দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে লড়াই করে হারলো পাকিস্তান

সংগৃহীত ছবি

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে লড়াই করে হারলো পাকিস্তান

অনলাইন ডেস্ক

সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আজ কার্যত জয়ের বিকল্প ছিল না পাকিস্তানের। এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শেষ পর্যন্ত লড়াই করে হেরে গেল পাকিস্তান। পাকিস্তানের দেয়া ২৭০ রানের টার্গেট নিয়ে মাঠে নামে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৯ ইউকেট হারিয়ে শেষের দিকে বিপদে পড়ে গেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা।

অবশেষে ১ ইউকেটের জয় পেয়েছে তারা।

শুক্রবার (২৭ অক্টোবর) চেন্নাইয়ের এম. চিদাম্বরাম স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাটিং করে অধিনায়ক বাবর আজম ও সৌদ শাকিলের জোড়া হাফসেঞ্চুরিতে ২৭০ রান সংগ্রহ করে পাকিস্তান। জবাবে দক্ষিণ আফ্রিকা এইডেন মার্করামে ৯১ রানে ভর করে ১৬ বল ও ১ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয়। এ হারের ফলে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের সেমিতে খেলার স্বপ্ন কার্যত শেষ হয়ে গেল।

এমন ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে প্রোটিয়া বোলারদের দাপটে নির্ধারিত সময়ের আগেই অলআউট হয়ে গেছে পাকিস্তান। তবে অধিনায়ক বাবর আজম ও সৌদ শাকিলের হাফসেঞ্চুরিতে ২৭০ রানের লড়াকু পুঁজি সংগ্রহ করেছে ম্যান ইন গ্রিনরা।

এদিন টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে বরাবরের মতোই উদ্বোধনী জুটি পাকিস্তানকে বড় সংগ্রহ এনে দিতে ব্যর্থ দুই ওপেনার আব্দুল্লাহ শফিক ও ইমাম উল হক। প্রথম পাওয়ার প্লেতেই দলীয় ৩৮ রানের মধ্যেই বিদায় নেন তারা। পাকিস্তানের বিপদের মধ্যে তৃতীয় উইকেটে ৪৮ রানের জুটি গড়েন বাবর-রিজওয়ান।

দলীয় ৮৬ রানে রিজওয়ানকে উইকেটের পেছনে ডি ককের ক্যাচ বানিয়ে জুটি ভাঙেন কোয়েটজি। চতুর্থ উইকেটে ইফতিখারকে নিয়ে বাবর ৪৩ রানের জুটি গড়েন। দলীয় ১২৯ রানে তাবরাইজ শামসির বলে ক্লাসের দুর্দান্ত ক্যাচে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন ইফতিখার।

১২ রান পর দলীয় ১৪১ রানে বিদায় নেন অধিনায়ক বাবর আজম। তার আগে বাবর ৬৫ বলে ৪ চার ও ১ ছয়ে ৫০ রানের ইনিংস উপহার দেন। শেষ দিকে সৌদ শাকিল ও শাদাব খানের ৭১ বলে ৮৪ রানের জুটিতে আড়াইশো পেরোয় পাকিস্তানের ইনিংস।

শাদাব ৪৩ রান করে ফিরলেও সৌদ শাকিল ঠিকই ফিফটি তুলে নেন। তবে ৫২ রান করেই বিদায় নেন তিনি। এতে ৪৬ দশমিক ৪ ওভারেই ২৭০ রানে অলআউট হয়ে যায় পাকিস্তান।

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে তাবরাইজ শামসি সর্বোচ্চ ৪ উইকেট শিকার করে পাকিস্তানের ব্যাটিংয়ে একাই ধস নামান। এ ছাড়া পেসার মার্কো জানসেন তিনটি ও জেরাল্ড কোয়েটজে দুটি উইকেট লাভ করেন।

news24bd.tv/কেআই

পাঠকপ্রিয়