বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজের দুটি টেস্ট ঘিরে শঙ্কা

বাদ যেতে পারে জিম্বাবুয়ে সিরিজের দুটি টেস্ট। ফাইল ছবি

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজের দুটি টেস্ট ঘিরে শঙ্কা

অনলাইন ডেস্ক

ওয়ানডে বিশ্বকাপের ব্যর্থতার রেশ কাটতে না কাটতেই দুয়ারে হাজির আরও একটি বিশ্বকাপ। জুনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্রে হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সূচি এরই মধ্যে প্রকাশ করেছে আইসিসি। ১ জুন থেকে শুরু হবে বিশ্বকাপ। যেখানে ডি গ্রুপের কঠিন সূচি অপেক্ষা করছে টাইগারদের জন্য।

সময় আছে ছয় মাসের কম।

এদিকে আগামী ১৯ জানুয়ারি থেকে মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দশম আসর। দেশের সবচেয়ে প্রতীক্ষিত এই টুর্নামেন্টের পরপরই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলবে টাইগাররা। দীর্ঘ এক মাসের এই হোম সিরিজে দুটি টেস্ট এবং সমান তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলবে সাকিব বাহিনী।

অন্যদিকে একই সময়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগও চলবে। এরপর মে মাসে ঢাকায় আসবে জিম্বাবুয়ে। আইসিসির এফটিপি অনুযায়ী, বাংলাদেশের সঙ্গে রোডেশিয়ানদের দুটি টেস্ট ও পাঁচটি টি-টোয়েন্টি খেলার কথা রয়েছে।

তবে গুঞ্জন উঠেছে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মাথায় রেখে এই সিরিজ থেকে টেস্ট দুটি বাদ যেতে পারে। এতে বৈশ্বিক মহারণের জন্য বাড়তি কিছু সময় পাওয়া যেতে পারে।

এ প্রসঙ্গে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা প্রধান জালাল ইউনুসের ভাষ্য, টেস্ট বাদ দেওয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি। তবে এ রকম একটা আলোচনা আছে। টেস্ট দুটি খেলব তো নিশ্চয়ই। তবে কখন খেলব, সেই সিদ্ধান্ত এখনও নেইনি।

জানা গেছে, ছুটি শেষে আগামী ২০ জানুয়ারি ঢাকায় ফিরবেন টাইগারদের প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। লঙ্কান এই মাস্টার-মাইন্ড ঢাকায় ফেরার পরই চূড়ান্ত হবে বিশ্বকাপ প্রস্তুতির রূপরেখা।

সূত্র জানিয়েছে, বিশ্বকাপের কন্ডিশন বিবেচনায় কয়েকদিন আগেই সেখানে দল পাঠাবে বিসিবি। আর টেস্ট দুটি স্থগিত হলে সেই সুযোগ আরও প্রবল হবে। আর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলকেই বিশ্বমঞ্চে রেখে দেওয়ার পরিকল্পনা টিম ম্যানেজমেন্টের।

প্রথমবার ২০ দলকে নিয়ে আয়োজিত টুর্নামেন্টে ৪টি গ্রুপে ভাগ করে হবে প্রথম পর্ব। প্রতিটি গ্রুপে ৫টি করে দল রয়েছে। গ্রুপপর্ব চলবে ১৮ জুন পর্যন্ত। প্রতি গ্রুপ থেকে দুটি করে দল উঠবে সুপার এইটে।

ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে বড় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ‘ডি’ গ্রুপে পড়েছে বাংলাদেশ। এই গ্রুপে টাইগারদের সঙ্গে রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা, নেদারল্যান্ডস ও নেপাল।

বাংলাদেশ তাদের ৪টি ম্যাচের দুটি খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ আর অন্য দুটি খেলবে যুক্তরাষ্ট্রে। এর মধ্যে ৭ জুন ডালাসে বাংলাদেশের প্রথম প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ১০ জুন শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। দুইদিন বিরতির পর (১২ জুন) টাইগারদের তৃতীয় ম্যাচ নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে এবং ১৬ জুন গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে নেপালকে মোকাবিলা করবে লাল-সবুজেরা।

২৬ ও ২৭ জুন মাঠে গড়াবে আসরের দুটি সেমিফাইনাল ম্যাচ। যার একটি গায়ানায় এবং অপরটি ত্রিনিদাদে। সবমিলিয়ে ৯টি (যুক্তরাষ্ট্রের তিনটি এবং উইন্ডিজ মাটিতে ছয়টি) ভেন্যুতে হবে এবারের বিশ্বকাপ আসর। আগামী ২৯ জুন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বার্বাডোজে ফাইনাল দিয়ে আসরের পর্দা নামবে।

news24bd.tv/DHL