ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিনেও দেশজুড়ে সীমাহীন দুর্ভোগ
ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিনেও দেশজুড়ে সীমাহীন দুর্ভোগ

পরিবহন ধর্মঘটে নোয়াখালীর একটি ফাকা রাস্তা

ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিনেও দেশজুড়ে সীমাহীন দুর্ভোগ

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

সংসদে পাসকৃত ‘সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮’-এর বিভিন্ন ধারা সংশোধনসহ ৮ দফা দাবিতে দেশব্যাপী ৪৮ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন চলছে আজ। সড়কে নেই গণপরিবহন। চরমে উঠেছে জনভাগান্তি। দূরপাল্লার যাত্রীরা যেমন অতি জরুরি কাজেও কোথাও যেতে পারছেন না, তেমনি রাজধানীসহ বিভিন্ন শহরে কর্মজীবী মানুষগুলোও কর্মক্ষেত্রে যাওয়া-আসায় সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছেন।

দুই দিনের ধর্মঘটে পুরো দেশ যেন স্থবির হয়ে পড়েছে।

গতকাল ধর্মঘটের প্রথম দিনে ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে বের হওয়া অনেক চালকের মুখে পোড়া মোবিল লাগিয়ে দেয়। অ্যাম্বুলেন্স আটকে দেওয়ায় সাত দিনের একটি শিশু পথেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। এমন নানা অনাকাঙিক্ষত ঘটনার পর আজ চলছে দ্বিতীয় দিনের ধর্মঘট। আজও পরিবহন শ্রমিকদের কাছে অসহায় সারা দেশের মানুষ।

প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন

যশোর: বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকা ৪৮ ঘন্টা পরিবহন ধর্মঘটের শেষ দিনেও যশোরে যাত্রী ভোগান্তি চরমে। মানুষ ঘর থেকে বের হয়ে যেতে পারছে না গন্তব্যস্থলে। ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকলেও মিলছে না কোন যানবাহন। অপেক্ষা করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়ছেন যাত্রীরা। শ্রমিকরা তাদের দাবি আদায়ের জন্য রয়েছে কঠোর অবস্থানে। নিতান্ত প্রয়োজনে কেউ গাড়ি নিয়ে বের হলে তাদেরকে আটকে দিচ্ছে শ্রমিকেরা। চালকদেরকে মারধর করছে তারা। তারা কোন গাড়িই রাস্তায় চলতে দিচ্ছে না। ফলে ক্রমেই যাত্রীদের ভোগান্তি বেড়ে চলেছে।

সুনামগঞ্জ: ধর্মঘটের ফলে সোমবার সুনামগঞ্জ থেকে দূরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যায়নি এবং সুনামগঞ্জ শহরে প্রাইভেট গাড়ি, এমনকি ছোট ছোট যানবাহনও চলাচল করতে দিচ্ছে না শ্রমিকরা। ফলে সাধারণ মানুষকে পড়তে হয়েছে নানা সমস্যায়। পরিবহন ধর্মঘট উপলক্ষে সুনামগঞ্জ শহরের পুরাতন বাসস্টান্ডে একটি সমাবেশ করেছে পরিবহন শ্রমিকরা। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের জেলা শাখার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমদের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি সেজাউল কবির, জেলা বাস-মিনিবাস চালক সমিতির সভাপতি সেতু মিয়া, সিনিয়র সদস্য ইসলাম মিয়া  প্রমুখ।
 

নোয়াখালী: নোয়াখালীতে পরিবহন ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিনেও দূরপাল্লার ভারি যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। অফিস-আদালত, ব্যাংক, বীমা সহ গুরুত্বপূর্ণ অফিস খোলা থাকলেও উপস্থিতি কম দেখা গেছে। জেলা শহর থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লাসহ দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ লোকজন। অভ্যন্তরীণ সড়কগুলোতে রিকশার পাশাপাশি সীমিত আকারে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলাচল করছে।
  
নোয়াখালী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম সরদার জানান, রাস্তা ঘাটে জনগণ হয়রানির শিকার হচ্ছে। অফিস-আদালতে নিদিষ্ট সময়ে উপস্থিত হতে বিলম্ব হচ্ছে ।  তবুও মানুষ অফিস করছে।

ফেনী: ধর্মঘটের কারণে সোমবার দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চলাচল করছে না কোন যানবাহন। ফেনী থেকে ছাড়ছে না দূরপাল্লার কোন বাস। মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে আড়াআড়ি করে গাড়ি দাঁড় করিয়ে সড়ক অবরোধ করে রেখেছে শ্রমিকরা। বাস চলাচল না করায় ফেনী থেকে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন রুটে চলাচলকরী যাত্রীদের দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। মহাসড়কের পাশাপাশি শহরের অভ্যন্তরেও কোন গাড়ি চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছে না।

ঝিনাইদহ: পরিবহণ ধর্মঘটের নামে চলছে সড়ক অবরোধ। সকাল থেকে শহরের আরাপপুর বাসস্ট্যান্ড, টার্মিনাল, চুয়াডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড, হামদহসহ বিভিন্ন স্থানে অবস্থান করছে শ্রমিকরা। বন্ধ রয়েছে জেলা থেকে স্থানীয় ও দূরপাল্লার সকল যানচলাচল। শ্রমিকরা রাস্তায় অবস্থান করে বন্ধ করে দিয়েছে ইজিবাইক এমনকি ব্যাটারিচালিত ভ্যান। মারধর করা হচ্ছে ইজিবাইক চালকদের আর হাওয়া ছেড়ে দিচ্ছে ভ্যানের। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ। যানবাহন না পেয়ে হেটে গন্তব্যে যাওয়ার চেষ্টা করছেন অনেকে।

সম্পর্কিত খবর