বিয়ের চারদিন পর নববধূর গলা কাটল স্বামী

হতভাগা নববধূ

বিয়ের চারদিন পর নববধূর গলা কাটল স্বামী

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলায় বিয়ের মাত্র চারদিন পর নববধূকে গলা কেটে হত্যা করেছে স্বামী। মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়নের হীরাপুর মধ্যপাড়ায় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটায়। ঘটনা টের পেয়ে বড় ভাই আব্দুল হানিফ এগিয়ে গেলে তাকেও ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় হামিদ।

এলাকাবাসী ও নববধূর স্বজনদের সূত্রে জানা গেছে, হীরাপুর গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফ মিয়ার প্রবাসী ছেলে আব্দুল হামিদের সাথে ৭/৮ মাস আগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নের বাসুদেব গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জামের মেয়ে তাছলিমা আক্তারের মোবাইল ফোনে বিয়ে হয়।

গত শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) দুই পরিবারের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্ত্রীকে বাড়িতে নিয়ে আসে আব্দুল হামিদ। এর মধ্যে একবার তাছলিমাকে নিয়ে শ্বশুর বাড়ি থেকে বেড়িয়ে আসে। বিয়ের পর থেকেই স্বামী-স্ত্রীর মাঝে দাম্পত্য কলহের সৃষ্টি হয়। তারই জের ধরে মঙ্গলবার দুপুরে ধারাল ছুরি দিয়ে তাছলিমাকে গলা কেটে হত্যা করে স্বামী হামিদুল।

এ সময় হামিদুলের বড় ভাই হানিফ বাধা দিলে তাকেও ছুরিকাঘাত করা হয়।

আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নূরে আলম জানান, গলাকাটা রক্তাক্ত অবস্থায় নববধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ ছিল। তবে ঘটনার পর থেকে স্বামী পলাতক রয়েছেন। তাকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান চলছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: দায়িত্ব পেয়েই ‌‘সাফ কথা’ জানিয়ে দিলেন গাজী আশরাফ

আরও পড়ুন: ২৫৫ কেজি ওজনের বাঘের মরদেহ উদ্ধার, ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

news24bd.tv/তৌহিদ

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়