চুয়াডাঙ্গায় পেঁয়াজ চাষে লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা

চুয়াডাঙ্গায় পেঁয়াজ চাষে লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা

জামান আখতার, চুয়াডাঙ্গা

চুয়াডাঙ্গায় কৃষকের উৎপাদিত পেঁয়াজ উঠতে শুরু করেছে। এতে বাজারে পেঁয়াজের দাম বেশি থাকায় লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা। কৃষি বিভাগ চাষীদের পরামর্শসহ প্রণোদনার মাধ্যমে পেঁয়াজ চাষে উদ্বুদ্ধ করছে। ফলে এ অঞ্চলে পেঁয়াজের আবাদও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

গত কয়েক বছর ধরে শীতের শুরুতেই পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যায়। এতে ভোক্তাদের বিপাকে পড়তে হয়। এ কারণে কৃষিতে সমৃদ্ধজেলা চুয়াডাঙ্গার চাষীরা পেঁয়াজ চাষে আগ্রহী হয়ে ওঠে বলে চুয়াডাঙ্গার কৃষি বিভাগের অভিমত।

অন্যদিকে কৃষিবিভাগও পেঁয়াজের চাষ বাড়াতে পদক্ষেপ নেয়।

ফলে চুয়াডাঙ্গা জেলায় আগের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি পরিমাণে পেঁয়াজের উৎপাদন হচ্ছে।

সদর উপজেলা ভালাইপুর গ্রামের পেঁয়াজচাষী আমির হামজা বলেন, অল্প খরচে বেশি লাভ এবং আমদানি নির্ভরতা কমাতে চুয়াডাঙ্গার চাষীরা ঝুঁকে পড়েন পেঁয়াজ চাষে। এতে লাভবান হচ্ছেন তারা।

কৃষকরা জানান, এক বিঘা জমিতে পেঁয়াজের চাষ করতে খরচ হয় ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা। অন্যদিকে ভালো জাতের পেঁয়াজ চাষ করলে বিঘাপ্রতি তিন লাখ টাকার পেঁয়াজ উৎপাদন সম্ভব।

চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, চলতি মৌসুমে চুয়াডাঙ্গা জেলায় প্রায় সাত হাজার বিঘা জমিতে পেঁয়াজের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে এক হাজার ৯০০ বিঘা জমিতে গ্রীষ্মকালীন পেঁয়াজের আবাদ হয়েছে। এসময় অন্তত এক হাজার ২০০ কৃষক সরকারি প্রণোদনার আওতায় পেঁয়াজ চাষ করেছেন। পেঁয়াজ চাষে কৃষকরা যেমন লাভবান হচ্ছেন, তেমনই দেশেও বাড়তি দামের পেঁয়াজের বাজারে প্রভাব পড়ছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আফরিন বিনতে আজিজ বলেন, চলতি বছরে পেঁয়াজ চাষীদের বাড়তি লাভ দেখে আগামী বছর অনেক কৃষক পেঁয়াজের চাষ করবেন বলে জানিয়েছেন। এখন থেকেই অনেকে সরকারি প্রণোদনার আওয়াত এসে পেঁয়াজ চাষে আগ্রহ প্রকাশ করছেন।

চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিভাস চন্দ্র সাহা জানান, সরকারের প্রণোদনার আওতায় ‘নাশিক রেড এন ৫৩’ জাতের পেঁয়াজ চাষে চাষীরা বিঘাপ্রতি ১০০ থেকে ১২০ মণ ফল পেয়েছেন। এ জেলায় প্রতি বছরই পেঁয়াজের চাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে। চলতি বছরে পেঁয়াজের উচ্চমূল্যের কারণে আগামীতে এ জেলায় পেঁয়াজের আবাদ আরও বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

news24bd.tv/তৌহিদ

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়