সাংবাদিকের দ্বিখণ্ডিত মরদেহ সড়কে, পাশেই পড়ে ছিল মোটরসাইকেলটি

সাংবাদিক মনজুরুল ইসলাম

সাংবাদিকের দ্বিখণ্ডিত মরদেহ সড়কে, পাশেই পড়ে ছিল মোটরসাইকেলটি

অনলাইন ডেস্ক

বগুড়ার আদমদীঘির নওগাঁ-বগুড়া সড়কের মুরইল বাজার এলাকার জয় ফিলিং স্টেশনের পূর্ব পাশ থেকে এক সাংবাদিকের দ্বিখণ্ডিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার নাম মনজুরুল ইসলাম (৫৬)।

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ১১টার দিকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তাকে হত্যা করা হয়েছে নাকি অন্যকোনো ভাবে মারা গেছেন তা নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ বলছে ময়নাতদন্তের পর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

নিহত সাংবাদিক মনজুরুল ইসলাম আদমদীঘি প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক ভোরের কাগজের আদমদীঘি উপজেলা প্রতিনিধি ছিলেন। তিনি উপজেলার উজ্জ্বলতা গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত ১০টা পর্যন্ত গ্রামে একটি ক্লাবের অনুষ্ঠানে ছিলেন মনজুরুল। এরপর সেখানে রাতের খাবার খেয়ে মোটরসাইকেলে করে তার এক আত্মীয়কে দুপচাঁচিয়া উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামে রেখে বাড়ি ফেরার কথা ছিল তার। কিন্তু ১১টার দিকে স্থানীয় লোকজন সড়কের ওপর তার মরদেহ দ্বিখণ্ডিত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন এবং পুলিশে খবর দেন। তার মোটরসাইকেলটি সড়কের পাশে পড়ে ছিল।

মনজুরুলের ভাই মোশাররফ হোসেন বলেন, আমার ভাইয়ের মৃত্যু রহস্যজনক। সে সড়ক দুর্ঘটনায় নাকি ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে নিহত হয়েছে, সে বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।

আদমদীঘি প্রেস ক্লাবের সভাপতি হাফিজার রহমান বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় এভাবে শরীর দ্বিখণ্ডিত হওয়ার সুযোগ কম। ট্রেনে কেটে খণ্ডিত হয়ে মারা যাওয়ার মতো লাগছে যদিও। তবে মরদেহ দেখে মনে হচ্ছে, তাকে হত্যা করা হয়েছে।

আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজেশ কুমার চক্রবর্তী বলেন, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে। পরিবার থেকে অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

news24bd.tv/তৌহিদ

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়