ইসরায়েল গাজায় যুদ্ধাপরাধ করছে: কাতারকে ইরান

ইসরায়েল গাজায় যুদ্ধাপরাধ করছে: কাতারকে ইরান

অনলাইন ডেস্ক

গাজা উপত্যকার ওপর ইসরায়েলের ভয়াবহ আগ্রাসন ইস্যুতে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান ইরাক, লেবানন, সিরিয়া ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সফর করেছেন। অন্যদিকে ইরানের প্রেসিডেন্ট সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রায়িসি মধ্যপ্রাচ্যের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ওমানের সুলতানের সঙ্গে কথা বলার পর শনিবারই কাতারের আমিরের সঙ্গে শলাপরামর্শ করেছেন প্রেসিডেন্ট সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রায়িসি।

তিনি অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার ওপর ইসরায়েলের ভয়াবহ বোমাবর্ষণকে ‘যুদ্ধাপরাধ’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

এ গণহত্যা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, ইসরায়েলি নেতাদের গত কয়েকদিনের কথাবার্তা ও আচরণ সরাসরি যুদ্ধারপরাধ হিসেবে গণ্য এবং এসব অপকর্ম আন্তর্জাতিক আইনেরও সরাসরি লঙ্ঘন। দখলদার সরকারের এই অপরাধযজ্ঞ অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে বলেও তিনি সতর্ক করে দেন।

ইসরায়েল ফিলিস্তিনি জনগণের বিরুদ্ধে যে অপরাধযজ্ঞ চালাচ্ছে আমেরিকাসহ অন্যান্য পশ্চিমা দেশকে তার অংশীদার বলে উল্লেখ করেন প্রেসিডেন্ট রায়িসি।

তিনি বলেন, ফিলিস্তিন পরিস্থিতি সুস্পষ্টভাবে একথা প্রমাণ করে যে, পশ্চিমারা মানবাধিকার সম্পর্কে মুখে যে দাবি করে তার সঙ্গে বাস্তবতার কোনো মিল নেই।

মানবাধিকারকে তারা অন্য দেশের ওপর চাপ প্রয়োগের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে।

ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আল-আকসা তুফান’ অভিযান প্রমাণ করেছে, ফিলিস্তিনি জাতির অধিকারকে উপেক্ষা করে মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব নয়। ইহুদিবাদীদের অপরাধী কার্যকলাপকে আন্তর্জাতিক আদালতে নিয়ে যেতে হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

ফোনালাপে গাজায় ইসরায়েলি অপরাধযজ্ঞ বন্ধ করে ফিলিস্তিনি জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে তেহরান-দোহা সহযোগিতার ওপর জোর দেন কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আলে সানি।

তিনি বলেন, পশ্চিমা গণমাধ্যম ফিলিস্তিন পরিস্থিতি সম্পর্কে মিথ্যা ও উল্টো চিত্র তুলে ধরার চেষ্টা করছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও বিশ্বের স্বাধীনচেতা মানুষের সমর্থন ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে রয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

news24bd.tv/Towhid/FA

পাঠকপ্রিয়