তারেক রহমানের কথায় সরকারের এত ভয় কেন, প্রশ্ন মঈন খানের

সংগৃহীত ছবি

তারেক রহমানের কথায় সরকারের এত ভয় কেন, প্রশ্ন মঈন খানের

অনলাইন ডেস্ক

‘মিডিয়ার শক্তিকে সরকার ভয় পায় বলে নতুন নতুন নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে’ মন্তব্য করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আব্দুল মঈন খান বলেছেন, তারেক রহমানের কথা কোনোরকম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করা যাবে না, সরিয়ে দিতে হবে। তার কথায় এত ভয় পায় কেন সরকার? বেগম জিয়াকেও সরকার ভয় পায়। তারা মনে করে তাকে কারারুদ্ধ করলে দেশের মানুষ চুপ হয়ে যাবে। কিন্তু সবকিছু বন্ধ করে দিয়ে দেশের মানুষকে চুপ করিয়ে দেওয়া যাবে না।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ বলছে, বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই। ’ 

সোমবার (২৮ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম ৭১’ কেন্দ্রীয় কমিটির আয়োজনে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের  অধীনে নির্বাচনের দাবিতে এই সভার আয়োজন করা হয়।  
 
আব্দুল মঈন খান বলেন, গণতন্ত্রের জন্য দেশ স্বাধীন হলেও আজকে ৫০ বছর পরও দেশে গণতন্ত্র নেই।

আওয়ামী লীগকে জনগণের মুখোমুখি হতে হবে। গণতন্ত্রকে তুলে দিয়ে একদলীয় বাকশাল কায়েম করেছে আওয়ামী লীগ।  

তিনি বলেন, সরকার কূটনীতিতে ব্যর্থ। চরম বন্ধু রাষ্ট্র বাংলাদেশকে প্রত্যাখ্যান করেছে। টাকা পাচার করে দেশকে ফোকলা করে ফেলেছে আওয়ামী লীগ। এ জন্য ব্রিকসের সদস্য হতে পারেনি। সরকারের ওপর জনগণের আস্থা না থাকায় গুজব ছড়ানো হচ্ছে। ধাপ্পাবাজি করে দেশ চালাতে চায় সরকার।  

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য আরও বলেন, বিএনপি প্রতিহিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। বিএনপি গত এক বছর নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করেছে। গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে চায় বিএনপি। আগামীতে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে নৈতিকভাবে পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হবে।  

তিনি আরও বলেন, জোর করে কারো কণ্ঠ রোধ করা যায় না। ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন পরির্বতন করে সাইবার নিরাপত্তা আইন করা হয়েছে। কণ্ঠ রোধ করতে এ আইন করা হয়েছে। জনগণের আন্দোলনের মুখে সরকারের ধাপ্পাবাজি খড়কুটোর মতো এসব উড়ে যাবে।

news24bd.tv/আইএএম

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়