‘গরিবদের ৫ হাজারের জন্যই কোমরে দড়ি, অথচ বড় খেলাপিদের ধরা যায় না’

সংগৃহীত ছবি

‘গরিবদের ৫ হাজারের জন্যই কোমরে দড়ি, অথচ বড় খেলাপিদের ধরা যায় না’

অনলাইন ডেস্ক

খেলাপি ঋণ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। তিনি বলেন, ‘৫-১০ হাজার টাকার লোনের জন্য কৃষকের কোমরে দড়ি বেঁধে আনা হয়। অথচ হাজার হাজার, শত শত কোটি টাকা লোন নিয়ে পরিশোধ আটকে রাখতে বড় বড় আইনজীবী নিয়োগ করা হচ্ছে।  

১৯৯৬-৯৭ সালে ফজলুর রহমান অ্যান্ড কোং নামে একটি প্রতিষ্ঠান লোন নিয়ে পরিশোধ না করায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীসহ তিন বিচারপতির বেঞ্চে খেলাপি ঋণ নিয়ে এ শুনানি হয়।

ফজলুর রহমান অ্যান্ড কোং ১৯৯৬-৯৭ সালে সোনালী ব্যাংক, মতিঝিল লোকাল অফিস থেকে ৩২ কোটি টাকা লোন নিলেও গত ২৬ বছরে তা বেড়ে প্রায় ১৫০ কোটি টাকা হয়েছে। এর মধ্যে মাত্র পাঁচ লাখ টাকা পরিশোধ করেছে। ইতোমধ্যে ২০১৭ সালে ফজলুর রহমান মৃত্যুবরণ করেন।

এ দিন ফজলুর রহমানের সন্তান মো. মাসুদুর রহমানের পক্ষে করা সিভিল আপিলের শুনানিতে আইনজীবী মো. মোকসুদুল ইসলামের উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি উপরোক্ত মন্তব্য করেন।  

এর আগে ২২ মে এ লোনের দায়ীদের সম্পত্তির তথ্য সরবরাহ করতে নিদেশ দেন হাইকোর্ট। ওই আদেশের বিরুদ্ধে সিভিল আপিল করেন ফজলুর রহমানের ছেলে মো. মাসুদুর রহমান। আপিল বিভাগ আবেদনটি খারিজ করে সম্পত্তির তথ্য সরবরাহ করার আদেশ বহাল রেখেছেন।

news24bd.tv/আইএএম