সেনাবাহিনীকে অসাংবিধানিক পদক্ষেপ নিতে দেওয়া হবে না: পাক প্রধান বিচারপতি

সেনাবাহিনীকে অসাংবিধানিক পদক্ষেপ নিতে দেওয়া হবে না: পাক প্রধান বিচারপতি

অনলাইন ডেস্ক

পাকিস্তানের প্রধান বিচারপতি (সিজেপি) উমর আতা বন্দিয়াল বৃহস্পতিবার বলেছেন, সশস্ত্র বাহিনীকে ‘অসাংবিধানিক পদক্ষেপ’ নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে না।

কারণ সামরিক আদালতে বেসামরিক লোকের বিচারকে চ্যালেঞ্জ করে একটি পিটিশনের শুনানি অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করেছে ছয় বিচারপতির বেঞ্চ।

প্রধান বিচারপতি (সিজেপি) উমর আতা বন্দিয়ানের নেতৃত্বে ছয় বিচারপতির বেঞ্চে রয়েছেন বিচারপতি ইজাজুল আহসান, বিচারপতি মুনিব আখতার, বিচারপতি ইয়াহিয়া আফ্রিদি, বিচারপতি সৈয়দ মাজাহার আলী আকবর নকভি এবং বিচারপতি আয়েশা এ মালিক।

একদিন আগে, সুপ্রিম কোর্ট মামলার জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ আদালত গঠনে সুশীল সমাজের কর্মীদের পক্ষে সিনিয়র আইনজীবী ফয়সাল সিদ্দিকীর দায়ের করা একটি আবেদন প্রত্যাখ্যান করে।

আজকের শুনানিকালে সিজেপি ৯ মে এর ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।  তিনি বলেছিলেন, পাকিস্তানের জনগণের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনী তাদের অস্ত্র বাড়াতে চান না।

তিনি বলেন, ৯ মে সহিংসতা সত্ত্বেও বেসামরিক লোকদের উপর গুলি না চালানোর জন্য সশস্ত্র বাহিনীর প্রশংসা করা উচিত।  
তবে, সামরিক বাহিনীকে কোনো অবৈধ পদক্ষেপ নিতে দেওয়া হবে না।

বিচারপতি বান্দিয়াল আরও বলেন, আদালতের মতামত ছিল পাকিস্তানের অ্যাটর্নি জেনারেল (এজিপি) মনসুর উসমান আওয়ানের যুক্তি শোনার আরও প্রয়োজন ছিল।

পরবর্তীকালে, সিজেপি বন্দিয়াল বলেন, হেফাজতে থাকা সন্দেহভাজনদের সুবিধা প্রদানের বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের (এসসি) আদেশ এখনও প্রযোজ্য থাকবে।

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘সবাই আইন ও সংবিধান মেনে চললে ভালো হতো। তিনি আরও বলেন, যারা আদালতকে সহযোগিতা করে আমরা তাদের সম্মান করি এবং যারা আমাদের সাথে সহযোগিতা করে না তাদেরকেও সম্মান করি।

সূত্র- ডন

news24bd.tvতৌহিদ