ইতালির চাকরি ছেড়ে মানচিনিও সৌদি আরবে

সংগৃহীত ছবি

ইতালির চাকরি ছেড়ে মানচিনিও সৌদি আরবে

অনলাইন ডেস্ক

শেষ পর্যন্ত গুঞ্জনটাই সত্যি হলো। এ মাসে হুট করেই ইতালি জাতীয় দলের দায়িত্ব ছাড়া বর্ষীয়ান কোচ রবার্তো মানচিনি নিলেন সৌদি আরব ফুটবলের দায়িত্ব। সৌদি আরব ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে ২০২৭ সাল পর্যন্ত চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। ইতালিয়ান সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, বছরে আড়াই কোটি ইউরো বেতন দেওয়া হবে তাকে।

আগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহে আচমকা ইতালির দায়িত্ব ছাড়েন মানচিনি। সেসময়ই বলাবলি হচ্ছিল, সৌদি আরবের প্রধান কোচের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন তিনি। তবে এক সাক্ষাৎকারে এই কোচ জানান, ‘আমি একজন ফুটবল ম্যানেজার, বসে থাকব না। তবে এর পেছনে সৌদি আরবের কোনো বিষয় নেই।

কিন্তু মাস না শেষ হতেই সেই সৌদি ফুটবলের সঙ্গে নাম জড়ালেন মানচিনি। গতকাল রাতে সৌদি আরব ফুটবল ফেডারেশনের টুইট অ্যাকাউন্টে একটি ভিডিও পোস্টে ঘোষণা দেওয়া হয়, মানচিনি সৌদি আরবের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন। ভিডিওর একটি অংশে মানচিনি বলেন, ‘আমি ইউরোপে ইতিহাস গড়েছি। এবার সৌদির হয়ে ইতিহাস গড়ার সময়। ’ পরে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকেও একটি টুইট করেন মানচিনি।

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে জায়গা করে নিতে পারেনি ইতালি, এরপরই প্রধান কোচের পদে আসীন হন মানচিনি। তার অধীনে ২০২০ ইউরো জেতে আজ্জুরিরা। গড়ে টানা ৩৭ ম্যাচ অপরাজিত থাকার বিশ্বরেকর্ড। সেই ইতালি আবার ২০২২ কাতার বিশ্বকাপে জায়গা করে নিতেও ব্যর্থ হয়। তারপরেও মানচিনির ওপরেই আস্থা ছিল দেশটির ফুটবল ফেডারেশনের।  উল্টো দায়িত্ব আরও বেড়ে যায় তার।  চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে জাতীয় দলের পাশাপাশি অনূর্ধ্ব-২০ ও অনূর্ধ্ব-২১ দলের সমন্বয়কও করা হয় তাকে।

ইতালির গাজেত্তা দেল্লো স্পোর্ত জানিয়েছে, চার বছরের চুক্তিতে বছরে কর ছাড়াই আড়াই কোটি ইউরো করে আয় করবেন মানচিনি। আজ সৌদি আরব তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে কোচ হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিতে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছে।  

সৌদি আরব জাতীয় দলের হয়ে মানচিনি প্রথমবার ডাগআউটে দাঁড়াবেন ৮ সেপ্টেম্বর কোস্টারিকার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে। ম্যাচটি হবে সৌদি আরবের মালিকানাধীন ইংলিশ ক্লাব নিউক্যাসল ইউনাইটেডের মাঠ সেন্ট জেমস পার্কে। একই মাঠে চার দিন পর মানচিনির দলের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ কোরিয়া।

সৌদি আরব ও ইতালি জাতীয় দলের আগে ইতালির ক্লাব ফিওরেন্তিনা, লাৎসিও ও ইন্টার মিলান, তুরস্কের গ্যালাতাসারে, রাশিয়ার জেনিত সেন্ট-পিটার্সবার্গ এবং ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার সিটিকে কোচিং করিয়েছিলেন মানচিনি। ২০১২ সালে তার অধীনে খেলেই প্রথম প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা জেতে সিটি।

news24bd.tv/SHS