেলো না পূর্ণতা।  গত বছরের অক্টোবরে মা হওয়ার পর মাত্র মাস তিনেক আগেই পেশাদার টেনিসে ফিরেছেন ইউক্রেনের সভিতোলিনা। বিশ্বের ৭৬ নম্বর খেলোয়াড় তো এবারের উইম্বলডনটা খেলেছেন ওয়াইল্ডকার্ড নিয়ে। তবে সেমির প্রথম সেটে ৩-৩ সমতায় থাকার পরেই খেই হারান তিনি।  টানা সাতটি গেম জিতে প্রথম সেট জয়ের পর দ্বিতীয় সেটেও ৪-০-তে এগিয়ে যান। সেখান থেকেই আবার সভিতোলিনা ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়ে ৪-৩ করে ফেলেছিলেন। কিন্তু এরপর আর পারেননি।

মেয়েদের এককের ফাইনালটা আগামী শনিবার। সেই ফাইনালের প্রস্তুতি কীভাবে সারবেন, সেই প্রশ্নের উত্তরে ভন্দ্রুসোভার সপ্রতিভ উত্তর, ‘আমি এখন শুধুই নির্ভার কিছু সময় কাটাব। ’

news24bd.tv/SHS

পাঠকপ্রিয়