বিএনপি বৈঠকে রাজি না হওয়ায় যে প্রতিক্রিয়া জানালেন বিদেশি পর্যবেক্ষকরা

সংগৃহীত ছবি

বিএনপি বৈঠকে রাজি না হওয়ায় যে প্রতিক্রিয়া জানালেন বিদেশি পর্যবেক্ষকরা

অনলাইন ডেস্ক

ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের (ইএমএফ) আমন্ত্রণে ঢাকা সফররত বিদেশি পর্যবেক্ষক প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে বসতে রাজি হয়নি বিএনপি। এতে হতাশা প্রকাশ করেছে প্রতিনিধি দলটি। রোববার প্রতিনিধি দলটি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে হতাশার কথা জানায়। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে বৈঠক করতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এসেছিল প্রতিনিধি দলটি।

প্রতিনিধি দলের সদস্য যুক্তরাষ্ট্রের টেনেট ফাইন্যান্স ইন্টারন্যাশনাল গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা টেরি এল ইসলে বলেন, আমরা নির্বাচন-পূর্ব পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে এসেছি। বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে বৈঠক করছি। বিএনপির সঙ্গেও বৈঠকে বসতে চেয়েছিলাম। নির্বাচন নিয়ে তাদের উদ্বেগ শুনতে চেয়েছিলাম।

তবে আমাদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে রাজি হয়নি তারা। এ কারণে আমরা হতাশ। আমরা উভয় পক্ষের সঙ্গেই বৈঠকে বসতে চেয়েছিলাম। তাহলে বিষয়টি আরও পরিষ্কার হতো। প্রতিনিধি দলের আরেক সদস্য আয়ারল্যান্ডের পর্যবেক্ষক নিক পউল বলেন, আমরা নির্বাচন কমিশন ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছি। নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে আলাপ হয়েছে। বাংলাদেশের সংবিধানে তত্ত্বাবধায়ক পদ্ধতি নেই। তাই সংবিধানের কাঠামোর মধ্যে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন করতে চায় নির্বাচন কমিশন।

এর আগে সকালে আগারগাঁওয়ে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে প্রতিনিধি দলের সৌজন্য সাক্ষাৎ হয়। সাক্ষাৎ শেষে প্রতিনিধি দলের সদস্য টেরি এল ইসলে বলেন, আপনাদের সংবিধান তত্ত্বাবধায়ক সরকার সমর্থন করে না। এটি করতে হলে সংবিধান পরিবর্তন করতে হবে। যদি এটি ভালো আইডিয়া হয়ে থাকে, যদি তারা (ইসি) এটা করতেও চায়, এখন করতে পারবে না। কারণ এটি করার কোনো আইনি কাঠামো নেই। এই মুহূর্তে এটা করা সম্ভব নয়। টেরি এল ইসলে বলেন, আমি মার্কিন সরকারের প্রতিনিধিত্ব করি না। তবে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক দলের সদস্য হিসাবে আমরা মনে করি, এ সরকারের অধীনে কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজন করতে পারবে। ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের (ইএমএফ) আমন্ত্রণে ছয় সদস্যের প্রতিনিধি দল নির্বাচন-পূর্ব পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে ২৮ জুলাই থেকে ঢাকা সফর করছে।

news24bd.tv/আইএএম

পাঠকপ্রিয়