ভারতের লোকসভা থেকে বহিষ্কার তৃণমূল নেত্রী মহুয়া মৈত্র

তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মহুয়া মৈত্র

ভারতের লোকসভা থেকে বহিষ্কার তৃণমূল নেত্রী মহুয়া মৈত্র

অনলাইন ডেস্ক

ভারতের লোকসভা থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মহুয়া মৈত্রকে। অর্থের বিনিময়ে সংসদে প্রশ্ন করার অভিযোগে শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) তাকে বহিষ্কার করা হয়। খারিজ করা হয়েছে তার সংসদ সদস্যপদ।

শুক্রবার লোকসভায় ব্যাপক আলোচনা ও কণ্ঠভোটের পর স্পিকার ওম বিরলা বলেন, ‘মহুয়া মৈত্র অসৎ ও অনৈতিক কাজ করেছেন বলে (এথিকস) কমিটি যে সুপারিশ করেছে, তা গ্রহণ করছে সংসদ।

অতএব একজন সংসদ সদস্য হিসেবে তাঁর কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। ’

মহুয়ার বিরুদ্ধে ঘুষের বিনিময়ে সংসদে প্রশ্ন করার অভিযোগ তুলেছিলেন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) সাংসদ নিশিকান্ত দুবে। সংসদীয় ভাষায় একে বলা হয়, ক্যাশ-ফর-কোয়ারি (অর্থের বিনিময়ে প্রশ্ন)।  

তবে মহুয়া তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, তাকে “কোনও প্রমাণ ছাড়াই” বহিষ্কার করা হয়েছে।

এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতে আবেদন করতে পারবেন মহুয়া।

মহুয়া মৈত্রর সংসদ সদস্যপদ খারিজ হওয়াটা অগ্রহণযোগ্য মন্তব্য করে এর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘বিজেপির এ ধরনের প্রতিহিংসার রাজনীতি গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। এই লড়াইয়ে মহুয়া জয়ী হবেন। জনগণই এর বিচার করবেন। আগামী (লোকসভা) নির্বাচনে তারা (বিজেপি) পরাজিত হবে। ’

মহুয়া মৈত্রর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি সরকারের সমালোচনা করে লোকসভায় প্রশ্ন করার বদলে শিল্পপতি দর্শন হীরানন্দানির কাছ থেকে নগদ দুই কোটি রুপি এবং দামি উপহারসামগ্রী নিয়েছেন। তবে শুরু থেকেই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিলেন মহুয়া মৈত্র ও তাঁর দল তৃণমূল কংগ্রেস।

২০০৯ সালে মহুয়া চাকরি ছেড়ে যোগ দিয়েছিলেন ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের যুব দলে। ২০১০ সালে তিনি দল বদলে তৃণমূলে যোগ দেন। ২০১৬ সালে নদিয়া জেলার করিমপুর আসন থেকে জয়ী হন।

news24bd.tv/DHL