চলে গেলেন মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস লেখক গীতা মেহতা

সংগৃহীত ছবি

চলে গেলেন মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস লেখক গীতা মেহতা

অনলাইন ডেস্ক

মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের লেখক এবং ভারতের ওড়িশা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়কের বড় বোন গীতা মেহতা আর নেই। শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) ভারতের রাজধানী দিল্লির বাসভবনে বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার কারণে মারা যান তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। রোববার (১৭ সেপ্টেম্বর) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

৮০ বছর বয়সী গীতা মেহতা মৃত্যুকালে তার ছেলেকে রেখে গেছেন। আর তার প্রকাশক স্বামী সনি মেহতা আগেই মারা গেছেন। বিশিষ্ট লেখক, তথ্যচিত্র নির্মাতা এবং সাংবাদিক গীতা মেহতা ছিলেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক এবং ব্যবসায়ী প্রেম পট্টনায়কের বড় বোন।
 
১৯৪৩ সালে বিজু পট্টনায়ক ও জ্ঞান পট্টনায়কের কোল আলো করে দিল্লিতে জন্ম হয়েছিল গীতার।

ভারতের পড়াশোনা শেষ করে ইউকের কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নিজের উচ্চশিক্ষা সম্পন্ন করেন গীতা। তাঁর লেখা একাধিক গ্রন্থ ব্যাপকভাবে সমাদৃত। ‘কর্ম কোলা’, 'স্নেক', 'ল্যাডার', 'এ রিভার সূত্র', 'দ্য ইটারনাল গণেশা'- এমন বহু ধরনের বই তিনি লিখেছেন।  

ভারতীয় বার্তা সংস্থা আইএএনএস বলছে, গীতা মেহতা ১৯৭০-৭১ সালে আমেরিকান টেলিভিশন নেটওয়ার্ক এনবিসিতে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে যুদ্ধ সংবাদদাতা হিসেবে কাজ করেছিলেন। আর তার সেই অভিজ্ঞতা থেকে তিনি তার বহুল প্রশংসিত তথ্যচিত্র ‘ডেটলাইন বাংলাদেশ’-এ বর্ণনা করেছেন।

এদিকে গীতা মেহতার প্রয়াণে ভারতের সব মহলে শোকের ছায়া নেমে আসে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, গীতা মেহতার প্রয়াণে শোক বার্তা পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। প্রধানমন্ত্রী লেখেন, 'শোকাহত'। নিজের শোকবার্তায় মোদি লেখেন, ‘তিনি একজন বহুমুখী ব্যক্তিত্ব ছিলেন, তার বুদ্ধিমত্তা এবং লেখালেখির পাশাপাশি চলচ্চিত্র নির্মাণের প্রতি আগ্রহের জন্য পরিচিত।

তিনি প্রকৃতি এবং পানি সংরক্ষণ সম্পর্কে উৎসাহী ছিলেন। ’

news24bd.tv/আইএএম

এই রকম আরও টপিক