বিলকিস বানুর ধর্ষকদের মুক্তি দেয়নি ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

সংগৃহীত ছবি

বিলকিস বানুর ধর্ষকদের মুক্তি দেয়নি ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

অনলাইন ডেস্ক

২০০২ সালে ভারতের গুজরাট রাজ্যে হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গার সময়ে বিলকিস বানু নামের এক গর্ভবতী নারীকে ধর্ষণ এবং তার আত্মীয়দেরকে হত্যার অভিযোগে আজীবন দণ্ডপ্রাপ্ত ১১ জন আসামীর মুক্তির আবেদন নাকচ করে দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।

মামলার একজন আইনজীবী জানান, আদালত এই ১১ জনকে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আত্মসমর্পণ করার আদেশ দিয়েছে।

গুজরাটে দাঙ্গার সময়ে তিন মাসের গর্ভবতী বিলকিসকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করা হয় এবং তার তিন বছর বয়সী মেয়েসহ মোট সাতজন আত্মীয়কে হত্যা করা হয়। গুজরাটের এ দাঙ্গায় ১ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গিয়েছিলেন, যাদের মধ্যে অধিকাংশই ছিলেন মুসলিম।

দাঙ্গার সময়ে ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন এবং তার দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) এখনও গুজরাটে ক্ষমতাসীন রয়েছে।

২০০৮ সালে অভিযুক্ত এই ১১ জন আসামীকে ভালো ব্যবহার এবং কারাগারে ব্যয় করা সময় বিবেচনায় কারা কর্তৃপক্ষের করা আবেদনের প্রেক্ষিতে ২০২২ সালের আগস্ট মাসে গুজরাট সরকার মুক্তি দিয়েছিল। তাদের মুক্তিতে বিলকিস বানুর স্বামী, তার আইনজীবী এবং রাজনীতিবিদরা তীব্র নিন্দা জানান এবং সুপ্রিম কোর্টে তাদের মুক্তিকে রোহিত করতে একাধিক আবেদন পড়ে।

সোমবারের (৮ জানুয়ারি) রায়ে সুপ্রিম কোর্ট জানায়, মামলাটি মুম্বাইয়ের আদালতে স্থানান্তরিত হওয়ায় গুজরাট সরকার আসামিদেরকে মুক্তি দেয়ার ক্ষমতা রাখে না।

সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চ আরও জানায়, ২০২২ সালে গুজরাট সরকারকে আসামিদেরকে মুক্তি দেওয়া সংক্রান্ত সুপ্রিম কোর্টের রায়টি জাল করা হয়েছিল। গুজরাট সরকার মহারাষ্ট্র সরকারের ক্ষমতাকে হরণ করেছে, যা অবৈধ। মামলার ১১ জন আসামি সুপ্রিম কোর্টের রায়ের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি।

বিরোধী দল কংগ্রেস সুপ্রিম কোর্টের এ রায়কে অভিনন্দন জানিয়েছে। এক্সে (পূর্বে টুইটার) প্রকাশিত এক বার্তায় কংগ্রেসের প্রধান রাহুল গান্ধী বলেন, বিলকিস বানুর সংগ্রাম হচ্ছে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে ন্যায়ের বিজয়। বিজেপির চারজন সদস্যকে রায়ের ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তারা কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান।

news24bd.tv/ab