বাসে-ট্রেনে-ফেরিতে খুলনামুখী জনস্রোত

সংগৃহীত ছবি

বাসে-ট্রেনে-ফেরিতে খুলনামুখী জনস্রোত

অনলাইন ডেস্ক

খুলনা পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। খুলনার সার্কিট হাউজ ময়দানে বিকাল ৩টায় আওয়ামী লীগ জনসভায় ভাষণ দেবেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে মিছিলের নগরীতে পরিণত হয়েছে খুলনা। সকাল থেকে বাসে-ট্রেনে-ফেরিতে হাজার হাজার মানুষ প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যোগ দিতে খুলনার দিকে ছুটে আসছেন।

 

বিশেষ করে মহানগরী এবং পাশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে অনেককে বাসে করে খুলনায় আসতে দেখা গেছে। জনতা আসছেন লঞ্চ ও ফেরিতে, আবার ট্রেনে করে এসে মিছিল নিয়ে জনসভায় যোগ দিচ্ছেন অনেকে।    

জনসভায় যোগ দিতে সোমবার ভোর থেকে খুলনার পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে আসতে শুরু করেন নেতাকর্মীরা। সকাল ১০টার দিকে কমলা রঙের গেঞ্জি এবং হলুদ কালারের ক্যাপ পরে বৃহৎ মিছিল নিয়ে জনসভায় প্রবেশ করেন মাশরাফি বিন মর্তুজার অনুসারীরা।

এ ছাড়া থেকে থেকে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা ভিন্ন ভিন্ন ব্যানারে মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীদের জনসভাস্থলে প্রবেশ করতে দেখা যায়।

এদিকে সার্কিট হাউস মাঠে নৌকা ও পদ্মা সেতুর আদলে নির্মাণ করা হয়েছে ৯০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৪০ ফুট প্রস্থের মঞ্চ। প্রায় ৪০০ অতিথি মঞ্চে বসার ব্যবস্থা রয়েছে। জনসভায় খুলনা বিভাগের ১০ জেলা থেকে ১০ লাখ নেতাকর্মী যোগ দেবেন বলে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়েছে।

সকাল পৌনে ১১টায় সমাবেশ মঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু করেন স্থানীয় শিল্পীরা। বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশকে উপজীব্য করে একক ও যৌথ পরিবেশনা উপস্থাপন করে যাচ্ছেন তারা।
 


এর আগে প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়। গোটা শহর ব্যানার-পোস্টারে ছেয়ে ফেলা হয়। বিভিন্ন সড়কে তোরণ বানানো হয়। জেলা-উপজেলায় উন্নয়নের প্রচারপত্র বিলি করা হয়। সরকারি-বেসরকারি অফিস আলোকসজ্জা করা হয়।  

জনসভাস্থল থেকে খুলনার ২২টি প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী খুলনা জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠানো তালিকায় মোট ২২টি উদ্বোধনযোগ্য প্রকল্প আছে। এর মধ্যে গণপূর্ত বিভাগের আটটি; স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের ১০টি, সুন্দরবন পর্যটন উন্নয়নে একটি, কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের একটি এবং সিটি করপোরেশন ও শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের একটি করে প্রকল্প উদ্বোধন করবেন।

news24bd.tv/আইএএম