২৫ আগস্ট ,রবিবার, ২০১৯

শিরোনাম

> সোশ্যাল মিডিয়া

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর অনলাইন

২২ অক্টোবর ,সোমবার, ২০১৮ ০৯:৩২:০১

তসলিমা নাসরিনের সমালোচনার জবাবে যা বললেন মাসুদা ভাট্টি


তসলিমা নাসরিনের সমালোচনার জবাবে যা বললেন মাসুদা ভাট্টি

মাসুদা ভাট্টি ও তসলিমা নাসরিন


এবার আলোচিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনের বক্তব্য নিয়ে খেদ প্রকাশ করে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি বলেছেন, তিনি একটি লেখার জন্য আমাকে ক’বার শাস্তি দেবেন? এরতো কোথাও না কোথাও একটা শেষ হতে হবে, নয়? হয়তো এবারই সেই চরম শাস্তিটুকু তিনি আমায় দিলেন। আমি মাথা পেতে নিলাম।

মাসুদা ভাট্টিকে ‘ভীষণ চরিত্রহীন’ আখ্যা দিয়ে তসলিমা নাসরিনের বক্তব্যের জবাবে রোববার দিবাগত রাতে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি এসব কথা বলেন।

এই নারী সাংবাদিক বলেন, তিনি এরকম একটি চরম সংকটকালে যখন পুরুষতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থার কবলে থেকে একদল মানুষ ন্যায়ের জন্য লড়ছে, তখন মইনুল হোসেনের দেওয়া তকমা ‘চরিত্রহীনের’ সঙ্গে একটি ‘ভীষণ’ বিশেষণ জুড়ে দিয়ে আমার চরিত্রের সার্টিফিকেটকে আরোও শক্ত করেছেন।

‘তবে তিনি কখনোই আমাকে তার পাবলিশার হিসেবে চিঠি দেননি, দিয়েছিলেন তার একজন ‘ফ্যান’ বা সমর্থক হিসেবে বর্ণনা করে। খুঁজলে সে চিঠি আমি নিশ্চয়ই পাবো।’

‘আমি এ জন্য তার কাছে কৃতজ্ঞ। অগ্রজ লেখক হিসেবে হয়তো এটুকুই আমার প্র্রাপ্য তার কাছে,’ বলেন এ নারী সাংবাদিক।

তসলিমা নাসরিনকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত ক্ষোভকে প্রকাশ করে ২০ বছর আগে দেওয়া একটি বক্তব্যের প্রতিশোধ নেয়ার জন্য তিনি একটি মোক্ষম সময় বেছে নিয়েছেন।

‘যে সব ঘটনার উল্লেখ তিনি করেছেন, তা ২০০০ সালের এবং তিনি সত্যিই আমাকে চিঠি দিয়েছিলেন। কারণ তখন আমাকে ব্রিটেন থেকে বের করে দেয়ার একটা আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল।’

মাসুদা ভাট্টি বলেন, একটি আলোচিত সাক্ষাতকার গ্রহণের পর থেকে আমার সে দেশে টিকে থাকা মুশকিল হয়ে পড়েছিল এবং তখনও অনেক সাংবাদিক আমার পক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন, এখন যেমন দাঁড়িয়েছেন।

‘যখন তার প্রথম আত্মজৈবনিক গ্রন্থ ‘ক’ বের হলো, তখন এই বই নিয়ে প্রচারণার অংশ হিসেবেই আমি একটি পুস্তক সমালোচনা লিখি।’

তখন নারীবাদ, নারীর প্রতি সহিংসতা, উদারনৈতিক ও সমতাভিত্তিক সমাজব্যাবস্থা সম্পর্কে খুব বেশি একাডেমিক লেখাপড়া ছিল না জানিয়ে মাসুদা ভাট্টি বলেন, আমি সমালোচনায় বইটি সম্পর্কে এই কথাই বলতে চেয়েছিলাম যে, একজন ব্যক্তির সঙ্গে আরেকজন ব্যক্তির স্বেচ্ছা-সম্পর্কের দায় দুপক্ষের সমান এবং তা প্রকাশের আগে অন্যপক্ষের অনুমোদন প্রয়োজন পড়ে - ‘ক’ বইটি পাঠে আমার তা মনে হয়নি।

‘প্রায় কুড়ি বছর আগের লেখা এবং সেখানে আমি তসলিমা নাসরিনকে কোনোভাবেই ব্যক্তিগত কোনো আক্রমণ করিনি। করতে পারি না। কারণ আমি সবসময় একথাই বলে এসেছি যে, আজকে যে আমরা মেয়েরা অনায়াস-লেখা লিখতে পারছি তার মূলপথ আমাদের জন্য উন্মুক্ত করেছেন তসলিমা নাসরিন।’

তিনি বলেন, অথচ গত কুড়ি বছর যাবত তসলিমা নাসরিন অন্তত কুড়িবারেরও বেশি এই প্রসঙ্গে আমাকে তীব্রভাবে আক্রমণ করেছেন তার প্রকাশিত বইতে, লেখায় এবং তার ও আমার জানাশোনা ব্যক্তিবর্গের কাছে।

২০০০ সালের পরে অসংখ্য লেখায় তসলিমা নাসরিনের প্রশংসা করেছেন জানিয়ে মাসুদা ভাট্টি বলেন, সে কারণে আমাকে সমালোচকরা ‘নতুন তসলিমা নাসরিন’ আখ্যা দিয়ে আমার বিচার, অপমান এবং ফাঁসিও চেয়েছে।

‘তসলিমা নাসরিন এসব কথা কখনও উল্লেখ করেননি, তিনি সব সময় গত কুড়ি বছর ধরে বহুবার, বহু জায়গায় আমার এই পুস্তক-সমালোচনার কথা উল্লেখ করে আমাকে চরম আঘাত করেছেন।’

'আমি বিরত থেকেছি জনসমক্ষে কিছু বলা থেকে। কিন্তু তসলিমা নাসরিনের ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের কাছে আমি বহুবার একথা বলেছি যে, তার বইয়ের সমালোচনায় আমি যা বলেছি সেটা একেবারেই তার বইয়ে সন্নিবেশিত তথ্যের সমালোচনা, তার ব্যক্তি-সমালোচনা নয়।'

‘আমি একথা ২০০৩ সালেই প্রকাশ্যেও লিখেছি, এমনকি যখন তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে তখন আমি প্রতিবাদ করেছি, লেখকের বিরুদ্ধে মামলা বা বই নিষিদ্ধের দাবির বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছি,’ বলেন এ লেখিকা।

‘আমার সেসব প্রতিবাদ, প্রতিরোধ সব ভেসে গেছে, থেকে গেছে কেবল সমালোচনাটুকু। এমনকি এই সেদিনও বাংলা একাডেমিতে আয়োজিত লিট ফেস্ট ২০১৭-তে আমি দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলেছি যে, তিনি আমাদের পুরোধা লেখক, যিনি পথ দেখিয়েছেন, অনেক শব্দকে ছাপার অক্ষরে নিষিদ্ধ করে রাখা হয়েছিল, তিনি মুক্ত করে দিয়েছেন।’

তসলিমা নাসরিনের প্রতি আমার কোনো ধরনের বিদ্বেষ, রাগ কখনোই ছিল না বলে জানান সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি। তিনি বলেন, বরং আমার দুঃসময়ে তিনি পাশে ছিলেন সেটা আমি ভুলিনি। তাই বলে তার প্রকাশিত বইয়ের সমালোচনা আমি করতে পারবো না সেটাতো হতে পারে না।

‘হতে পারে তিনি মনে করেছেন যে, আমার সমালোচনাটি কুৎসিৎ ব্যক্তি আক্রমণ, কিন্তু আমি নিজে জানি যে, তখনও আমি সেটা করিনি আর এখনতো আরও করবো না।’

মাসুদা ভাট্টি বলেন, তসলিমা নাসরিন তার মতামত দিয়েছেন আমার সম্পর্কে। আমি সে সম্পর্কে আমার ব্যাখ্যা দিতে পারি মাত্র, এর বেশি আর কীই বা করতে পারি।

এই নারী সাংবাদিক আরও বলেন, তবে এমন একটি সময়কে ২০ বছর আগে লেখা সমালোচনার জন্য তিনি বেছে নিয়েছেন, যখন আমি কেবল আক্রান্তই নই, আমার ব্যক্তিগত নিরাপত্তার প্রশ্নটিও তিনি আমলে আনেননি, আমার চেয়ে তার এই নিরাপত্তা-সংকটের অভিজ্ঞতা অনেক বেশি বোঝার কথা ছিল।

‘আজকে তার দেয়া চারিত্রিক সার্টিফিকেট নিয়ে যারা আমাকে তুলোধনো করছেন। তারাই প্রতিদিন তার মাথা চায়, নোংরা আক্রমণে জর্জরিত করে, কখনও বা তাকে দেশছাড়া করতে চায়’

তিনি বলেন, কিন্তু আজ আমার বিরুদ্ধে তারই দেয়া ‘ভীষণ চরিত্রহীন’ তকমার করাত দিয়ে আমাকে টুকরো টুকেরো করছে। জানি না, এতে কার লাভ কী হলো? কিন্তু কিছু একটা হলো নিশ্চয়ই।

প্রসঙ্গত, এর আগে ফেসবুকে এক পোস্টে তসলিমা নাসরিন লেখেন, 'কে মঈনুল হোসেন, কী করেন, কী তাঁর চরিত্র, কী তাঁর আদর্শ আমি জানি না, তবে জানি মাসুদা ভাট্টি একটা ভীষণ রকম চরিত্রহীন মহিলা। চরিত্রহীন বলতে আমি কোনওদিন এর ওর সঙ্গে শুয়ে বেড়ানো বুঝি না। চরিত্রহীন বলতে বুঝি, অতি অসৎ, অতি লোভী, অতি কৃতঘ্ন, অতি নিষ্ঠুর, অতি স্বার্থান্ধ, অতি ছোট লোক। মাসুদা ভাট্টি এসবের সবই।


পদ্মাসেতুর পিলারের মাঝে যুবকের মরদেহ 
পাল্লা না বাড়িয়ে নিখুঁত ক্ষেপণাস্ত্র বানাচ্ছে ইরান
ডেঙ্গুতে আরও ছয়জনের মৃত্যু
ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে স্কুলছাত্রীর বিষপান!
আমিরাতের সর্বোচ্চ সম্মাননায় ভূষিত হলেন নরেন্দ্র মোদি
বাল্যবিয়ের দু’মাসের মাথায় স্বামী-স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’
উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় বাবা-মা ও ভাইকে মারধর
'মিয়ানমারকে বন্ধুহীন ভাবার কোনো কারণ নেই'
চীনা কোম্পানির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে বললেন ট্রাম্প
ফরিদপুরে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে নিহত ৬
অধ্যাপক মোজাফফরের প্রতি রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা নিহত
ধর্ষণ করতে গিয়ে গণপিটুনিতে নিহত ১, ছুরিকাঘাতে নিহত ১
অধ্যাপক মোজাফফরের প্রথম জানাজা জাতীয় সংসদে
'গ্রেনেড হামলার মাস্টারমাইন্ডদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে'
'দেশের উন্নয়নে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি কাজে লাগাতে হবে'
ভুটানকে হারিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু বাংলাদেশের
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে শক্ত অবস্থানে যাওয়ার ঘোষণা
‘পৃথিবীর ফুসফুস’ খ্যাত আমাজন পুড়ে ছাই হচ্ছে
রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে মিয়ানমারের পাশে থাকবে চীন
পদ্মাসেতুর পিলারের মাঝে যুবকের মরদেহ 
পাল্লা না বাড়িয়ে নিখুঁত ক্ষেপণাস্ত্র বানাচ্ছে ইরান
ডেঙ্গুতে আরও ছয়জনের মৃত্যু
ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে স্কুলছাত্রীর বিষপান!
আমিরাতের সর্বোচ্চ সম্মাননায় ভূষিত হলেন নরেন্দ্র মোদি
কলারোয়ায় বজ্রপাতে কৃষক নিহত
বাল্যবিয়ের দু’মাসের মাথায় স্বামী-স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’
উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় বাবা-মা ও ভাইকে মারধর
অনুশীলনীতে আঙুলে চোট পেয়েছেন মিরাজ
'মিয়ানমারকে বন্ধুহীন ভাবার কোনো কারণ নেই'
মদিনায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত
চীনা কোম্পানির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে বললেন ট্রাম্প
ময়মনসিংহে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে শিশুর মৃত্যু
ফরিদপুরে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে নিহত ৬
অধ্যাপক মোজাফফরের প্রতি রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা নিহত
ধর্ষণ করতে গিয়ে গণপিটুনিতে নিহত ১, ছুরিকাঘাতে নিহত ১
ফের দুই ক্ষেপাণাস্ত্র নিক্ষেপ করল উত্তর কোরিয়া
পুলিশের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' যুবক নিহত
তিস্তা নদীতে গোসল করতে নেমে দুই শিশুর মৃত্যু
এবার বলিউডে পা রাখলেন মম
‘‌সালমানের সঙ্গে আমার বিয়ে হচ্ছে’
প্রকৌশলীকে শাস্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
ছাত্রীকে ধর্ষণ করতে গিয়ে স্ত্রীর হাতে ধরা শিক্ষক
'আমার জীবনের ১৬টি বছর খুব সুন্দর ছিল' লিখে আত্মহত্যা
ক্রসফায়ার ও ভয়ঙ্কর নির্যাতন নিয়ে মুখ খুললেন জজ মিয়া
মিন্নির গ্রেপ্তার-জবানবন্দি বিষয়ে জানতে চান হাইকোর্ট
যে নারীর কারণেই ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী কারাগারে
দিনে কয়টি ডিম স্বাস্থ্যের পক্ষে নিরাপদ!
কুমিল্লায় বাস চাপায় আটোরিকশার ৫ যাত্রী নিহত
'২৫ ফেব্রুয়ারি ২৪ ঘণ্টা কোথায় ছিলেন খালেদা জিয়া' 
‘এ যুগের শয়তান মওদুদ’
কাশ্মীর সংকট নিয়ে মুখ খুলে তোপের মুখে সোনম কাপুর
কাশ্মীর ইস্যুতে ট্রাম্পকে মোদির ফোন 
ফেল করানোর ভয় দেখিয়ে ছাত্রীকে একাধিক বার ধর্ষণ
মদিনায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত
বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সেরে ফেললেন সাব্বির
মিন্নিকে কেন জামিন দেয়া হবে না- তা জানতে রুল জারি
প্রেমিকার বাসা থেকে প্রেমিকের লাশ উদ্ধার
পদ্মাসেতুর পিলারের মাঝে যুবকের মরদেহ 

সব খবর