যুদ্ধ ও অস্ত্র প্রতিযোগিতা বন্ধের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

যুদ্ধ ও অস্ত্র প্রতিযোগিতা বন্ধের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

৬০তম মিউনিক সিকিউরিটি কনফারেন্স

যুদ্ধ ও অস্ত্র প্রতিযোগিতা বন্ধের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বজুড়ে যুদ্ধ ও অস্ত্র প্রতিযোগিতা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ৬০তম মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনের জলবায়ু অর্থায়ন বিষয়ক প্যানেল আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকারপ্রধান এ আহ্বান জানান। সেই সঙ্গে তিনি বলেন, পরাশক্তিদের মধ্যে অস্ত্রের ঝনঝনানি কাম্য নয়।

বৈঠকে বাংলাদেশের মানব উন্নয়ন সূচকে উন্নতির কথা জানিয়ে কার্বন নিঃসরণ কমাতে উন্নত দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে জার্মানিতে আয়োজিত এ সম্মেলনে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় বিকেল ৪টা ৩৪ মিনিটের দিকে সরকারপ্রধানকে বহনকারী বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটটি দেশটির মিউনিখ বিমানবন্দরে অবতরণ করে। একই দিন সকাল ১১টা ১৩ মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে জার্মানির উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছিলেন তিনি।

সফরকালে সরকারপ্রধানের মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলন ছাড়াও জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শুলজ, ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রী মেট ফ্রেডেরিকসেন ও নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের সঙ্গে বৈঠকের কথা রয়েছে। পাশাপাশি ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর এবং মেটা গ্লোবাল অ্যাফেয়ার্সের প্রেসিডেন্ট নিক ক্লেগ প্রধানমন্ত্রীর স‌ঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ কর‌বেন।

 আরও পড়ুন : প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালকের বৈঠক

এছাড়াও সফরকালে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। জেলেনস্কি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করতে চেয়েছেন, এতে রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কে অবনতি বা দেশটির সঙ্গে সম্পর্কে প্রভাব পড়বে না।

আরও পড়ুন : প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে উইমেন পলিটিক্যাল লিডারস সভাপতির সৌজন্য সাক্ষাৎ

প্রসঙ্গত, মিউনিখ সিকিউরিটি সম্মেলন মূলত সমকালীন ও ভবিষ্যৎ নিরাপত্তার স্বার্থে উচ্চ-পর্যায়ের নিয়মিত আলোচনার জন্য বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ফোরাম হিসেবে বিবেচিত। ২০১৭ ও ২০১৯ সালেও মিউনিখ সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

news24bd.tv/aa

পাঠকপ্রিয়