যুবলীগ নেতার কবজি কেটে নিল প্রতিপক্ষ 

যুবলীগ নেতার কবজি কেটে নিল প্রতিপক্ষ 

নাটোর প্রতিনিধি 

পূর্বশক্রতার জের ধরে  নাটোর পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মিঠুন আলীর ডান হাতের কবজি কেটে নিয়েছে প্রতিপক্ষ। এ সময় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আরও ৫ জন আহত হয়েছেন। আহত মিঠুনকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, গত ১৬ মে নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক নান্নু শেখকে কুপিয়ে জখম করে মিঠুনের সমর্থকরা।

এর জের ধরে রোববার (২৩ জুলাই) রাত সাড়ে ৯টার দিকে শহরের বলারীপাড়া এলাকায় নান্নুর সমর্থকরা হামলা চালিয়ে মিঠুনসহ ৬ জনকে কুপিয়ে জখম করে। এ সময় মিঠুনের কবজি থেকে ডান হাত বিচ্ছিন্ন করে দেয় হামলাকারীরা।  

প্রত্যক্ষদর্শী ও আহতরা জানান, রোববার রাত ৯টায় শহরের ভবানীগঞ্জ মোড়ের আওয়ামী লীগের স্থানীয় অফিস থেকে যুবলীগ নেতা মিঠুন ১০-১২ জন নেতাকর্মী নিয়ে বাসায় ফিরছিল। পথিমধ্যে বলারীপাড়ায় এলাকায় ৩০-৪০ জন দুর্বৃত্ত হাঁসুয়া হাতে তাদের ঘিরে ফেলে।

এ সময় কয়েক রাউন্ড গুলি চালিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করা হয়। একপর্যায়ে যুবলীগ নেতা  মিঠুনের চোখে মরিচার গুড়া মিশ্রিত পানি ছুড়ে দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপানো শুরু করে। মিঠুনের ডান হাতের কবজি কেটে বিচ্ছিন্ন করা হয়। এছাড়া সারা শরীরে কোপানো হয়। এ সময় আহত হন জাহিদুল (৩৬), আব্দুল্লাহ আল রাব্বি (২৭), বকুল মিয়া (৩৬), জাহিদুল (৩৪) ও স্বপ্ন (২৪)। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে মিঠুনের অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক জানান, মিঠুনের ডান হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। বাকিরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

জেলা যুবলীগের সভাপতি বাশিরুর রহমান খান চৌধুরী এহিয়া দাবি করেন, নিজ দলের নেতাকর্মীদের অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে একের পর এক নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চলছে। নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান সাবেক কাউন্সিলর নান্নু শেখ ও মিঠুন আলীর দ্বন্দ্বের জেরে এসব ঘটনা ঘটছে বলে দাবি করেছেন তিনি। তিনি এসব ঘটনার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান। বলেন, সন্ত্রাসীদের কোনো দল নেই। ঘটনার সঙ্গে জড়িত কেউ দলীয় পদে থাকলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  

এ ব্যাপারে নাটোর সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম বলেন, ‘হামলার সঙ্গে জড়িতদের আটক করতে অভিযান চলছে। তবে এ ঘটনায় থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ আসেনি। ’

news24bd.tv/আইএএম

এই রকম আরও টপিক