চুরির দশ বছর পর চিরকুটসহ টাকা ফেরত দিলো চোর

চুরির দশ বছর পর চিরকুটসহ টাকা ফেরত দিলো চোর

নিজস্ব প্রতিবেদক

চুরির দশ বছর পর চিরকুট লিখে চুরি করা টাকা ফেরত দিলো চোর। অবিশ্বাস্য হলেও ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুরের মধুখালীতে এক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে।

প্রতিষ্ঠান থেকে চুরির দশ বছর পর চিরকুটসহ টাকা ফেরত দেয় ওই চোর। ঘটনাটি বুধবার (১ নভেম্বর) সকালের।

স্থানীয়রা জানায়, মধুখালী উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের বাঙ্গাবাড়িয়া বাজার পোল্ট্রি ব্যবসায়ী কাইয়ুম মৌলিক দীর্ঘদিন বাজারে ব্যবসা করে আসছেন।

প্রতিদিনের মতো বুধবার সকালে দোকান খুলতে গিয়ে তিনি দোকানের সামনে একটা চিরকুট ও একটা খাম দেখতে পান। খামের মধ্যে তিন হাজার টাকা ও একটা চিরকুট লেখা দেখতে পান।

চিরকুটে লেখা, 'আমি প্রায় দশ বছর আগে আপনার দোকান থেকে ২০০০, ২৫০০, ৩০০০ বা ৪০০০ টাকার মতো চুরি করেছিলাম।

টাকার পরিমাণ আমার সঠিক মনে নেই। যেহেতু আপনি ৫ ওয়াক্ত নামাজ কালাম পড়েন আপনি অবশ্যই জানেন যে, আল্লাহ তাকে ক্ষমা করেন যে অন্যকে ক্ষমা করে। ১২-১৩ বছর পর আপনাকে সামান্য টাকাটা দিয়ে আমি আপনার কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। জানি এই সামান্য টাকা আপনার কিছুই হবে না। তাও এই টাকাটা গ্রহণ করে আমাকে আল্লাহর ওয়াস্তে মাফ করে দিন। এই আসায় আপনাকে ৩০০০ টাকা পাঠালাম দয়া করে এটি নিয়ে আমাকে ক্ষমা করে দিন। '

টাকা ফেরত পেয়ে ব্যবসায়ী কাইয়ুম মৌলিক বলেন, প্রতিদিনের মতো বুধবার সকালে দোকান খুলে শাটারের পাশেই দেখি একটা খাম পড়ে আছে। আমি উঠিয়ে দেখি খামের মধ্যে চিঠির মতো। চিঠিটা খুলে দেখি একটি চিরকুট এবং ৩ হাজার টাকা। এই মহান ব্যক্তিকে আমি মন থেকে দোয়া করি তিনি সুখে থাকুন, আমি তাকে মাফ করে দিয়েছি আল্লাহ যেন তাকে মাফ করে দেন।

রায়পুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন বলেন, বিষয়টি জানতে পেরেছি। আসলে তিনি চোর হলেও তার শুভ বুদ্ধির উদয় হয়েছে। বিষয়টি আশ্চর্যজনক হলেও সত্য।

news24bd.tv/FA

এই রকম আরও টপিক