‘ক্রিকেট নিয়ে সাকিবের চেয়ে সিরিয়াস কেউ নেই’

সংগৃহীত ছবি

‘ক্রিকেট নিয়ে সাকিবের চেয়ে সিরিয়াস কেউ নেই’

অনলাইন ডেস্ক

পরিবার থাকে দেশের বাইরে, যারপরনাই সব সময় দেশে থাকতে পারেন না সাকিব আল হাসান। এছাড়া বিশ্বের বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ থেকেও প্রতিনিয়ত ডাক পড়ে তার, আছে ব্যবসায়িক এবং বিজ্ঞাপনের কাজও। ফলে বেশ ব্যস্ততায় সময় কাটাতে হয় সাকিবকে। এসব কারণে আবার ক্রিকেট বোর্ড থেকে মাঝেমধ্যে ছুটিছাটাও নিতে হয় তাকে।

একটা সময় এসব কারণেই সাকিব টেস্ট খেলতে চান না বলে রব ওঠে। সেই সাকিবই এখন বাংলাদেশ টেস্ট দলের নেতৃত্বে। এতদিন একইসঙ্গে সামলাচ্ছিলেন টি২০ দলের নেতৃত্বও। আজ থেকে ওয়ানডে দলের দায়িত্বও এসে পড়েছে তার কাঁধে।

ফলে তিন ফরম্যাটেই বাংলাদেশের অধিনায়ক এখন সাকিব।      

তামিম ইকবাল স্বেচ্ছায় ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব ছাড়ার পর আজ বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান তার গুলশানের বাসায় নতুন অধিনায়কের নাম ঘোষণা করেন। সে সময় সাকিবকে অধিনায়ক হিসেবে বেছে নেওয়ার একটি বিশেষ কারণ শোনা যায় নাজমুল হাসানের মুখ থেকেই।

যে সাকিব দেশের ক্রিকেট নিয়ে ভাবেন না বলে তির্যক মন্তব্য শোনা যেতো, সেই সাকিবকে নিয়ে বোর্ড সভাপতি বলছিলেন, ‘ওর পটেনশিয়াল নিয়ে তো কোনো সন্দেহ নেই। একটা জিনিস খুব ভালো লাগছে আমার। সেটা হচ্ছে সাকিবকে নিয়ে আমার যে সন্দেহ ছিল, সে কতটা সিরিয়াস, কোন খেলাটা খেলবে কিংবা খেলবে না…। এখন দেখছি, ওর চেয়ে সিরিয়াস কেউ নেই ক্রিকেট নিয়ে। ’

বোর্ডপ্রধান আরও যোগ করেন, ‘আমাদের যে পরিমাণ খেলা, সেগুলো তো খেলছেই, এরপরও নিয়মিতই খেলে যাচ্ছে। কানাডায় গেল, এখন আবার শ্রীলঙ্কায় গেল। এই যে এখন বিশ্বকাপে অধিনায়কত্বের দায়িত্ব, আমার কাছে মনে হয়, সে এখন টোটালি ফোকাসড অন ক্রিকেট। এটা আমাদের জন্য খুব প্লাস পয়েন্ট। ওর সামর্থ্য নিয়ে কখনো কোনো সন্দেহ থাকার প্রশ্নই ওঠে না। ’

আপাতত বিশ্বকাপ পর্যন্ত দায়িত্ব থাকছে সাকিবের কাঁধে। তবে সাকিব নিজ থেকেই পূর্ণকালীন সময়ের জন্য নেতৃত্ব চাইলে, তাকে দেওয়া হবে বলে বোঝা গেল বোর্ড সভাপতির কথায়, ‘ওর সঙ্গে সে রকম (দীর্ঘ মেয়াদে অধিনায়কত্বের ব্যাপারে) আলোচনা হয়নি। ও দেশে এলে বলতে পারব। দীর্ঘ মেয়াদে ওর পরিকল্পনাটাও জানতে হবে। ’

তিনি আরও বলেন, ‘মোটামুটিভাবে যেটা আমরা ঠিক করেছি, বিশ্বকাপ পর্যন্ত যে খেলা আছে, এই সময়টায় অবশ্যই সাকিব আল হাসান অধিনায়ক। ওর সঙ্গে কথা বলে ঠিক করব যে এটা কি দীর্ঘমেয়াদি, নাকি তিনটাই থাকবে, নাকি কোনোটা ছাড়বে। এগুলো ও এলেই কথা বলব। ’

ওয়ানডের অধিনায়কত্ব পাওয়ার আগে থেকে টেস্ট ও টি২০ সংস্করণে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন সাকিব। বিসিবি মনে করছে, তিন সংস্করণের অধিনায়কত্ব সাকিবের জন্য চাপ হয়ে যাবে। নাজমুল হাসানের কথা, ‘একসঙ্গে তিনটা ওর ওপর বোঝা হয়ে যাবে। কাজেই ওর সঙ্গে কথা বলে নিতে হবে। ওর সঙ্গে কথা না বলে কিছু বলাটা এখন কঠিন। একে তো ও দেশের বাইরে, তার ওপর একটা দলের হয়ে খেলছে। ওখানে ওরও কিছু ব্যস্ততা আছে। সে জন্য ওকে বেশি ডিস্টার্ব করতে চাইনি। আজকেও আবার ওর খেলা। ’

news24bd.tv/SHS