আনসার ব্যাটালিয়ন আইন : বিদ্রোহ করলেই চাকরিচ্যুতি, মৃত্যুদণ্ড

মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন -ফাইল ছবি।

আনসার ব্যাটালিয়ন আইন : বিদ্রোহ করলেই চাকরিচ্যুতি, মৃত্যুদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক

আনসার ব্যাটালিয়ন আইন ২০২৩ এর খসড়ায় চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। বিদ্রোহ এবং বিশৃঙ্খলা করলে এই আইনে বিভিন্ন শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে।

সোমবার (৪ সেপ্টেম্বর) মন্ত্রিসভা বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন। তিনি জানান, এ ধরনের অপরাধ করলে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হবে।

এ বিষয়ে দুটো প্রতিষ্ঠানে দু'টি আদালত গঠন করা হবে।

তিনি আরও জানান, বাহিনীতে বিশৃঙ্খলা এবং বিদ্রোহ করলে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে এই আইনে। এই আইনে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধানও রাখা হয়েছে।

কেবিনেট সেক্রেটারি বলেন, এই আইনের যে অপরাধে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে একই অপরাধের জন্য পুরনো আইনে কোনো শাস্তির বিধান ছিলো না।

সচিব জানান, নির্দিষ্ট হারে ভাতা দিয়ে সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ইন্টার্ন করার সুযোগ রেখে একটি নীতিমালার অনুমোদন দিয়েছে সরকার। মন্ত্রিসভার বৈঠকে 'সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে ইন্টার্নশিপ (ব্যবহারিক প্রশিক্ষণ) নীতিমালা, ২০২৩' এর খসড়ার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নীতিমালার আলোকে এখন সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে, মন্ত্রণালয়ে, আধা সরকারি বা স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে প্রতি বছর শিক্ষার্থীদের ইন্টার্ন করার সুযোগ দেওয়া হবে। সেটা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা ডিপার্টমেন্ট ঠিক করবে। সেখানে শিক্ষার্থীদের একটা ভাতাও দেওয়া হবে।

সচিব বলেন, তারা কী কাজ করবেন, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে তাদের সঙ্গে বসবে। তিন থেকে ছয় মাস মেয়াদে তারা কাজ করবেন।

সরকারি প্রতিষ্ঠানে ইন্টার্নশিপের সুযোগ দেওয়ার জন্য নীতিমালা করা হলেও প্রধানমন্ত্রী বেসরকারি প্রতিষ্ঠানেও এই সুযোগ নিশ্চিত করার নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন যে, এই নীতিমালাটা শুধুমাত্র সরকারি প্রতিষ্ঠান নয়, সব বেসরকারি এবং শিল্প প্রতিষ্ঠানে যেন এই সুযোগটা থাকে। সে অনুযায়ী নীতিমালাটি পুনর্গঠন করা হবে।

নীতিমালার জন্য কী যোগ্যতা লাগবে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, একেকটা প্রতিষ্ঠানের চাহিদা একেক রকম, সে অনুযায়ী সুযোগ দেওয়া হবে। এটা ওই প্রতিষ্ঠান ঠিক করবে যে, তাদের কী ব্যাকগ্রাউন্ডের শিক্ষার্থী দরকার।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ ও সাতক্ষীরায় নতুন দুটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে আইন অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। আইন দুটি হলো- জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নারায়ণগঞ্জ আইন, ২০২৩ এবং সাতক্ষীরা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ২০২৩।

news24bd.tv/FA

এই রকম আরও টপিক