রামপুরা-আমুলিয়া-ডেমরা এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণে তহবিল সংগ্রহ এডিবির

সংগৃহীত ছবি

=

রামপুরা-আমুলিয়া-ডেমরা এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণে তহবিল সংগ্রহ এডিবির

অনলাইন ডেস্ক

রামপুরা থেকে রামপুরা-আমুলিয়া-ডেমরা এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণে ২৬১ মিলিয়ন (২৬ কোটি ১০ লাখ) ডলার তহবিল সংগ্রহ করেছে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি)। আজ বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এডিবি এ তথ্য জানিয়েছে।  

এডিবি বাংলাদেশ সরকারের এই এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্পের লেনদেন উপদেষ্টা। পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ প্রকল্পের নির্মিতব্য এই চার লেনের এক্সপ্রেসওয়েটি সাড়ে ১৩ কিলোমিটার দীর্ঘ।

এডিবি প্রকল্পের বেসরকারি খাতের মূলধন সংগ্রহ করেছে।  

এডিবি জানিয়েছে, ২৬১ মিলিয়ন ডলারের মধ্যে এশিয়ান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংক, ব্যাংক অব চায়না, ডিবিএস ব্যাংক লিমিটেড এবং বাংলাদেশে অবস্থিত ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি লিমিটেড নামের একটি নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ১৯৩ মিলিয়ন ডলার সংগ্রহ করা হয়েছে। বাকি ৬৮ মিলিয়ন ডলার ইক্যুইটি কন্ট্রিবিউশন হিসেবে স্পনসর থেকে সংগ্রহ করা।  

এডিবির মার্কেট ডেভেলপমেন্ট অফিসের প্রধান ক্লিও কাওয়াওয়াকি বলেন, এই এক্সপ্রেসওয়ের ডিজাইন, নির্মাণ, অর্থায়ন, পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বেসরকারি খাতের অংশীদারদের প্রস্তুত করা, বাজারজাতকরণ ও আকৃষ্ট করতে বাংলাদেশের সরকারি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আমরা কাজ করেছি।

 

নতুন এই এক্সপ্রেসওয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম, নারায়ণগঞ্জ, সিলেটসহ দক্ষিণ-পূর্ব জেলাগুলোর মধ্যে যোগাযোগ সহজ করবে এবং যাতায়াতের সময় কমাবে বলে উল্লেখ করেছেন ক্লিও কাওয়াওয়াকি। তিনি বলেন, ‘এটি ঢাকা ও চট্টগ্রাম, নারায়ণগঞ্জ এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় শহর সিলেট এবং বাংলাদেশের পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব জেলাগুলোর মধ্যে যোগাযোগ উন্নত করবে এবং যাত্রীদের দ্রুত তাদের গন্তব্যে পৌঁছানোর সুবিধা প্রদান করবে। ’

কাওয়াওয়াকি বলেছেন, রামপুরা-আমুলিয়া-ডেমরা পিপিপি প্রকল্পটি মার্কিন ডলার এবং রুপির বিনিময় হারের সঙ্গে আংশিক রাজস্ব যুক্ত একটি প্রাপ্যতা প্রদানের ব্যবস্থার অধীনে বিতরণ করা হয়েছিল। যেখানে ঢাকা বাইপাস রোড পিপিপির প্রথম সড়ক লেনদেনের জন্য ন্যূনতম রাজস্ব গ্যারান্টি হিসেবে ৩৭০ মিলিয়ন নির্ধারন করা হয়েছিল।

রামপুরা-আমুলিয়া-ডেমরা এক্সপ্রেসওয়ের নকশা, নির্মাণ, অর্থায়ন, পরিচালন এবং রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে চায়না কমিউনিকেশন কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড এবং চায়না রোড অ্যান্ড ব্রিজ কর্পোরেশনের যৌথ উদ্যোগে।

news24bd.tv/SHS

পাঠকপ্রিয়