ভেঙে গেল নেইমারের ছয় বছরের প্রেম
ভেঙে গেল নেইমারের ছয় বছরের প্রেম

নেইমারের ছয় বছরের প্রেমে ভাঙন

ভেঙে গেল নেইমারের ছয় বছরের প্রেম

নিউজ টোয়েন্টিফোর অনলাইন

সেই ২০১২ সালে শুরু। ছয় বছরের প্রেম। কত খুনসুটি, সমুদ্রজলে লুটোপুটি! একসঙ্গে ছুটি কাটাতে যাওয়া। ব্রাজিলের ফুটবল তারকা নেইমারের সেই প্রেম ভেঙে গেল এক ঝটকায়।

হ্যা, ব্রুনা মার্কুয়েনজির সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে এ ফুটবল জাদুকরের।

চলতি মাসের শুরুতেই ডিজনিল্যান্ডে দু’জনে ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন। তারপরেই এই আচমকা ব্রেক আপ। কিন্তু কেন?

নেইমারই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন ব্রুনা মার্কুয়েনজি। গত সপ্তাহেই ব্রাজিলে এক অনুষ্ঠানে ব্রুনা জানিয়ে দেন, নেইমারের সঙ্গে তার আর কোন সম্পর্ক নেই। একইসঙ্গে তিনি জানান, ব্রেক-আপের পুরো সিদ্ধান্তই নেইমারের।

এক সাক্ষাৎকারে ব্রুনা বলেন, ‘‘সিদ্ধান্তটা ওঁর তরফ থেকেই এসেছিল। যদিও ওঁর জন্য অনেক শ্রদ্ধা, ভালবাসা রয়েছে। আমি সাধারণত, ব্যক্তিগত কথা প্রকাশ্যে আনি না। তবে এটা আমাকে বলতেই হত। এক বারের জন্য হলেও। ’’

কী কারণে ভেঙে গেল ছয় বছরের সম্পর্ক? আন্তর্জাতিক একাধিক প্রচারমাধ্যমে দাবি করা হয়েছে, ব্রাজিলের আসন্ন নির্বাচন ঘিরে বান্ধবীর সঙ্গে নেইমারের মত-পার্থক্য তৈরি হয়েছে। তবে ব্রুনাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি তা অস্বীকার করেন।

আসলে দুজনের কেউই বলতে চাইছেন না তাদের সম্পর্ক ভাঙার কারণ। তবে কিছু একটা নিয়ে যে মনোমালিন্য হয়েছে সেটা তো বলার অপেক্ষা রাখে না। না হলে আবেগপ্রবণ নেইমার এক ঝটকায় ছয় বছরের সম্পর্ককে 'না' করে দেওয়ার মানুষ নন। তবে দু'জনের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছে, বিশ্বকাপ চলাকালীন নিজের বোনের সঙ্গে নেইমারকে জড়িয়ে সংবাদমাধ্যমে বিভিন্ন আপত্তিকর সংবাদ প্রকাশ হয়। তখন থেকেই বান্ধবীর সঙ্গে একটা দূরত্ব তৈরি হয়। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে অনেকবার বাকবিতণ্ডাও হয়েছে। সেটারই শেষ পরিণতি এই বিচ্ছেদ। বোনকে নিয়ে ব্রুনা এমন প্রশ্ন করেন যা নেইমার মেনে নিতে পারেননি। এরপরই নেইমার সম্পর্ক না রাখার সিদ্ধান্ত নেন। ব্রুনা অবশ্য সেই ঘটনার জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন, তবে ছেড়া মালা আর জোড়া লাগেনি। বিষয়টা উভয়ের জন্যই বিব্রতকর হওয়ায় তারা কেউই বিচ্ছেদের কারণ জানাতে চাইছেন না।  তবে এ নিয়ে নেইমারের কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে ক্লাবের জার্সিতে এখন কেরিয়ারের গুরুত্বপূর্ণ সময় পার করছেন ব্রাজিলিয়ান তারকা। বিশ্বকাপে জাতীয় দলের জার্সিতে ব্যর্থ হওয়ার পরে পিএসজি-র হয়ে নিজেকে প্রমাণ করতে মরিয়া বিষ্ময়বালক। আর এই সময়েই বান্ধবীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি। বিষয়টা তার কেরিয়ারে প্রভাব ফেলবে কিনা সেটাই দেখার বিষয়।

সম্পর্কিত খবর