ফিফটিতেই শেষ শ্রীলঙ্কা

সংগৃহীত ছবি

ফিফটিতেই শেষ শ্রীলঙ্কা

অনলাইন ডেস্ক

এশিয়া কাপের ফাইনালে বড় প্রত্যাশা নিয়ে শুরুতে ব্যাটিং নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। কিন্তু ব্যাট করতে নামতেই তাদের শুরুটা হলো দুঃস্বপ্নের মতো। এক ওভারের গতি ঝড়ে লন্ডভন্ড হয়ে পড়েছে লঙ্কানদের ব্যাটিং। পেসার মোহাম্মদ সিরাজ চতুর্থ ওভারে ৪ উইকেট নিয়ে শুরুতেই স্বাগতিকদের ব্যাটিংয়ে ধস নামিয়েছেন।

ষষ্ঠ ওভারে আবার আঘাত করে তুলে নিয়েছেন ম্যাচের পঞ্চম উইকেট। তাতে ১২ রানে পড়ে শ্রীলঙ্কার ৬ উইকেট! মাঝে কুশল মেন্ডিস প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলে তাকেও বোল্ড করেছেন তিনি। এদিন সিরাজের ৬ উইকেটে ১৫.২ ওভারে ৫০ রানে গুটিয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে এর আগে সর্বনিম্ন ৪৩ রানে গুটিয়ে যাওয়ার রেকর্ড রয়েছে তাদের।
এশিয়া কাপের অষ্টম শিরোপা জয়ের জন্য ভারতের প্রয়োজন ৫১ রান। ভারতের হয়ে ৬ উইকেট নিয়েছেন বল হাতে আগুন ঝরানো সিরাজ। ৩ উইকেট নেন হার্দিক। অন্যদিকে ১ উইকেট তুলেছেন বুমরাহ।   

ফাইনালের মতো মঞ্চে এমন সূচনা মোটেও প্রত্যাশিত নয়। কিন্তু ভারতের পেসারদের সামনে লঙ্কানরা শুরুতে দাঁড়াতেই পারেনি। তৃতীয় বলে কুশল পেরেরাকে শূন্যরানে গ্লাভসবন্দি করিয়েছেন জসপ্রীত বুমরা। তার পর চতুর্থ ওভারে সিরাজ বোলিংয়ে এলে হতশ্রী হয়ে পড়ে লঙ্কানদের ব্যাটিং। প্রথম বলে পাথুম নিসাঙ্কাকে (২) তালুবন্দি করিয়েছেন। এক বল বিরতি দিয়ে পর পর তুলে নিয়েছেন সাদিরা সামারাবিক্রমা (০) ও চারিথ আসালাঙ্কার উইকেট (০)। তাতে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও জেগেছিল। সেটি হয়তো হয়নি। কিন্তু এক বল বিরতি দিয়ে ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার উইকেট (৪) তুলে নিয়ে শুরুতেই লঙ্কানদের খাদের কিনারে ঠেলে দিয়েছেন তিনি। তাতে ১২ রানে পড়ে পঞ্চম উইকেট।  

এক ওভার বিরতি দিয়ে আবার বল করতে এসে অধিনায়ক দাশুন শানাকাকে বোল্ড করেছেন সিরাজ। তাতে একই স্কোরে পড়েছে লঙ্কানদের ষষ্ঠ উইকেট!  

ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টায় কিছুক্ষণ আগলে থাকার চেষ্টা করেছেন কুশল মেন্ডিস। তাতে ভেল্লালাগের সঙ্গে মিলে ২১ রান যোগ করেছেন। কিন্তু শক্ত ছিল না সেই প্রতিরোধ। ৩৩ রানে মেন্ডিসকে বোল্ড করে সেই প্রতিরোধটাও ভেঙে দিয়েছেন সিরাজ। পরের ওভারে ভেল্লালাগেকে পান্ডিয়া ফিরিয়ে দিলে এটা নিশ্চিত হয়ে যায় যে শেষটা বেশি দূর গড়াচ্ছে না।   

এশিয়া কাপের ফাইনালে শুরুতে ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কা
এশিয়া কাপে সবচেয়ে বেশি ১২বার ফাইনাল খেলেছে শ্রীলঙ্কা। ওই তুলনায় ভারত দশবার। তবে শিরোপা সংখ্যায় ভারত-ই এগিয়ে। তারা সাতবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, শ্রীলঙ্কা ছয়বার। শিরোপায় ভারতকে স্পর্শ করার লক্ষ্য নিয়ে টস জিতে আজ কলম্বোয় ব্যাটিং নিয়েছে লঙ্কান দল। তবে টস করার পরই শুরু হয় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। তাতে নির্ধারিত সময় বিকাল সাড়ে ৩টায় ম্যাচ শুরু করা যায়নি। লঙ্কান দল ব্যাট করতে নেমেছে ৪০ মিনিট পর।   

প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে শুষ্ক উইকেট দেখে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দাশুন শানাকা। সন্ধ্যার পর বল টার্ন করার বিষয়টিও এক্ষেত্রে প্রভাব ফেলেছে।

বাংলাদেশের বিপক্ষে অক্ষর প্যাটেল চোট পাওয়ায় ওয়াশিংটন সুন্দরকে এক রাতের ব্যবধানে উড়িয়ে এনেছে ভারত। দলে যোগ দিয়ে একাদশেও স্থান পেয়েছেন তিনি। বিশ্রামে থাকা কোহলি, পান্ডিয়া, বুমরা, কুলদীপ, সিরাজরা দলে ফিরেছেন। বাদ পড়েছেন শার্দুল, সামি।     

লঙ্কান দলেও চোট হানা দিয়েছিল। মাহিশ থিকশানা ছিটকে যাওয়ায় লেগ স্পিনার দুশান হেমন্থকে স্থান দেওয়া হয়েছে। লঙ্কান দলে এই একটিই পরিবর্তন।  

ভারতের একাদশ: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শুবমান গিল, বিরাট কোহলি, লোকেল রাহুল, ইশান কিশান, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, ওয়াশিংটন সুন্দর, জসপ্রিত বুমরা, কুলদীপ যাদব, মোহাম্মদ সিরাজ।

শ্রীলঙ্কা একাদশ: পাথুম নিসাঙ্কা, কুশল পেরেরা, কুশল মেন্ডিস (উইকেটরক্ষক), সাদিরা সামারাবিক্রমা, চারিথ আসালাঙ্কা, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা, দাশুন শানাকা (অধিনায়ক), দুনিথ ভেল্লালাগে, দুশান হেমন্থ, মাথিশা পাথিরানা ও প্রমোদ মাদুশান।

news24bd.tv/AA

পাঠকপ্রিয়