দ্বিতীয় দফায় ভারত গেল ১০ টন ইলিশ

সংগৃহীত ছবি

দ্বিতীয় দফায় ভারত গেল ১০ টন ইলিশ

অনলাইন ডেস্ক

দুর্গাপূজা উপলক্ষে দ্বিতীয় দফায় বরিশাল নগরীর পোর্ট রোড মোকাম থেকে ভারতে পাঠানো হয়েছে ১০ টনের বেশি ইলিশ। শুক্রবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাতে দুই রপ্তানিকারকের মাধ্যমে এ ইলিশ পাঠানো হয়।

এর মধ্যে বরিশাল জেলা মৎস্য আড়তদার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নীরব হোসেন টুটুল পাঠিয়েছেন আট টন ইলিশ। এছাড়া ঢাকার জে জে এন্টারপ্রাইজের মাধ্যমে ৬০ মণ (দুই টনের বেশি) ইলিশ পাঠিয়েছেন পোর্ট রোড মোকামের ব্যবসায়ী খান হাবিব।

জানা যায়, দ্বিতীয় চালানে পাঠানো মাছের দাম স্থানীয় বাজারের চেয়ে কম। ভারতে রপ্তানি করা ৬০০ থেকে ৯০০ গ্রাম সাইজের ইলিশ শুক্রবার নগরীর পোর্ট রোড বাজারে ৫৮ হাজার টাকা প্রতিমণ বিক্রি হয়েছে। সেই হিসাবে প্রতিকেজি বিক্রি হয়েছে ১ হাজার ৪৫০ টাকা। আর ভারতে পাঠানো ইলিশের প্রতিকেজির দাম পড়ছে ১০ ডলার হিসেবে ১ হাজার ১০০ টাকা।

রপ্তানিকারক নীরব হোসেন টুটুল বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে নদীতে ইলিশ নেই। সাগরেও ট্রলার যেতে পারছে না। পোর্ট রোডেও ইলিশের সংকট রয়েছে। তাই রপ্তানির জন্য ইলিশ কিনতে ঝামেলায় পড়তে হচ্ছে। ইলিশ সংকট থাকায় আট টন পাঠানো হয়েছে।

পোর্ট রোডের ব্যবসায়ী খান হাবিব বলেন, ঢাকার জে জে এন্টারপ্রাইজের মাধ্যমে পোর্ট রোড থেকে ৬০ মণ ইলিশ রাতে ভারতে পাঠানো হয়েছে।

পোর্ট রোডের ব্যবসায়ী মো. মামুন জানান, শুক্রবার পোর্ট রোড বাজারে এলসি সাইজের ইলিশ ৫৮ হাজার, কেজি সাইজের ইলিশ ৬৩ হাজার, এক কেজি ২০০ গ্রাম সাইজের ইলিশ ৬৮ হাজার ও দেড় কেজি সাইজের ইলিশ ৭৬ হাজার টাকা প্রতিমণ বিক্রি হয়েছে।

ইলিশ সংকটের কারণে দাম বেড়ে গেছে জানিয়ে ব্যবসায়ীরা বলছেন, অন্য বছর ইলিশের এ ভরা মৌসুমে মোকামে প্রতিদিন কোটি টাকার বাণিজ্য হতো। এখন সেখানে ৪০ থেকে ৫০ লাখ টাকার মাছ বিক্রি হয়।

news24bd.tv/কেআই

এই রকম আরও টপিক