অন্যের স্ত্রীকে পটাতে গিয়ে ১২ বছরের জেলের মুখে!
অন্যের স্ত্রীকে পটাতে গিয়ে ১২ বছরের জেলের মুখে!

প্রতীকী ছবি

অন্যের স্ত্রীকে পটাতে গিয়ে ১২ বছরের জেলের মুখে!

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

আরদা তুরান এবার অন্যের স্ত্রীকে পটাতে গিয়ে ১২ বছরের জেলের মুখে পড়েছেন। ইস্তাম্বুলের নৈশ ক্লাবে দেশটির খ্যাতনামা পপ গায়ক বেরকে স্ত্রীকে পটানোর চেষ্টা করে তুরান। এ নিয়েই বেরকের সঙ্গে কথা কাটাকাটি, একপর্যায় ঘুষি মেরে নাক ভেঙে দেয় তুরান। এই অভিযোগে সাড়ে ১২ বছর কারাভোগের শাস্তির মুখে পড়েছেন তুরান।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার  ইস্তাম্বুলের নৈশ ক্লাবে স্ত্রীকে নিয়ে গিয়েছিলেন পপ গায়ক বেরকে শাহিন। সেখানে তুরানও ছিলেন। বেরকের জীবনসঙ্গী ওজলেম আদা শাহিনকে নাকি পটানোর চেষ্টা করেছিলেন তুরান। সংবাদমাধ্যমকে শাহিন তখন জানিয়েছিলেন, তুরান নৈশ ক্লাবে ওই সময় তাঁকে বলেছেন ‘নিজের স্ত্রী না থাকলে আমি তোমার প্রতি ঝুঁকতাম। ’ তুরানের এমন আচরণে শাহিন বেশ বিরক্তি বোধ করেন এবং ঘটনাটা বেরকের (তার স্বামী) কাছে বলে দেয়। এ নিয়ে তুরানের সঙ্গে তর্কাতর্কি ও কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে বেরকের গায়ে হাত তোলেন তুরান। ঘুষি মেরে বেরকের নাক ভেঙে দেন। পরে বেরকেকে দ্রুত হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আরও জানা যায়, তুরান গভীর রাতে অস্ত্র নিয়ে সেই হাসপাতালে গিয়েছিলেন। সেখানে তিনি বেরকেকে বলেছেন, ‘আমি জানতাম না সে তোমার জীবনসঙ্গী। দুঃখিত, আমাকে মেরে ফেলো। ’

তুরানের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়ন, অবৈধ অস্ত্র রাখা, জনসাধারণের নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ফেলা ও রক্তাক্ত করার অভিযোগপত্র গঠন করেছেন ইস্তাম্বুলের প্রধান সরকারি কৌঁসুলি। বেরকে শাহিনের বিরুদ্ধেও অবমাননার অভিযোগ গঠন করে তাঁর দুই বছরের কারাভোগ চাওয়া হয়েছে। বার্সার হয়ে লা লিগা ও কোপা ডেল রে জয়ী তুরানকে গত সপ্তাহেই জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।

 

NEWS24কামরুল

সম্পর্কিত খবর