যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ২১ বছর পর ধরা

প্রতীকী ছবি

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ২১ বছর পর ধরা

অনলাইন ডেস্ক

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থানার মাহামুদুল হক হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মোহাম্মদ নুরুল আলমকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৭। গ্রেপ্তার মোহাম্মদ নুরুল আলম (৪৫), লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের নোয়াপাড়ার  মৃত আব্দুল হাকিমের ছেলে।

র‌্যাব-৭ জানিয়েছেন, ২০০১ সালের ৩ নভেম্বর লোহাগাড়া থানার আমিরাবাদ ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড রাজঘাটা এলাকায় মাহামুদুল হককে মারধর ও দেশি অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়। ৫ নভেম্বর মাহামুদুল হক চিকিৎসাধীন অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যান।

এ ঘটনায় মাহামুদুল হকের ভাই আলী আহমেদ বাদী হয়ে ১১ নভেম্বর ১৩ জনের বিরুদ্ধে লোহাগাড়া থানায় মামলা করে। পুলিশ তদন্ত শেষে ২০০২ সালের ২৮ জানুয়ারি আদালতে এজাহারভুক্ত ১৩ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন। ২০০৬ সালের ৮ আগস্ট আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ।  

মামলায় বিচার চলাকালে দুইজন আসামির মৃত্যু হয়।

মামলায় মোট ১০ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে গত ২২ আগস্ট ২ জনের আমৃত্যু কারাদণ্ড ও ৮ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১ জনকে খালাস দিয়েছিলেন আদালত।

র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক তাপস কর্মকার বলেন, মাহামুদুল হক হত্যার আসামি নুরুল আলমকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১৩ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৭ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।  

রোববার (২৭ আগস্ট) রাত সাড়ে এগারোটার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাত সাড়ে এগারোটার দিকে  নগরের কোতয়ালী থানা এলাকা অভিযান চালিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মোহাম্মদ নুরুল আলমকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার আসামি জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, গ্রেপ্তার এড়াতে দীর্ঘ ২১ বছর যাবৎ নগরের বিভিন্ন স্থানে আত্মগোপন করে ছিলেন।  

পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।